Inqilab Logo

রোববার, ০১ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮, ২১ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

গণআন্দোলনে ভেসে যাবে আওয়ামী লীগ

ভার্চুয়াল আলোচনায় মির্জা ফখরুল

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ জুন, ২০২১, ১২:০০ এএম

বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেছেন, আওয়ামী লীগ দুর্নীতি দু:শাসন যা করছে করুক। জনগণের কাছে তাদের অন্যায় টিকে থাকতে পারবে না। জনগণের উত্তাল আন্দোলনের মধ্য দিয়ে আওয়ামী লীগ ভেসে যাবে। তবে সরকার পতনের আন্দোলন শুরুর আগে দ্রুত নিজেদের মধ্যকার ‘বিভেদ ও গ্রুপিং’ দূর করে ঐক্যবদ্ধ থাকতে হবে।

গতকাল এক ভার্চুয়াল আলোচনা সভায় যুক্ত হয়ে তিনি এসব কথা বলেন। টঙ্গীতে সালাহ উদ্দিন সরকারের বাসভবনে গাজীপুর জেলা ও মহানগর বিএনপির যৌথ উদ্যোগে দলের প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের ৪০তম শাহাদাত বার্ষিকী উপলক্ষে নেতাকর্মীদের উপস্থিতিতে এ ভার্চুয়াল আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। মির্জা ফখরুল বলেন, নিজেদের মধ্যকার বিভেদগুলো দূর করে আসুন একত্রিত হই। ঐক্যবদ্ধ হয়ে জনগণকে সঙ্গে নিয়ে যে দানব আমাদের বুকে ওপর চেপে বসেছে তাকে সরিয়ে সত্যিকার অর্থেই জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করি।

বর্তমান অবস্থাকে সংকটময় উল্লেখ করে মির্জা ফখরুল বলেন, এই অবস্থার পরিবর্তন আমাদেরকেই করতে হবে। অন্য কেউ এসে পরিবর্তন করে দিয়ে যাবে না। বিএনপিকে দায়িত্ব নিতে হবে। বিএনপি হচ্ছে সেই দল যারা জনগণের প্রতিনিধিত্ব করে, যার প্রতিষ্ঠাতা শহীদ জিয়াউর রহমান। যিনি স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন। যিনি বহুদলীয় গণতন্ত্রের প্রবর্তক। বিএনপি হচ্ছে সেই দল যার চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া, যিনি গণতন্ত্রকে মুক্তি দিয়েছিলেন।

তিনি বলেন, এখন আবার যখন রাজনৈতিক সংকট তৈরি হয়েছে, আমাদের সব কিছু নিয়ে চলে যাচ্ছে তখন আমাদেরকেই ঘুরে দাঁড়াতে হবে, আমাদেরকেই শক্ত হয়ে দাঁড়াতে হবে।
বিএনপি মহাসচিব বলেন, খালেদা জিয়াকে মুক্ত করতে হবে। দেশনেত্রীর মুক্তির আন্দোলন দিয়েই শুরু করতে হবে গণতন্ত্রের মুক্তির আন্দোলন। ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যানকে দেশে ফিরিয়ে আনতে পারি, সেই লক্ষ্যে অতিদ্রুত আমাদের এগিয়ে যেতে হবে।

মির্জা ফখরুল বলেন, এটা যদি না করতে পারেন তাহলে বলবো, আমাদের কোনো ভবিষ্যৎ নেই। ভবিষ্যৎ থাকবে তখনই যখন আপনি সবাইকে নিয়ে একসঙ্গে রাজপথে নামতে পারবেন, সোচ্চার হতে পারবেন।

স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, আমরা দলের মধ্যে নেতার সংখ্যা যে হারে বৃদ্ধি করতে পেরেছি, কর্মীর সংখ্যা সেই হারে বৃদ্ধি করতে পারিনি। সেজন্য আজকে সবাইকে কর্মীর ভূমিকায় অবতীর্ণ হতে হবে।

জেলা সভাপতি কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলনের সভাপতিত্বে সভায় আরও যুক্ত ছিলেন চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা কাউন্সিলের সদস্য আমান উল্লাহ আমান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুল, নির্বাহী কমিটির ওমর ফারুক শাফিন, আবদুস সালাম আজাদ, সালাহ উদ্দিন সরকার, কাজী ছাইয়েদুল আলম বাবুল, সোহরাব উদ্দিন, মজিবুর রহমান, হুমায়ুন কবির খান, মীর হালিমুজ্জামান ননি, খন্দকার আজিজুর রহমান পেয়ারা, হুমায়ুন কবীর মাস্টার, শওকত হোসেন সরকার, মাহবুব আলম শুক্কুর, ফিরোজ আহমেদ, শ্রীপুরের শাহজাহান ফকির, কাপাসিয়ার খলিলুর রহমান প্রমুখ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন