Inqilab Logo

শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৯ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

এবার ভারতে মুসলিম বৃদ্ধকে মারধর-লাঞ্ছনা : কেটে দেয়া হয় দাঁড়ি

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০২১, ১১:০২ এএম

করোনাভাইরাসের মহামারির মধ্যে ভারতের মুসলিম নির্যাতন কমেনি। মসজিদ গুঁড়িয়ে দেয়া আর মুসলিমদের উপর নির্যাতন নিয়মিত ঘটনায় পরিণত হয়েছে। এবার ভারতের উত্তরপ্রদেশে ফের মুসলিম নিগ্রহের ঘটনা ঘটেছে। এবার দুষ্কৃতিকারীদের হামলার শিকার হয়েছেন আব্দুল সামাদ নামের এক বৃদ্ধ।

নির্যাতনের বিবরণ দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন আব্দুল সামাদ। ইতোমধ্যে সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

ভারতের সংবাদমাধ্যম এনডিটিভি অনলাইনকে উত্তরপ্রদেশ পুলিশ জানিয়েছে, রোববার রাতে রাজ্যের লোনি শহরে ঘটেছে এই ঘটনা। হামলাকারীদের একজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে, বাকিদেরও গ্রেফতারের তৎপরতা চালাচ্ছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী।

ভিডিওবার্তায় আব্দুল সামাদ বলেন, রোববার মসজিদে এশার নামাজ আদায় শেষে অটোরিকশার জন্য অপেক্ষা করছিলেন তিনি। এ সময় একটি অটোরিকশা এসে তার সামনে থামে এবং সেখান থেকে তিন ব্যক্তি নেমে এসে তাকে বলে, তার সঙ্গে জরুরি কথা আছে তাদের।

কী কথা জানতে চাইলে তাদের একজন প্রথমে তাকে চড় দিয়ে ফেলে দেয় এবং তারপর টেনে হিঁচড়ে তাকে কাছের একটি পরিত্যাক্ত কুঁড়েঘরে নিয়ে যায়।

ভিডিওবার্তায় কাঁদতে কাঁদতে সামাদ বলেন, ‘ঘরে নিয়ে গিয়ে প্রথমে বাঁশ ও কাঠের লাঠি দিয়ে তারা আমাকে মারধোর করে, তারপর ছুরি দিয়ে দাঁড়ি কেটে দেয় এবং ‘জয় শ্রীরাম’ ও ‘বন্দে মাতরম’ স্লোগান উচ্চারণ করতে বলে। আমি কী অপরাধ করেছি জানতে চাইলে তারা বলে, আমি পাকিস্তানি এজেন্ট।’

সামাদ আরও বলেন, ‘তারা আমাকে মুসলিম নির্যাতনের বিভিন্ন ভিডিও দেখিয়ে বলে যে, আমি যদি অপরাধ স্বীকার না করি, তাহলে নির্যাতন আরও বাড়বে, আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের হত্যার হুমকিও দেওয়া হয়েছে।’

লোনির জ্যেষ্ঠ পুলিশ কর্মকর্তা অতুল কুমার সোনকার এনডিটিভিকে জানিয়েছেন, পুলিশ এ বিষয়ে ইতোমধ্যে একটি মামলা গ্রহণ করেছে এবং ঘটনায় যুক্ত থাকার অভিযোগে প্রবেশ গুজ্জার নামে এক সন্দেহভাজন হামলাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

অপর দুই হামলাকারীকে গ্রেফতারের ব্যাপারেও তৎপরতা চলছে বলে জানিয়েছেন তিনি। গ্রেফতার গুজ্জার অবশ্য এ বিষয়ে এখন পর্যন্ত কোনো মন্তব্য করেননি।



 

Show all comments
  • Dadhack ১৫ জুন, ২০২১, ১০:০৭ পিএম says : 0
    মুসলিমরা প্রায় 800 বছর ধরেই ইন্ডিয়া শাসন করেছে এবং এই শাসনের পরিপ্রেক্ষিতে ইন্ডিয়া পৃথিবীর মধ্যে সবথেকে ধনী রাষ্ট্র হিসাবে পরিগণিত হয়েছিল! মুসলিমরা সততার সাথে শাসন করতো সেই জন্যই ইন্ডিয়ান হিন্দুরা মুসলিমদের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ করে নাই! ইন্ডিয়ান কিছু বড় বড় স্কলাররা বলেছে মুসলিমরা যদি ইচ্ছা করত তাহলে সব হিন্দু কে মেরে ফেলতে পারতে. আজকে মুসলিমদেরকে ইঁদুরের মত মারা হচ্ছে ইন্ডিয়াতে কাশ্মীর মারা হচ্ছে.
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ