Inqilab Logo

শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৯ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

করোনায় মারা গেলেন হিজবুল্লাহর প্রতিষ্ঠাতা আলি আকবর মোহতাশামিপুর

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ জুন, ২০২১, ১০:২৬ এএম

ইরানের রাজনীতিক ও লেবাননের সশস্ত্র বাহিনী হিজবুল্লাহর প্রতিষ্ঠাতা আলি আকবর মোহতাশামিপুর করোনায় আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। ইরানের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম জানায়, গত সোমবার ৭৪ বছর বয়সে উত্তর তেহরানের একটি হাসপাতালে মৃত্যু হয় আলি আকবর মোহতাশামিপুরের। ইসরাইলি বোমায় ডান হাত হারানো আলি আকবর মোহতাশামিপুর ইরানের রাজনীতির শীর্ষ পর্যায়ের একজন শিয়া নেতা ছিলেন। খবর-আল জাজিরার।

এ শিয়া নেতা সিরিয়ার রাষ্ট্রদূতের দায়িত্ব পালনকালে লেবাননের সশস্ত্র বাহিনী হিজবুল্লাহ প্রতিষ্ঠার অন্যতম একজন ছিলেন। তিনি ইরানের প্রয়াত প্রধান নেতা আয়াতুল্লাহ রুহুল্লা খোমেনির ঘনিষ্ঠ ছিলেন।

১৯৮২ থেকে ১৯৮৬ সাল পর্যন্ত ইরানের রাষ্ট্রদূত হিসেবে সিরিয়ায় নিযুক্ত ছিলেন এই রাজনীতিক। পরে ইরানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন ১৯৮৫ থেকে ১৯৮৯ সাল পর্যন্ত। ইরানে ইসলামিক অভ্যুত্থানের পর দেশটির আধাসামরিক ইসলামিক বিপ্লবী বাহিনী (আইআরজিসি) প্রতিষ্ঠায় সহযোগিতা করেন।

১৯৮৪ সালে একটি বইয়ে বোমা লুকিয়ে তাকে হত্যার চেষ্টা করা হয়েছিল। ইরানের দাবি, ওই হামলার পেছনে ইসরাইলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ জড়িত।
এর কয়েক বছর পরে তিনি ধীরগতিতে ইরান পুনর্গঠনে নিযুক্ত হন। তিনি চেয়েছিলেন দেশের অভ্যন্তরে ইসলামিক চিন্তাধারার পরিবর্তন আনতে। ২০০৯ সালে বিতর্কিত নির্বাচন পুনরায় করতে বিরোধীদের সঙ্গে আন্দোলনে জড়িয়ে পড়েন।

আয়াতুল্লাহ খোমেনির শিক্ষার্থী ও নির্বাসনে থাকার সময় তার সহচর মোহতাশামিপুর ইরানের বিপ্লবের গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তি ছিলেন। ৪০ বছর আগে এই বিপ্লবের মাধ্যমে শাহ সরকারকে উৎখাত করা হয়।

দামেস্কে নিয়োজিত থাকা অবস্থায় ইরানের সেনা সদস্যদের লেবাননে মোতায়েনের উদ্যোগ নেন তিনি। ওই সময় বৈরুতে ইরানের কোনও রাষ্ট্রদূত ছিলেন। দক্ষিণ লেবাননে ইসরায়েলি দখল চলমান থাকা অবস্থায় তিনি শিয়া প্রতিরোধ গোষ্ঠী হিজবুল্লাহ গঠন করেন ইরানের সমর্থনে। সূত্র: মিডল ইস্ট মনিটর



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইরান


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ