Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৬ আশ্বিন ১৪২৮, ১৩ সফর ১৪৪৩ হিজরী

সাবেক এমপি নূরুল হক হাওলাদারের মৃত্যুবার্ষিকীতে মিলাদ মাহফিল

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ মে, ২০২১, ৭:২৬ পিএম

বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ও সাবেক সংসদ সদস্য এ এফ এম নূরুল হক হাওলাদারের ৪৮তম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে নূরুল হক ফাউন্ডেশন গতকাল রবিবার তার শরীয়তপুরের নড়িয়ার গ্রামের বাড়িতে যথাযথ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণপূর্বক কোরআনখানি, মিলাদ মাহফিল ও কাঙ্গালি ভোজের আয়োজন করেছে ।

শরীয়তপুর নড়িয়া আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ও ‘আমরা মুক্তিযোদ্ধার সন্তান’ সংগঠনের কেন্দ্রীয় প্রেসিডিয়াম সদস্য জোবায়দা হক অজন্তার পিতা নূরুল হক ১৯৭৩ সালের ৩০ মে রাত ৮টায় আততায়ীর গুলিতে শহীদ হন। শরীয়তপুর জেলাধীন নড়িয়া উপজেলার সালধ গ্রামে তার নিজ বাড়ির বৈঠকখানায় স্থানীয় নেতাকর্মীদের সঙ্গে বৈঠকরত অবস্থায় আততায়ীরা তাকে গুলি করে হত্যা করে। তিনি বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থা বাসস’র সিনিয়র রিপোর্টার সাজ্জাদ হোসেনের শ্বশুর। ১৯৭৩ সালে অনুষ্ঠিত দেশের প্রথম জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অত্যন্ত তরুণ বয়সে নূরুল হক আওয়ামী লীগের মনোনয়নে নড়িয়া থেকে সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন।

প্রথম জাতীয় সংসদের দ্বিতীয় তথা বাজেট অধিবেশন ছিল ১৯৭৩ সালের ২ জুন। বাজেট অধিবেশনে যোগ দিতে ১ জুন ঢাকা আসার কথা থাকলেও তার আর অধিবেশনে যোগ দেয়া সম্ভব হয়নি। কারণ, ৩০ মে রাতেই আততায়ীর গুলিতে শহীদ হন তিনি। জীবদ্দশায় তিনি স্থানীয় আওয়ামী লীগের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অত্যন্ত দক্ষতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করেন। ব্যক্তিগত জীবনে তিনি ছিলেন জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অত্যন্ত স্নেহভাজন ও ঘনিষ্ঠ সহচর। ‘৫২ - এর ভাষা আন্দোলন ও’ ৬৯ - এর গণঅভ্যুত্থানসহ পাকিস্তানী জান্তা সরকারের বিরুদ্ধে বিভিন্ন আন্দোলনে তিনি ঢাকার রাজপথে সক্রিয়ভাবে অংশগ্রহণ করেন ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: মিলাদ মাহফিল

৩০ জানুয়ারি, ২০১৬

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ