Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ জুন ২০২১, ০৮ আষাঢ় ১৪২৮, ১০ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

ব্যাপক অস্থিরতায় স্বর্ণের দাম

অর্থনৈতিক রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৭ জুন, ২০২১, ১২:০৮ এএম

গত সপ্তাহজুড়ে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে ব্যাপক অস্থিরতা দেখা গেছে। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ২০ ডলারের ওপর বাড়লেও সপ্তাহজুড়ে কমেছে দামি এই ধাতুর দাম। স্বর্ণের পাশাপাশি গত এক সপ্তাহে রুপা ও প্লাটিনামের দামেও বেশ অস্থিরতা দেখা গেছে। স্বর্ণের মতো এই দুই ধাতুর দাম সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস বেড়েছে। পুরো সপ্তাহের হিসাবে দাম কমেছে।

বিশ্বজুড়ে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরু হওয়ার পর থেকেই বিশ্ববাজারে স্বর্ণের দামে ব্যাপক অস্থিরতা দেখা যাচ্ছে। মাঝে কিছুটা দাম কমলেও গত সপ্তাহের আগের সপ্তাহ পর্যন্ত প্রায় দুই মাস ধরে স্বর্ণের দাম ঊর্ধ্বমুখী ধারায় থাকে। বিশ্ববাজারে লাফিয়ে লাফিয়ে দাম বাড়ায় মে মাসে দেশের বাজারে দু’দফায় ভরিতে স্বর্ণের দাম ৪ হাজার ৩৭৪ টাকা বাড়ায় বাংলাদেশ জুয়েলার্স সমিতি (বাজুস)।

সর্বশেষ গত ২৩ মে থেকে স্বর্ণের নতুন দাম কার্যকর হয়েছে। নতুন দাম অনুযায়ী, বর্তমানে সব থেকে ভালো মানের বা ২২ ক্যারেটের প্রতি ভরি (১১ দশমিক ৬৬৪ গ্রাম) স্বর্ণ ৭৩ হাজার ৪৮৩ টাকা, ২১ ক্যারেটের স্বর্ণ ৭০ হাজার ৩৩৩, ১৮ ক্যারেটের স্বর্ণ ৬১ হাজার ৫৮৪ ও সনাতন পদ্ধতির প্রতি ভরি স্বর্ণ ৫১ হাজার ৬২ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। স্বর্ণের এই দাম বাড়ানোর কারণ হিসেবে বাজুস জানায়, করোনার কারণে সৃষ্ট অর্থনৈতিক সঙ্কট ও নানা জটিল সমীকরণের কারণে বিশ্ববাজারে স্বর্ণের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। একইসঙ্গে আন্তর্জাতিক রুটে ফ্লাইট বন্ধ থাকা, আমদানি পর্যায়ে শুল্ক জটিলতা (উপকরণ কর রেয়াত) ও নানা ধরনের দাফতরিক জটিলতার কারণে গোল্ড ডিলাররা স্বর্ণবার আমদানি করতে পারছে না। তাছাড়া চাহিদার বিপরীতে জোগান কম থাকায় দেশীয় বুলিয়ান/পোদ্দার মার্কেটেও স্বর্ণের মূল্যবৃদ্ধি পেয়েছে। এ কারণে স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়েছে।

বাংলাদেশে যখন স্বর্ণের দাম বাড়ানো হয়, তখন বিশ্ববাজারে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম ছিল ১ হাজার ৮৮১ ডলার। গত সপ্তাহের লেনদেন শুরু হওয়ার পর তা বেড়ে ১ হাজার ৯০৩ দশমিক ২০ ডলারে উঠে। গত বুধ ও বৃহস্পতিবার বড় দরপতন হলেও পরবর্তী আউন্স স্বর্ণের দাম ১ হাজার ৮৭০ ডলারে নেমে আসে। ফলে সপ্তাহ শেষে স্বর্ণের বড় দরপতন হবে এমন ধারণা করা হচ্ছিল।

কিন্তু শেষ কার্যদিবস শুক্রবার ঘুরে দাঁড়ায় স্বর্ণের বাজার। একদিনে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম বাড়ে ২০ দশমিক ২০ ডলার। এতে সপ্তাহ শেষে প্রতি আউন্স স্বর্ণের দাম দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ৮৯০ দশমিক ৮৫ ডলার। এতে সপ্তাহের ব্যবধানে স্বর্ণের দাম কমেছে দশমিক ৬২ শতাংশ বা ১২ দশমিক ৩৫ ডলার।

স্বর্ণের পাশাপাশি গত সপ্তাহে কমেছে রুপার দাম। সপ্তাহের শেষ কার্যদিবস ১ দশমিক ২০ শতাংশ দাম বাড়ার পরও সপ্তাহ শেষে রুপার দাম কমেছে দশমিক ৩৬ শতাংশ। এতে প্রতি আউন্স রুপার দাম দাঁড়িয়েছে ২৭ দশমিক ৭৮ ডলারে।

দামি ধাতু প্লাটিনামের দাম গত সপ্তাহের শেষ কার্যদিবসে বেড়েছে দশমিক ৭১ শতাংশ। এরপরও সপ্তাহ শেষে এ ধাতুটির দাম কমেছে ১ দশমিক শূন্য ৪ শতাংশ। এতে প্রতি আউন্স প্লাটিনামের দাম দাঁড়িয়েছে ১ হাজার ১৬৫ দশমিক ২৭ ডলারে।



 

Show all comments
  • Md Nazmul Hoque ৬ জুন, ২০২১, ১:৪৩ এএম says : 0
    আগে মেয়েরা সোনার জিনিস বানানোর অপেক্ষায় থাকতো, কবে বানাবো। যার কাছে সোনার জিনিস নাই তাকে মনে হত অভাগা। বর্তমান যুগে সোনার জিনিস বাহিরে নিয়ে যাওয়া অনেক ভয়, কখন চোর এসে কান,নাক ছিড়ে জীবনের উপর হুমকি নেমে আাসে। তাছাড়া সোনা অনেক মুল্যবান হলেও অপ্রয়োজনীয়। এখন শুধু বিয়ের কাজে সোনার কদর বেশি।
    Total Reply(0) Reply
  • Abu Hossain Siddik Rana ৬ জুন, ২০২১, ১:৪৪ এএম says : 0
    সাতবার স্বর্ণের দাম বাড়লেও কোন সমস্যা নাই, কারন এগুলো নিয়ে গরিব মানুষের কোন টেনশন নাই। শুধু নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম না বাড়লেই এদেশের কোটি কোটি মানুষ খুশি থাকবে আমার মনে হয়।
    Total Reply(0) Reply
  • Sarwar Rahman ৬ জুন, ২০২১, ১:৪৪ এএম says : 0
    স্বর্ণের দাম বাড়লে সমস্যা নেই। শুধু নিত্যপণ্যের দাম না বাড়লে চলবে।
    Total Reply(0) Reply
  • Khan Raju ৬ জুন, ২০২১, ১:৪৫ এএম says : 0
    আসেন আমরা সবাই একবছর স্বর্ন কেনা বাদ দেই, যদি দেশের সবাই না কেনে তাহলে কার কাছে বেচবে?
    Total Reply(0) Reply
  • Liton Hossain Pradhan ৬ জুন, ২০২১, ১:৪৫ এএম says : 0
    কিসে কতো দাম বারলো তার লিস্ট মার্কেটে এবং দোকানে অতি জরুরি না হলে আমাদের দেশের মানুষ ১ টাকা বারলে ১০ টাকা বেসি নিবে।।
    Total Reply(0) Reply
  • Ziared Rahman ৬ জুন, ২০২১, ১:৪৫ এএম says : 0
    আমার কাছে স্বর্ণ অপ্রয়োজনীয় একটা জিনিস মানুষের ক্ষেত্রে, স্বর্ণ দিয়ে নিজেকে সাজানো মানে বোকা মনে হয়। কিছু আসবাপত্রে স্বর্ণ ব্যাবহার করা যায়।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফুল ইসলাম মিয়াজী ৬ জুন, ২০২১, ৮:০৮ পিএম says : 0
    স্বর্ন হলো বিলাসিতার পন্য। তা নিয়ে মাথা না ঘামিয়ে মানুষের মৌলিক অধিকার নিয়ে মাথা ঘামলে ভালো হয়। কারণ স্বর্নের দাম বৃদ্ধি হওয়া কিংবা মূল্য কমে যাওয়া এই বিষয় টা শুধু একটা মহলের উপর প্রভাব পেলে। তাই সরকারের উচিত মৌলিক চাহিদা কিভাবে সহজলভ্য করে দেশের জনগণের ক্রয় ক্ষমতার মাঝে আনা যায়, সে বিষয়ে নজর দেওয়া।
    Total Reply(0) Reply
  • জাকির হোসেন ৬ জুন, ২০২১, ১১:৪০ পিএম says : 0
    সোনা মানুষের মৌলিক চাহিদার মধ্যে পড়েনা।তাই এটা নিয়ে মধ্যবিত্ত বা নিম্নবিত্ত মানুষের তেমন মাথা ব্যথা নাই।সাধারন কম দামের খাবার ও যেমন পুষ্টিকর হতে পারে তেমনি কমে দামি গহনাও নারীদের সৌন্দর্য বৃদ্ধির সহায়ক হতে পারে।অতএব এই ধাতুটি নিয়ে অযথা চিল্লাচিল্লি করার কি দরকার???
    Total Reply(0) Reply
  • সোনার দাম কমা না হয় বিয়েই করবনা
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্বর্ণের দাম

১৮ এপ্রিল, ২০২১
২৩ ডিসেম্বর, ২০২০
২ ডিসেম্বর, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ