Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৫ আশ্বিন ১৪২৫, ৯ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

ক্রিকেটার আশরাফুলকে আর দেখা হলো না বাবার

প্রকাশের সময় : ২১ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্পোর্টস রিপোর্টার : ম্যাচ ফিক্সিং কেলেঙ্কারিতে জড়িয়ে ক্রিকেট থেকে নির্বাসিত ছিলেন ৫ বছর। অবশেষে শাস্তি শেষে ক্রিকেটে ফেরার সুসংবাদ পেয়েছেন বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের সাবেক অধিনায়ক মোহাম্মদ আশরাফুল। আর ক’দিন বাদে জাতীয় ক্রিকেট লিগেই খেলার কথা ছেলে অ্যাশের। তবে ক্রিকেটের জার্সিতে ফের ছেলেকে মাঠে নামতে দেখে যেতে পারলেন না আশরাফুলের বাবা আব্দুল মতিন। ফুসফুস ও হৃদ্যন্ত্রের জটিলতায় আক্রান্ত হয়ে কিছুদিন ধরেই রাজধানীর অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন ক্রিকেটার মোহাম্মদ মতিন। গেলপরশু দিবাগত রাত দেড়টায় চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৭২ বছর। গতকাল বাদ জোহর ব্রাহ্মণবাড়িয়ার বাঞ্ছারামপুরের নিজ গ্রামে তাঁকে দাফন করা হয়।
গত ১১ সেপ্টেম্বর হার্টের সমস্যার কারণে আশরাফুলের বাবাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিলো। এর আগে ২০০৬ সালে আব্দুল মতিনের হার্ট অপারেশন হয়। এই বছরের মে মাসে আবার হার্টে সমস্যা দেখা দেয়। পরে চিকিৎসকের পরামর্শে হার্টে বøক রিং পরানো হয়েছিলো। কিন্তু স¤প্রতি অবস্থা আরো খারাপ হলে অ্যাপোলো হাসপাতালে ভর্তি করানো হয়। রোববার সন্ধ্যা ৬টা ৫০ মিনিটে তার হৃদযন্ত্রের ক্রিয়া বন্ধ হয়ে যায়। এরপর শক দিয়ে হৃদক্রিয়া পুনরায় চালু রাখা হয়। তবে রাত ১টা ৩০ মিনিটে কর্তব্যরত চিকিৎসকরা মতিনকে মৃত ঘোষণা করেন।
আশরাফুলের ক্রিকেটার হবার পিছনে তাঁর বাবার অবদান অনেক বড় অংশে। ছোট থেকেই সব রকমের বাধা-বিপত্তিকে অতিক্রম করে ছেলেকে উৎসাহ দিয়ে গেছেন। পরে ছেলে হয়েছেন ক্রিকেটার, খেলেছেন জাতীয় দলে, ছিলেন বাংলাদেশের অধিনায়ক কিন্তু ম্যাচ ফিক্সিংয়ের অভিযোগে ২০১৩ সালের মে মাসে আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ হন আশরাফুল। ৫ বছরের জন্য আন্তর্জাতিক ক্রিকেট থেকে নিষিদ্ধ করা হয় তাকে। এই কঠিন সময়ে ছেলেকে মানসিকভাবে সাহায্য করে গেছেন আব্দুল মতিন। স¤প্রতি জাতীয় লিগে খেলার সার্টিফিকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ আশরাফুল। তবে জাতীয় দলে সুযোগ পেতে আরো দুই বছর অপেক্ষা করতে হবে তাকে। সামনে আশরাফুল আবার জাতীয় দলে ফিরতে পারবেন কিনা তা সময়ই বলে দিবে কিন্তু আশরাফুলের বাবার অনেক ইচ্ছে ছিল ছেলেকে আবার বাংলাদেশের হয়ে খেলতে দেখবেন! সেটি আর হলো না।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ