Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সখিপুরে ধর্ষণের সময় লাথি মারায় ভাঙে ৪ দাঁত ছিঁড়ে ফেলে পেট, আদালতে স্বীকারোক্তি

সখিপুর (টাঙ্গাইল) উপজেলা সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৭ জুন, ২০২১, ৬:৪১ পিএম

ধর্ষণের সময় লাথি দেওয়ায় ক্ষিপ্ত হয়ে টাঙ্গাইলের সখিপুরের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারীর চারটি দাঁত ঘুসি দিয়ে ভেঙে ফেলে গ্রেফতার দিনা। এতেও ক্ষান্ত না হয়ে যৌনাঙ্গে হাত ঢুকিয়ে খামচে ধরে পেট এবং পায়ুপথ পর্যন্ত ছিড়ে ফেলা হয়। এছাড়া সারা শরীর কামড়ে জখম করা হয়।

গ্রেফতারকৃত দুই আসামি বুধবার (১৬ জুন) আদালতে জবানবন্দিতে এ তথ্য জানিয়েছেন। জবানবন্দি দেওয়ার পর সন্ধ্যায় তাদের কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

আদালতে জবানবন্দি দেওয়া দুইজন হলেন,টাঙ্গাইলের সখিপুরের বড়চালা গ্রামের প্রকাশ সরকারের ছেলে দিনা সরকার (৩০) ও মৃত নারায়ন সরকারের ছেলে মন্টু সরকার (৩২)। তাদের সোমবার গভীর রাতে গোয়েন্দা পুলিশ জেলার নাগরপুর ও মির্জাপুর উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করা হয়। পরে তাদের সখিপুর থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

টাঙ্গাইলের আদালত পরিদর্শক তানভীর আহমেদ জানান, বুধবার দিনা ও মন্টুকে আদালতে আনা হয়। তারা উভয়েই স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিতে সম্মত হন। পরে সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ফারজানা হাসনাত তাদের জবানবন্দি লিপিবদ্ধ করেন।

পুলিশ জানায়, তারা উভয়েই জবানবন্দিতে জানান, বৃহস্পতিবার ওই নারীর বাড়িতে গিয়ে নারীকে ডেকে তুলেন। পরে পাশের বনে নিয়ে ধর্ষণ করেন। আসামি দিনা সরকার জানান, ধর্ষণ শুরু করার পর ওই নারী তাকে লাথি দিয়ে ফেলে দেন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনি তার মুখে খুব জোড়ে ঘুসি মারেন। এতে ওই নারীর কয়েকটি দাঁত পড়ে যায়। পরে তারা নারীকে কামড়ে ক্ষতবিক্ষত করেন। এক পর্যায়ে নারীর যৌনাঙ্গে হাত ঢুকিয়ে দিয়ে খামচে ধরেন। ফলে পেট পর্যন্ত ফেটে যায়। এতে ধর্ষিত ওই নারী গুরুতর আহত হয়।

প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীর নারী ধর্ষণের শিকার হন। পরে শুক্রবার তাকে প্রথমে সখিপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে এবং পরে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার ওই নারী বাদী হয়ে সখিপুর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলায় গ্রেফতারকৃত দুইজন ছাড়াও শবদুল মিয়া (২৮) নামক আরো এক ব্যক্তি মোট তিনজনকে আসামি করা হয়। পুলিশ জানিয়েছে শবদুল মিয়াকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: টাঙ্গাইল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ