Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৩ আষাঢ় ১৪২৮, ০৫ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

গাদ্দারদের দলে ফেরানো হবে না

মুকুলকে ঘরে ফিরিয়েও স্পষ্ট বার্তা মমতার

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০২১, ১২:০২ এএম

মুকুল রায়কে ‘ঘরের ছেলে’ বলে সম্বোধন করে তৃণমূলে ফিরিয়ে নিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। গতকাল তৃণমূল ভবনে মুকুলকে পাশে বসিয়ে মমতা বলেন, ‘মুকুল আমাদের ঘরের ছেলে, ঘরে ফিরল। আমরা অভিনন্দন জানাচ্ছি’। একই সঙ্গে তিনি দাবি করেন, মুকুল রায়ের সঙ্গে কোনওদিনও তার ব্যক্তিগত মতবিরোধ ছিল না। পাল্টা মুকুল রাযও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে ‘ভারতবর্ষের নেত্রী’ বলে প্রশংসায় ভরিয়ে দেন। বিজেপি করতে পারবেন না বলেই তিনি পুরনো ঘরে ফিরলেন বলেও স্বীকার করেন মুকুল রায়।

মুকুল রায়কে ফেরানো হল ঠিকই। কিন্তু ভোটের ঠিক আগে যাঁরা দলের সঙ্গে গদ্দারি করেছেন, তাঁদের জন্য তৃণমূলের দরজা বন্ধ। এ দিন তৃণমূল ভবনে এ কথা স্পষ্ট করে দিলেন তৃণমূলনেত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়। তিনি বলেন, মুকুল রায় নির্বাচনের আগে দল ছাড়েননি। ভোটের সময় তৃণমূলের বিরুদ্ধে কোনও অপ্রীতিকর কথাও বলেননি। কিন্তু এমন অনেকেই আছেন যাঁরা ভোটের আগে শুধুমাত্র অর্থ এবং ক্ষমতার লোভে দল ছেড়েছেন। বিজেপি-তে যোগ দিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানা কট‚ কথা বলেছেন। সেই ধরনের নেতাদের দলে ফেরানো হবে না বলেই এ দিন স্পষ্ট করে দিয়েছেন মমতা।

তবে তৃণমূলনেত্রী এ দিন একই সঙ্গে জানিয়েছেন, বিজেপি থেকে আরও অনেকেই তৃণমূলে যোগ দেবেন। সময়মতো এ বিষয়ে জানানো হবে বলে দাবি করেছেন মুখ্যমন্ত্রী। মুকুল রায়ের সঙ্গে যাঁরা দল ছেড়েছিলেন, তাঁদের বিষয়েও দল নরম মনোভাব নিতে পারে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তৃণমূলনেত্রী।

প্রসঙ্গত শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায় সহ বহু তৃণমূল নেতাই নির্বাচনের আগে বিজেপি-তে যোগদান করেছিলেন। রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়, সোনালি গুহ, প্রবীর ঘোষালের মতো অনেকেই এখন তৃণমূলে ফিরতে চাইছেন বলে খবর। তবে তৃণমূলনেত্রী এ দিন বুঝিয়ে দিয়েছেন, বিজেপি থেকে দলে আসতে ইচ্ছুক নেতাদের দলে নেওয়া হবে ঠিকই। তবে সবার জন্য দোর খোলা থাকছে না।

মমতা বলেন, যাঁরা নির্বাচনের সময় দলের সঙ্গে খুব গদ্দারি করেছেন, মুকুল কিন্তু নির্বাচনের সময় আমাদের দলবিরোধী একটি কথাও বলেনি। যাঁরা নির্বাচনের সময় গদ্দারি করে বিজেপি-র হাত শক্ত করেছে, তাঁদের আমরা নেব না এটা আমাদের দলের সিদ্ধান্ত। মনে রাখবেন চরমপন্থী এবং নরমপন্থী আছেন। কিছু লোক আছেন যাঁরা মুকুলের সঙ্গে দল ছেড়েছিলেন। তারা হয়তো চলে আসতে চাইবেন। তাঁদের বিষয়ে দল সিদ্ধান্ত নেবে। কিন্তু চরমপন্থী যাঁরা গদ্দারি করে নিম্নরুচির পরিচয় দিয়েছেন তাঁদের আমরা নেব না। মমতা স্পষ্ট বলেন, যাঁরা টাকার জন্য বা অন্য কিছুর লোভে ভোটের আগে দল ছেড়েছিলেন, তাঁদের কথা আমরা ভাবছি না। যাঁরা নম্র, বিনয়ী তাঁদের বিষয়ে দল ভেবে দেখবে। তার সঙ্গে দল ছাড়া কয়েকজন নেতা যে তৃণমূলে ফিরতে চান, সেকথা স্বীকার করেছেন মুকুলও। তবে কারও নাম বলতে চাননি তিনি।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ দিন আরও মনে করিয়ে দিয়েছেন, মুকুল রায় নির্বাচনের মুখে দল ছাড়েননি। তিনি অনেক দিন আগেই তৃণমূল ছেড়েছিলেন। তবে বিজেপি থেকে দলে ফিরে মুকুল মানসিক শান্তি পাবেন বলেও মন্তব্য করেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আগাগোড়াই মুকুলকে ‘ঘরের ছেলে’ বলে সম্বোধন করেন তৃণমূলনেত্রী। মুকুল আগের মতোই গুরুত্বপূর্ণ ভ‚মিকা পালন করবেন বলেও জানিয়েছেন মমতা।
তৃণমূল ভবনে গিয়ে প্রথমে একতলায় নিজের পুরনো ঘরেই বসেন মুকুল। এরপর দোতলায় গিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে দেখা করেন তিনি। মমতা, অভিষেকের সঙ্গে বৈঠকও করেন মুকুল। ওই বৈঠকে সুব্রত মুখোপাধ্যায়ও উপস্থিত ছিলেন বলে খবর। মুকুল রায়ের সঙ্গেই এ দিন তৃণমূলে যোগ দিলেন তার ছেলে শুভ্রাংশু রায়ও। সূত্র : নিউজ১৮।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: স্পষ্ট বার্তা মমতার
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ