Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ৫ আশ্বিন ১৪২৬, ২০ মুহাররম ১৪৪১ হিজরী

দল গোছাতে চিকিৎসা না নিয়েই দেশে ফিরছেন- খালেদা জিয়া

প্রকাশের সময় : ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

আফজাল বারী : সংগঠনকে নিজের চিকিৎসার ঊর্ধ্বে দেখছেন বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়া। তার মতে, আগে দল পরে চিকিৎসা। তাই এই মুহূর্তে ছেলে তারেক রহমানের পরামর্শও গ্রহণ করতে চাচ্ছেন না তিনি। চিকিৎসার জন্য লন্ডনে না গিয়ে আগামী বৃহস্পতিবার দেশে ফিরছেন বেগম জিয়া।
সউদী এয়ারলাইন্সের বিমানটি বৃহস্পতিবার বিকাল ৫টায় হযরত শাহজালাল (রহ.) আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করার কথা রয়েছে তার। মক্কায় পবিত্র হজ পালন শেষে তিনি মদিনায় মহানবী হযরত মুহাম্মদ (দ.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত করেছেন।
জিয়া পরিবারের ঘনিষ্ঠজন সূত্র ইনকিলাবকে জানান, গত বছরের ১৫ সেপ্টেম্বর চিকিৎসার জন্য লন্ডনে গিয়েছিলেন খালেদা জিয়া। ছেলের তত্ত্বাবধানে থেকে সেখানে তিনি চোখের চিকিৎসা নেন। এক বছর পর অর্থাৎ এই সেপ্টেম্বরেই খালেদা জিয়ার লন্ডনে যাওয়ার জন্য চিকিৎসকের নির্দেশনা রয়েছে।
তারেক রহমানের ঘনিষ্ঠজন বিএনপির প্রভাবশালী জনৈক নেতা ইনকিলাবকে জানান, চিকিৎসার বিষয়টি গুরুত্ব দিয়েই লন্ডনে বসবাসরত তারেক রহমান চেয়েছিলেন তার মা খালেদা জিয়া সেপ্টেম্বরেই লন্ডনে যাক। চিকিৎসার যেন ব্যত্যয় না ঘটে। পবিত্র হজ পালনের পরেই তিনি মাকে লন্ডনে নিয়ে যেতে চেয়েছিলেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থাও নেয়া হয়েছিল।
এদিকে দেশের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপট ও সংগঠনের বর্তমান অবস্থাকে গুরুত্ব দিতে দলের সিনিয়র কয়েক নেতা দলীয় প্রধানকে দেশে ফেরার পরামর্শ দেন। কারণ হোম ওয়ার্ক প্রায় শেষ। কেন্দ্রীয় কমিটির পর এখন স্থানীয় কমিটি পুনর্গঠন প্রক্রিয়া শুরু করা হবে। দল পুনর্গঠনে দায়িত্বপ্রাপ্ত নেতাদের দিকনির্দেশনা দেয়া এবং তাদের কাজকর্ম তদারকি করার পরামর্শ দেন সিনিয়র নেতারা। পুনর্গঠন কার্যক্রম শেষ না করতে পারলেও মাঝামাঝি সময়ে দেশের বাইরে যাওয়ার বিষয়টি বিবেচনায় নিতে দলীয় প্রধানের কাছে আবেদন রাখেন নেতারা।
‘ব্যক্তির চেয়ে দল বড় দলের চেয়ে দেশ’Ñ শহীদ জিয়াউর রহমানের আদর্শকে ধারণ করে বিএনপি প্রধান খালেদা জিয়াও নিজের চিকিৎসার বিষয়টিকে গৌণ করে দেখেছেন। হজ পালন শেষে মদিনা শরীফে পৌঁছেই সিদ্ধান্ত নিয়েছেন তিনি দেশে ফিরবেন। প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে সফর সঙ্গীদের নির্দেশনা দিয়েছেন।
এদিকে ছেলে তারেক রহমানকে তিনি জানিয়েছেন চিকিৎসার জন্য খুব শিগগিরই দল পুনর্গঠন কাজটি শেষ করে তিনি লন্ডনে যাবেন।
মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত
গত রোববার রাতে মদিনায় পৌঁছে মহানবী হযরত মুহাম্মদ (সা.)-এর রওজা মোবারক জিয়ারত করেছেন সাবেক প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়া। ছেলে তারেক রহমানসহ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে তিনি মহানবী (সা.) রওজা মোবারক জিয়ারত করেন।
তারা দেশ ও দেশবাসীর কল্যাণে দোয়া করেছেন। গতকাল খালেদা জিয়া পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মসজিদুন নববীতে নামাজ আদায় ও ইবাদত-বন্দিগি করেন বিএনপি চেয়ারপার্সন। গত ৮ সেপ্টেম্বর পবিত্র হজ পালনে ঢাকা থেকে খালেদা জিয়া এবং লন্ডন থেকে তারেক রহমানসহ পরিবারের সদস্যরা জেদ্দায় আসেন। সউদী আরবে বাদশা সউদ বিন আব্দুল আজিজের দাওয়াতে রাজকীয় অতিথি হিসেবে তারা এবার হজ করেন।
বিএনপি চেয়ারপার্সন বেগম খালেদা জিয়ার এটি তৃতীয় হজ। এর আগে ১৯৯১ সালে প্রধানমন্ত্রী থাকাকালে একবার এবং ১৯৯৭ সালে বিরোধী দলে থাকাকালে তিনি হজ করেন। এছাড়াও প্রায় প্রতি বছরই রমজানে তিনি পবিত্র ওমরাহ পালন করেন।
তারেক রহমান, তার স্ত্রী ডা. জোবাইদা রহমান, মেয়ে জাইমা রহমান এবং মরহুম আরাফাত রহমান কোকোর স্ত্রী শর্মিলা রহমান সিঁথির এটি প্রথম হজ। ২০১৪ সালে তারা খালেদা জিয়ার সঙ্গে ওমরাহ করেন।
বিএনপি চেয়ারপার্সনের সঙ্গে তার উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য এনামুল হক চৌধুরী, তথ্যপ্রযুক্তিবিষয়ক সম্পাদক শরীফ শাহ কামাল তাজ, একান্ত সচিব আব্দুুস সাত্তার, আলোকচিত্রী নুরউদ্দিন আহমেদ, গৃহকর্মী ফাতেমা বেগমও হজ করেন। তারেক রহমানের শাশুড়ি ইকবাল মান্দ বানু, শ্যালিকা শাহিনা খান জামান বিন্দু ও স্বামী সৈয়দ শফিউজ্জামানও এবার হজ করেন।
বিএনপি প্রধানের সার্বিক সহযোগিতায় রয়েছেন সউদী আরব বিএনপির নেতা সৈয়দ শামীম আলম তুহিন, আরব পশ্চিমাঞ্চল বিএনপির সভাপতি আহমদ আলী মুকিব, প্রধান উপদেষ্টা আব্দুর রহমান।

দলীয় নেতাদের সাথে মতবিনিময় আজ
সউদী আরব বিএনপি ও অঙ্গ-সংগঠনের নেতাকর্মীদের সাথে আজ মতবিনিময় করবেন বিএনপির সিনিয়র ভাইস-চেয়ারম্যান আলহাজ তারেক রহমান। আরব বিএনপি সূত্র এ তথ্য জানিয়েছে। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে মদিনায় হোটেল হিলটনে রয়েছেন খালেদা জিয়া। মতবিনিময় সভা হবে সেখানেই।



 

Show all comments
  • রুবেল ২০ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১১:৩৩ এএম says : 0
    খালেদা জিয়াকে অসংখ্য ধন্যবাদ
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ