Inqilab Logo

সোমবার, ০২ আগস্ট ২০২১, ১৮ শ্রাবণ ১৪২৮, ২২ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

নতুন জোট ভাঙতে ইসরাইলে নানা তৎপরতা চালাচ্ছেন নেতানিয়াহু!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১২ জুন, ২০২১, ৫:৪১ পিএম

১২ বছর ধরে ইসরাইলকে শাসন করা বেনিয়ামিন নেতানিয়াহু ক্ষমতা ধরে রাখার প্রায় সব চেষ্টা করেছেন। সম্প্রতি দেশটিতে তাকে ক্ষমতাচ্যুত করতে ৮ দল মিলে জোট গঠিত হয়েছে । এ জোট মূলত তার মাথাব্যথার কারণ। শেষ সময়ে এসেও এ জোট ভাঙতে নানাভাবে তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন নেতানিয়াহু। রবিবার এ জোট সিনেটে নিজেদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রমাণ করতে পারলে ইসরায়েল পাবে নতুন প্রধানমন্ত্রী। কিন্তু নেতানিয়াহু তা হতে দেবেন কেন? তাই শেষ চালটি চাললেন বেনি গান্টজকে টোপ দিয়ে। সংবাদ মাধ্যম এন১২ এর বরাত দিয়ে জেরুজালেম পোস্ট এ তথ্য জানায়।

ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টির চেয়ারম্যান বেনি গান্টজকে নেতানিয়াহু শর্ত দিয়েছেন, যদি নতুন জোট থেকে তিনি বের হয়ে যান তাকে প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব বুঝিয়ে দিয়ে পদত্যাগ করবেন নেতানিয়াহু। খবরে বলা হয়, যে জোট সরকার রোববার শপথ নিতে যাচ্ছে তা ভেঙে দেওয়ার বিনিময়ে নেতানিয়াহু পদত্যাগ করবেন। কট্টর এ প্রধানমন্ত্রী পদত্যাগ করলে দায়িত্ব নিতে পারবেন বেনি গান্টজ। খবরে আরও বলা হয়, নেতানিয়াহুর ঘনিষ্ঠদের কাছ থেকে গান্টজকে এ বিষয়ে অবহিত করা হয়েছে।সর্বশেষ নেতনিয়াহুর দলের পক্ষ থেকে বৃহস্পতিবার রাতে গান্টজকে বলা হয়েছে, নেতানিয়াহু পদত্যাগে প্রস্তুত। যদিও গান্টজের টিম এ প্রস্তাব সরাসরি নাকচ করে দিয়েছে। এ ছাড়া নেতানিয়াহুর পক্ষ থেকে যত প্রস্তাব করা হয়েছে সবগুলো প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

ইয়েস আতিদ নেতৃত্বাধীন ৮ দল নিয়ে নতুন যে জোট হয়েছে তাতে ব্লু অ্যান্ড হোয়াইট পার্টি অন্যতম অংশীদার। সর্বশেষ নির্বাচনে এ দল আসন পেয়েছে ৮টি। এর আগে ইসরায়েলে ৮টি বিরোধী দল মিলে সরকার গঠনে একটি চুক্তিতে পৌঁছাতে সক্ষম হয়। এর মধ্য দিয়ে দেশটিতে কট্টর বেনিয়ামিন নেতানিয়াহুর যুগের অবসান হতে চলেছে। নেতানিয়াহুর স্থলাভিষিক্ত নাফতালি বেনেটের নতুন জোট সরকার রবিবার শপথ নেওয়ার কথাও রয়েছে।

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: নেতানিয়াহু


আরও
আরও পড়ুন

কাশ্মীর লীগকে স্বীকৃতি না দিতে আইসিসিকে ভারতের চিঠি!

img_img-1627918338

আগামী ৬ আগস্ট থেকে কাশ্মীরে শুরু হতে যাওয়া ক্রিকেট লীগ নিয়ে উত্তাল ক্রিকেট বিশ্ব। তবে এই লীগ নিয়ে এবারো কড়া অবস্থান নিলো সৌরভ গঙ্গোপাধ্যায়ের নেতৃত্বাধীন বিসিসিআই। কাশ্মীর ক্রিকেট লীগকে স্বীকৃতি না দিতে এবার আইসিসিকে চিঠি দিলো ভারতীয় ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ড। চিঠিতে বলা হয়, কোনোভাবেই যেন কাশ্মীর প্রিমিয়ার লীগকে (কেপিএল) স্বীকৃতি দেয়া না হয়। -সংবাদ প্রতিদিন কাশ্মীর নিয়ে পাকিস্তান-ভারত বিবাদ দীর্ঘদিনের। বিষয়টি নিয়ে বরাবরই সোচ্চার হয়েছে নয়াদিল্লি। অঞ্চলটিতে নির্বাচন আয়োজনের পর এবার সেখানে ক্রিকেট লীগেরও আয়োজন করতে চলেছে পাকিস্তান। আর সেকারণেই বিষয়টিকে ভালোভাবে নেয়নি বিসিসিআই। পাকিস্তান সুপার লীগ আয়োজন করা নিয়ে কোনো আপত্তি না থাকলেও জাতীয় সুরক্ষার খাতিরে কাশ্মীর প্রিমিয়ার লীগকে কোনোভাবেই স্বীকৃতি দেবে না বিসিসিআই। ইতোমধ্যে বিশ্বের সমস্ত ক্রিকেট বোর্ডকে মৌখিকভাবে সেকথাও জানিয়ে দিয়েছেন সৌরভরা। শুধু তাই নয়, এই লীগে অংশগ্রহণকারী ক্রিকেটারদের ভারতে ক্রিকেট সম্পর্কিত সমস্ত কার্যকলাপে নিষিদ্ধ করা হবে বলেও হুমকি দেয়া হয়। সেই কথাও স্পষ্ট করে ঘোষণা দেয়া হয়। আর এবার এ ব্যাপারে সরাসরি আইসিসিকে চিঠি দিলো ভারতীয় বোর্ড। একটি ক্রীড়াবিষয়ক ওয়েবসাইটে প্রকাশিত প্রতিবেদন অনুযায়ী, চিঠিতে ভারতীয় বোর্ডের পক্ষ থেকে ক্রিকেটের সর্বোচ্চ নিয়ামক সংস্থাকে বলা হয়েছে, কাশ্মীর নিয়ে দীর্ঘ দিন ধরে রাজনৈতিক বিবাদ রয়েছে ভারত-পাকিস্তানের মধ্যে। তাই ওই অঞ্চলে আয়োজিত এই ক্রিকেট লীগকে যেন কোনোভাবেই স্বীকৃতি দেয়া না হয়। এদিকে এই লীগ আয়োজনে বাধা দেয়ার অভিযোগ তুলে বিসিসিআইয়ের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে পাকিস্তান ক্রিকেট বোর্ড।কাশ্মীরে আয়োজিত ক্রিকেট লীগে না খেলার জন্য তার উপর চাপ সৃষ্টি করছে বিসিসিআই। এমনকি ভারতে প্রবেশের উপরও নিষেধাজ্ঞা জারি করা হতে পারে। এর আগে টুইটে এমনই অভিযোগ তুলেছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার প্রাক্তন ক্রিকেটার হার্শেল গিবস। শুধু গিবস নন, আরেক প্রাক্তন ক্রিকেটার পাকিস্তানের রশিদ লতিফও একই অভিযোগ করেছেন। আর এই নিয়েই উত্তাল ক্রিকেট দুনিয়া।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ