Inqilab Logo

শুক্রবার, ০৬ আগস্ট ২০২১, ২২ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৬ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

সিলেটে করোনার ছোবলে একদিনে ৭ জনের মৃত্যু

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৬ জুন, ২০২১, ৪:৩৩ পিএম

প্রাণঘাতি করোনার ছোবলে সিলেটে গত একদিনে মৃত্যু হয়েছে আরও ৭ জনের। এরমধ্যে সিলেট ৫ জন ও আরও ২ জন রয়েছেন মৌলভীবাজারের। সেই সাথে আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছেন ৬৮ জন। এরমধ্যে ৩৩ জনই সিলেটের। আর একই সময়ে চিকিৎসায় সুস্থ হয়েছেন ৯২ জন। গত বছরের মার্চ থেকে এ বছরের ১৬ জুন পর্যন্ত ১৪ মাসে সিলেট বিভাগে করোনায় মৃত্যু হয়েছে ৪৪১ জনের। এরমধ্যে করোনায় আক্রান্ত হয়ে সবচেয়ে বেশী মারা গেছেন সিলেটে। করোনায় মৃত্যু হয়েছে কেবল সিলেটের ৩৬০ জনের। এছাড়া হবিগঞ্জে ১৮ জন, সুনামগঞ্জে ৩০ জন ও ৩৩ জন রয়েছেন মৌলভীবাজারের। আজ বুধবার (১৬ জুন) স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের সিলেট বিভাগীয় পরিচালক ডা. সুলতানা রাজিয়া স্বাক্ষরিত এক প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, গত ২৪ ঘন্টায় সিলেটের চারটি ল্যাবে নমুনা পরীক্ষায় করোনা আক্রান্ত সনাক্ত হয়েছে ৬৮ জনের। এর মধ্যে সিলেট ৩৩ জন, সুনামগঞ্জের ২ জন, হবিগঞ্জে ৫ জন ও ১২ জন মৌলভীবাজারে। সিলেট ওসমানী মেডিকেলে করোনা সনাক্ত হয়েছে আরও ১৬ জনের। নতুন এই ৬৮ জন সহ বিভাগে করোনা প্রমাণিত রোগীর সংখ্যা এখন দাঁড়িয়েছে ২৩ হাজার ৮৭৬ জনে। এরমধ্যে শুধুমাত্র সিলেট আক্রান্ত হয়েছেন ১৫ হাজার ৭৫৪ জন। এছাড়া সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৮৭৯ জন, হবিগঞ্জে ২ হাজার ৫৬৭ জন ও ২ হাজার ৬৭৬ জনের করোনা সনাক্ত হয়েছে মৌলভীবাজারের। গত ২৪ ঘন্টায় সুস্থ হয়েছেন ৯২ জন। এরমধ্যে সিলেট ৭৫ জন ও হবিগঞ্জের ১ জন, ১৬ জন রয়েছেনমৌলভীবাজারের। এ নিয়ে সুস্থ হওয়ার সংখ্যা দাঁড়ালো ২২ হাজার ৩৬১ জন। এর মধ্যে সিলেট ১৫ হাজার ১০২ জন। এছাড়া এখন পর্যন্ত সুনামগঞ্জে ২ হাজার ৭৮৫ জন, হবিগঞ্জে ২ হাজার ৯০ জন ও ২ হাজার ৩৮৪ জন সুস্থ হয়েছেন মৌলভীবাজারে। গত ২৪ ঘণ্টায় বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন ৮ জন করোনা আক্রান্ত রোগী। এরমধ্যে সিলেটের ৭ জন ও আরও ১ জন রয়েছেন মৌলভীবাজারের। সবিমিলিয়ে বিভাগের বিভিন্ন হাসপাতালে রয়েছেন ২১৪ জন চিকিৎসাধীন। এরমধ্যে সিলেট ২০৫ জন, সুনামগঞ্জে ১ জন, হবিগঞ্জে ২ জন, আরও ৬ জন মৌলভীবাজারে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা ভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন