Inqilab Logo

ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৭ জুন ২০২১, ০৩ আষাঢ় ১৪২৮, ০৫ যিলক্বদ ১৪৪২ হিজরী

আমতলীতে মাদরাসা প্রভাষককে কুপিয়ে জখম

বরগুনা জেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১১ জুন, ২০২১, ১১:২১ পিএম

বরগুনার আমতলী উপজেলার গাজীপুর বন্দরে শুক্রবার দুপুরে ঘরসহ জমি দখলে নিতে বাধা দেওয়ায় গাজীপুর সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার আরবি বিষয়ের প্রভাষক মাওলানা মো. ফোরকান মুসুল্লীকে (৫০) কুপিয়ে গুরুতর জখম করেছে প্রতিপক্ষ। রামদার কোপে ফোরকানের বুক পিঠ এবং কনুইয়ের হাড় কেটে যায় বলে জানা গেছে। স্বজনরা তাকে উদ্ধার করে মুমুর্ষ অবস্থায় বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করে।

জানা গেছে, গাজীপুর বন্দর সিনিয়র ফাজিল মাদরাসার প্রভাষক মাওলানা মো. ফোরকান মুসল্লীর বড় ভাই আলমগীর হোসেন মুসল্লীর গাজীপুর বন্দরে ১২ শতাংশ জমিসহ একটি ঘর রয়েছে। বন্দরে বাসা থাকলেও মাওলানা ফোরকান ও তার ভাই পরিবারসহ গ্রামে থাকে। তারা গ্রামের বাড়ি থাকার সুযোগে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতলেব মৃধা গোপনে বাসার পিছনের ৭ শতাংশ জমি এর মধ্যে দখল করে নেন। এ নিয়ে কয়েক বছর ধরে অনেক বার সালিশ বৈঠক হয়েছে কিন্তু কোন সুরহা হয়নি। উল্টো ঘরসহ বাকী জমির উপর লোলুপ দৃষ্টি পরে বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতলেব মৃধার। শুক্রবার সকাল ১০ টার সময় মাওলানা ফোরকান তার ভাইয়ের ঘর মেরামতের কাজ শুরু করেন। এসময় মোতালেব মৃধা ঘর মেরামতে বাধা দিয়ে ফোরকানকে অকথ্য ভাষায় গালাগাল করেন। এ নিয়ে গাজীপুর বাজার ব্যবসায়ী কমিটির সভাপতি হাজী রুহুল আমিন এবং সম্পাদক জুয়েল গাজী দুপক্ষকে শান্ত থাকার জন্য অনুরোধ করেন এবং আগামী সোমবার সালিস বৈঠকে বসে মীমাংসা করে দেওয়ার সিদ্ধান্ত দেন। বাজার কমিটির সভাপতি ও সম্পাদকের সিদ্ধান্ত মেনে মাওলানা ফোরকান গ্রামের বাড়ি চলে যাওয়ার জন্য হাজী রুহুল আমিনের বাসার সামনে পৌঁছান। এসময় পেছন থেকে ধাওয়া করে মোতালেব মৃধা, তার ছেলে মিঠু মৃধা, মেয়ের ঘরের নাতি শাকিল, মেয়ে রেহেনা ও ভাতিজা শাহিন মৃধা মাওলানা ফোরকানকে ধরে ধারালো রামদা দিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে বুকে পিঠে ও হাতে গুরুতর জখম করে। এসময় ফোরকানের ডাক চিৎকার শুনে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে। পরে খবর পেয়ে স্বজনরা তাকে রক্তাক্ত অবস্থায় উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যান। সেখানে প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে মুমুর্ষ অবস্থায় উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়।

পটুয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের জরুরী বিভাগের চিকিৎসক ডা. নুসরাত শারমিন জানান, মাওলানা ফোরকানের পিঠে ২টি, বুকে ১টি ও বাম হাতের কনুইয়ে ধারালো রামদার কোপ রয়েছে।

মাওলানা ফোরকানের ভাতিজা নাসির মুসল্লী জানান, গাজীপুর বাজারের ভূমি দস্যু মোতালেব মৃধা আমার চাচা আলমগীর মুসল্লীর জমি দখলে নিতে চায়। এতে আমার আরেক চাচা মাওলানা ফোরকান মুসল্লী জমি দখলে নিতে বাধা দেওয়া তাকে শুক্রবার দুপুরে মোতালেব মৃধা, তার ছেলে মিঠু মৃধা, মেয়ের ঘড়ের নাতি শাকিল, মেয়ে রেহেনা ও ভাতিজা শাহিন মৃধা রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে। ধারালো রামদার কোপে তার কনুইয়ের রগসহ হার কেটে যায়। এছাড়া বুকে পিঠেও বড় ধরনের ক্ষত হয়েছে। এখনো রক্ত বন্ধ করা যাচ্ছে না।

প্রভাষক মাওলানা ফোরকান জানান, গাজীপুর বাজারে আমার ভাই আলমগীর মুসল্লীর জমিসহ একটি ঘর রয়েছে। শুক্রবার সকাল ১০ টার সময় ওই ঘর মেরামতের জন্য গেলে মোতালেব মৃধা বাধা দেয়। এবং আমাকে মোতালেব মৃধা, তার ছেলে মিঠু মৃধা, মেয়ের ঘড়ের নাতি শাকিল, মেয়ে রেহেনা ও ভাতিজা শাহিন মৃধা রামদা দিয়ে কুপিয়ে গুরুতর জখম করে।

অভিযুক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধা মোতালেব মৃধার মোবাইল ফোনে বার বার যোগাযোগের চেষ্টা করা হয়। ফোনে রিং হলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

আমতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. শাহ আলম হাওলাদার বলেন, জমি নিয়ে বিরোধের কারণে মাওলানা ফোরকানের উপর হামলার খবর পেয়েছি। ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। এখনো অভিযোগ পাইনি। অভিযোগে পেলে তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বরগুনা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ