Inqilab Logo

বুধবার, ০৪ আগস্ট ২০২১, ২০ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৪ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

অজুহাত দেননি গার্দিওলা, আরও চান টুখেল

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২১, ১২:০০ এএম

ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের দুই সেরা কোচের লড়াইয়ে আপাতত শেষ হাসি টমাস টুখেলের। ইউরোপীয় ফুটবলের সবচেয়ে বড় মঞ্চে পেপ গার্দিওলাকে পেছনে ফেলে ইউয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতে নিয়েছেন তিনি। ‘ব্যাটল অব ট্যাকটিশিয়ানস’-এ বিশ্বসেরা গার্দিওলাকে বাজিমাত করেছেন টুখেল।

এমন জয়ের পর উচ্ছ¡াসে ভেসে যাওয়াটা স্বাভাবিক। চেলসি স্কোয়াডও এর ব্যতিক্রম ছিল না। পোর্তোর এস্তাদিও দ্রাগাওয়ে জয়ের আনন্দের মাঝেই টুখেল জানালেন, তার ছেলেরা এখন আরও ক্ষুধার্ত। ইউরোপ-সেরার শিরোপা জিতে তারা থামতে চায়না। শিরোপা জেতার ঐতিহ্য গড়ে তুলতে চান কান্তে-হাভের্টস-পুলিসিকরা এমনটাই জানালেন এই জার্মান কোচ, ‘কেউ বিশ্রাম নিতে চায় না। পরের শিরোপাটা চাই। তার পরেরটাও। আমি এর (শিরোপাজয়ী দলের) অংশ হতে চাই। শক্তভাবেই এর অংশ হতে চাই।’

নড়বড়ে এক মৌসুমের মাঝে ফ্র্যাংক ল্যাম্পার্ডকে বিদায় করে টুখেলকে নিয়োগ দেয় চেলসি। চেলসি মালিক রুশ বিলিওনেয়ার রোমান আব্রামোভিচের কুখ্যাতি রয়েছে খুব বেশি দিন এক কোচের ওপর ভরসা না রাখার।

২০১২ সালে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ের কিছুদিন পরই চাকরি হারান চেলসি বস রবার্তো দি মাত্তেও। এবারও কি তেমনটার শঙ্কা আছে? প্রশ্নের জবাব টুখেল দিয়েছেন রসিকতার সুরেই। এই জয়ের পর রোমান তার চুক্তি বাতিল করবেন না এমনটা আশা টুখেলের, ‘এই জয়ের সঙ্গে আশা করি নতুন একটা চুক্তি পাব। রোমানের সঙ্গে মাত্র কথা হলো। প্রথম সাক্ষাতের জন্য সবচেয়ে দারুণ অথবা সবচেয়ে বাজে একটা মুহ‚র্ত। হয়তো এখন সবকিছুই শুধু খারাপ হবে।’

চেলসির বিপরীত চিত্র ম্যানচেস্টার সিটি ক্যাম্পে। ফেভারিট হিসেবে ফাইনালে নামার পরও গার্দিওলার ট্যাকটিকাল ভুলে ম্যাচ হারতে হয় ইংলিশ চ্যাম্পিয়নদের। ৩-৪-৩ ফর্মেশনে মাঠে নামা চেলসির বিপক্ষে গার্দিওলা দল নামান দুই হোল্ডিং মিডফিল্ডার ফার্নান্দিনিয়ো ও রদ্রিকে ছাড়া। ফলে চেলসির এনগোলো কান্তের কাছে মাঝমাঠের নিয়ন্ত্রণ হারাতে হয় তার দলকে। ম্যাচ হেরে যায় সিটি। ফাইনাল হারের পর গার্দিওলা কোনো অজুহাত দেননি। মেনে নিয়েছেন তার ভুল। বিটি স্পোর্টকে বলেন, তার কাছে যে কৌশল সেরা মনে হয়েছে সেটাই খেলিয়েছেন তিনি, ‘আমার কাছে যেটা সেরা মনে হয়েছে সেই দলই নির্বাচন করেছি। কেভিন ডি ব্রæইনা চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছে। এই ধরনের প্রতিযোগিতায় হয় এমনটা। কিন্তু সবাইকেই দরকার ছিল আমাদের। দল নির্বাচনে আমার সেরা চেষ্টাই করেছি। গত বছর লিঁও আর এ বছর পিএসজি ও ডর্টমুন্ডের বিপক্ষে এমন দল ছিল।’

নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবার চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ফাইনালে ওঠাটাকে ছোট হিসেবে দেখছেন না গার্দিওলা। সেই সঙ্গে ভবিষ্যতে আরও উন্নতি করার প্রত্যাশাও ছিল তার কণ্ঠে।

 

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: চেলসি

১৬ সেপ্টেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন