Inqilab Logo

রোববার, ০১ আগস্ট ২০২১, ১৭ শ্রাবণ ১৪২৮, ২১ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

আক্রান্ত ও মৃত্যু যেন থামছেই না রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে

রাজশাহী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৫ জুন, ২০২১, ৩:০২ পিএম

মৃত্যু এবং আক্রান্ত যেন থামছেই না রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে। গত ২৪ ঘন্টায় আরও ১২জনের মৃত্যুর মধ্যদিয়ে চলতি মাসের গত ১৫ দিনে রামেক হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ১৪৮ জন। এর মধ্যে করোনার ‘নতুন হটস্পট’ রাজশাহীর ৫৬ জন ও চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৬৯ জন। বাকিরা নওগাঁ, নাটোর, পাবনাসহ অন্য জেলার।
হাসপাতালের পরিচালক বিগ্রেডিয়ার জেনারেল শামীম ইয়াজদানী জানান, মূলত: ঈদের পর থেকে এ হাসপাতালে করোনাভাইরাসের আক্রান্ত রোগি ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়তে থাকে। চলতি মাসের গত ১৫ দিনে ১ জুন সকাল ৬টা থেকে ১৫ জুন সকাল ৬টা পর্যন্ত এ হাসপাতালের করোনা ইউনিটে মারা গেছেন ১৪৮ জন। এর মধ্যে ৮৮ জনই মারা গেছেন করোনা শনাক্ত হওয়ার পর। বাকিরা উপসর্গ নিয়ে নমুনা পরীক্ষার আগেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান। তবে তাদের অধিকাংশই করোনাভাইরাসে আক্রান্ত।
তিনি জানান, গত ১৫ দিনের মধ্যে ১ জুন, সাতজন, ২ জুন সাতজন, ৩ জুন নয়জন, ৪ জুন ১৬ জন, ৫ জুন ৮ জন, ৬ জুন ছয়জন, ৭ জুন ১১ জন, ৮ জুন আটজন, ৯ জুন আটজন, ১০ জুন ১২ জন, ১১ জুন ১৫ জন, ১২ জুন ৪ জন, ১৩ জুন ১৩ জন, ১৪ জুন ১২ জন এবং সর্বশেষ ১৫ জুন ১২ জন মারা গেছেন।
পরিচালক জানান, গত ২৪ ঘন্টায় হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৫৮ জন। এর মধ্যে রাজশাহীর ৩৯, চাঁপাইনবাবগঞ্জের আট, নাটোরের চারজন, নওগাঁ পাঁচজন ও কুষ্টিয়ার দুইজন। একই সময় সুস্থ্য হয়েছে হাসপাতাল ছেড়েছেন ৪৩ জন।
তিনি বলেন, মঙ্গলবার সকাল ৬টা পর্যন্ত এ হাসপাতালের ২৭৩ বেডের বিপরিতে ভর্তি রয়েছেন ৩২৫ জন। অতিরিক্ত বেডের ব্যবস্থা করে ৫২জন রোগিকেও চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। এদের রাজশাহীর ১৮৯ জন, চাঁপাইনবাবগঞ্জের ৮২, নাটোরের ১৭, নওগাঁর ২৬, পাবনার ৪, কুষ্টিয়ার ৬ ও চুয়াডাঙ্গার ১ জন। এ হাসপাতালে বর্তমানে রোগি ভর্তির হার রাজশাহী ৫৮ দশমিক ১৬ শতাংশ এবং চাঁপাইনবাবগঞ্জের ২৫ দশমিক ২৮ শতাংশ।
গত তিন দিনে এ হাসপাতালে নতুন রোগি ভর্তি হয়েছে ১৪৪ জন। আর মারা গেছেন ৩৭ জন। সে হিসেবে বর্তমানে এ হাসপাতালে মৃত্যুর হার ২৫ দশমিক ৬০ শতাংশ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন