Inqilab Logo

ঢাকা, সোমবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৯ আশ্বিন ১৪২৫, ১৩ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

সম্মানী বাড়ছে বাংলাদেশ ক্রিকেটারদের

প্রকাশের সময় : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

বিশেষ সংবাদদাতা : বিপিএল থ্রি’তে বিদেশী ক্রিকেটারদের সাথে স্থানীয় ক্রিকেটারদের সম্মানীর অঙ্কের পার্থক্যটা ছিল অনেক। ওই আসরে ‘এ’ গ্রেডের বিদেশী ক্রিকেটাররা যেখানে পেয়েছেন ৭০ হাজার ডলার (বাংলাদেশী মুদ্রায় প্রায় ৫৬ লাখ টাকা), সেখানে সাকিব, তামীমরা পেয়েছেন প্লেয়ার্স ড্রাফটে ৩৫ লাখ টাকা। এ নিয়ে মিডিয়ায় কম সমালোচনা হয়নি। তবে আগামী ৪ নভেম্বর থেকে অনুষ্ঠেয় বিপিএল ফোর এ বিদেশী ক্রিকেটারদের সঙ্গে সম্মানীর অংকের এই ব্যবধান কমছে। এ তথ্য দিয়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব ডা.আই এইচ মল্লিকÑ‘বিদেশি খেলোয়াড়দের টাকাটা বেশি, স্থানীয় খেলোয়াড়দেরটা কম। আমরা এই ব্যবধান কমিয়ে আনার চেষ্টা করছি। এবার সেরা খেলোয়াড়দের টাকাটা রিভাইসড হতে পারে।’ আগামী ৩০ সেপ্টেম্বরে অনুষ্ঠেয় প্লেয়ার্স ড্রাফটের জন্য থাকছে না কোনো আইকন। তবে অংশগ্রহনকারী ৭ দলের জন্য প্লেয়ার্স ড্রাফটে সাত ক্রিকেটার থাকবেন ‘এ প্লাস’ ক্যাটাগরীতে। পুরোনো ৫টি দলের সবাই ২জন করে ‘এ’ গ্রেডের ক্রিকেটারকে অপরিহার্য কোটায় রাখতে পারবে বলেও সিদ্ধান্ত নিয়েছে বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিল।
নিরাপত্তার কারনে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়াম এবং চট্টগ্রামের জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়ামের বাইরে তৃতীয় কোন ভেন্যুতে এবারের বিপিএল। এমনটাই জানিয়েছেন বিপিএল গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিব। বিপিএল ফোর এ ২টি নুতন দল যুক্ত হয়েছে। শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগে বাদ দেয়া দেয়া হয়েছে সিলেট সুপার স্টারর্সকে। খুলনার ফ্র্যাঞ্চাইজি পেয়েছে জেমকন গ্রুপ। আর রাজশাহীর ফ্র্যাঞ্চাইজি পেয়েছে ম্যাঙ্গো এন্টারটেইনমেন্ট। এই দু’টি দলই ৪ বছরের জন্য চুক্তিবদ্ধ হয়েছে। ফ্র্যাঞ্চাইজিদের কারো কাছে এখন আর কোন বকেয়া নেই বলে মিডিয়াকে জানিয়েছেন গভর্নিং কাউন্সিলের সদস্য সচিবÑ‘শুধু সিলেট নয়, কোন দলের কাছে আমরা একটা টাকাও পাই না। সবাই সবকিছু ক্লিয়ার করে দিয়েছে। সিলেটের সঙ্গে শৃঙ্খলাজনিত কারণে তাদের বাতিল করা হয়েছে। গত বিপিএলে একটা ঘটনায় তাদেরকে আমরা শোকজ করেছিলাম। এরপর তাদের কাছে আমরা টাকা পেতাম। আমাদের কাছে ব্যাংক গ্যারান্টি ছিলো আমরা ওটা ভাঙ্গিয়ে নিয়েছে।’
এদিকে ৪ বছরের জন্য গতবার বিসিবি’র সঙ্গে চুক্তিবদ্ধ হওয়া টেলিভিশন সত্ত্ব প্রতিষ্ঠান চ্যানেল নাইনের পরিবর্তে অন্য কোন সম্প্রচার প্রতিষ্ঠানকে খুঁজলেও শেষ পর্যন্ত চ্যানেল নাইনকেই বিপিএল ফোর এর সম্প্রচার স্বত্ব দেয়া হয়েছে। তবে পরবর্তীতে টেন্ডার আহ্বান করে অন্য কোন আগ্রহী টেলিভিশন প্রতিষ্ঠানকে সত্ব দেয়ার কথা ভাবছে গভর্নিং কাউন্সিল। এমনটাই জানিয়েছেন ডা. আই এইচ মল্লিকÑ‘আমরা যেভাবে চাচ্ছি উনারা সেভাবে কাজ করবেন বলে কথা দিয়েছেন। ঈদের আগে ১০ কোটি টাকা পাওনা মিটিয়েছে চ্যানেল নাইন। পরের তিনটি আসরের জন্য টেন্ডারে যাব।’





 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।