Inqilab Logo

ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ মার্চ ২০১৯, ০৫ চৈত্র ১৪২৫, ১১ রজব ১৪৪০ হিজরী।
শিরোনাম

ফেড ও বিওজের বৈঠক ঘিরে বিনিয়োগকারীদের সতর্কতা

প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

কর্পোরেট ডেস্ক :  বিশ্বের দুই প্রভাবশালী কেন্দ্রীয় ব্যাংকের দুই দিনব্যাপী নীতিনির্ধারণী বৈঠক শুরু হয়েছে। বিশ্বজুড়ে বাজার-সংশ্লিষ্টদের নজর এখন সেদিকেই। মার্কিন ফেডারেল রিজার্ভ (ফেড) ও ব্যাংক অব জাপানের (বিওজে) সম্ভাব্য নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়ে জল্পনা-কল্পনার শেষ নেই। বিশ্ববাণিজ্যে আগে থেকেই এর প্রভাব দেখা গেছে। এশিয়ার স্টক এক্সচেঞ্জগুলোর লেনদেন হয়েছে ধীরগতিতে। মুদ্রাবাজারের অবস্থাও অনেকটা একই। কেন্দ্রীয় ব্যাংক দুটির বৈঠকের আগে তৈরি হওয়া অনিশ্চয়তার কারণে লেনদেনের ক্ষেত্রে ব্যবসায়ীরা সতর্ক থাকছেন। এটি বৈশ্বিক বাজার ব্যবস্থায় যথেষ্টই প্রভাব রেখেছে। সাধারণত ফেড ও বিওজের আর্থিক নীতিনির্ধারণী বৈঠক একই সপ্তাহে অনুষ্ঠিত হয়। ফেড ও বিওজের আর্থিক নীতি ঘোষণা নিয়ে শেয়ারবাজারেও বেশ উদ্বেগ কাজ করছে। টোকিওর নিক্কেই সূচক দিনভর ওঠানামা করেছে।
হংকংয়ের সূচক দশমিক ৫ শতাংশ কমেছে। সাংহাই ও সিডনিতে সূচক কমেছে দশমিক ২ শতাংশ। সিউলে অবশ্য দিনের সূচক স্থিতিশীল ছিল। মেলবোর্নের আইজি লিমিটেডের প্রধান বাজার বিশ্লেষক ক্রিস ওয়েস্টন বলেছেন, ব্যাংক অব জাপান ও ফেডারেল রিজার্ভ ওপেন মার্কেট কমিটির বৈঠক ঘিরে বাজারে চরম অনিশ্চয়তা তৈরি হয়েছে। বিনিয়োগকারীদের কেউই এ সময় ঝুঁকি নিতে চাইছেন না।
বর্তমানে যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান উভয় দেশের অর্থনীতিতেই উদ্বেগের নাম মূল্যস্ফীতি। যুক্তরাষ্ট্রের লক্ষ্য রয়েছে ২ শতাংশ মূল্যস্ফীতি অর্জনের। অন্যদিকে দীর্ঘদিন ধরেই জাপানের চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় শূন্য শতাংশের কাছাকাছি থাকা মূল্যস্ফীতি। এদিকে সুদহার নির্ধারণ ছাড়াও কেন্দ্রীয় ব্যাংকটি আরো কয়েকটি পদক্ষেপ পর্যালোচনা করবে বলে জানানো হয়েছে। এ তালিকায় প্রথমেই রয়েছে সরকারি বন্ড ক্রয়। সমালোচকরা বলছেন, সরকারি বন্ডের বাজারটি বিওজের আর্থিক নীতি শিথিলীকরণ কর্মসূচি সফল হওয়ার পথে প্রতিবন্ধকতা তৈরি করছে। ব্যাংকটি বর্তমানে প্রতি বছর ৮০ লাখ কোটি ইয়েন (৭৮ হাজার ৫০০ কোটি ডলার) সরকারি বন্ড কেনার নীতি নিয়ে চলছে। কিন্তু বিওজের বৈঠকে এ নীতিতে কোনো পরিবর্তন আসে কিনা, সেদিকে নজর রাখছেন অনেকেই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ