Inqilab Logo

রোববার, ২৩ জানুয়ারী ২০২২, ০৯ মাঘ ১৪২৮, ১৯ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

র‌্যাব-১১ নারায়ণগঞ্জ শহরের টান বাজার হতে ৪৭ লিটার বাংলা মদ সহ ৫০০ গ্রাম গাঁজা উদ্ধার॥ ৩ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০২১, ৫:৪০ পিএম

গোপনসূত্রে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে ১৭ জুন রাত ৮টায় র‌্যাব-১১, সিপিএসসি’র একটি আভিযানিক দল কর্তৃক নারায়ণগঞ্জ জেলার নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন টান বাজার সাকিনস্থ জনৈক নাহিদ দাস (৪০) এর বাড়ীর সামনে পাকা রাস্তার উপরে মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করে ৪৭ লিটার দেশীয় বাংলা মদ, ৫০০ গ্রাম গাঁজা ও মাদক বিক্রয়ের নগদ ৯,১৮১/- টাকা উদ্ধার করা হয় এবং ৩ জন মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো ১। বিকি চন্দ্র দাস (৩০), ২। শ্রী হিরা (২৫) ও ৩। শ্রী নাথ (২৫)।

গ্রেফতারকৃতদের’কে জিজ্ঞাসাবাদ ও প্রাথমিক অনুসন্ধানে জানা যায়, গ্রেফতারকৃত আসামীদের বাড়ী নারায়ণগঞ্জ জেলার নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন টান বাজার সিটি কলোনী এলাকায়। তারা দীর্ঘদিন ধরে আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর চোখকে ফাঁকি দিয়ে নারায়ণগঞ্জ শহর হতে নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য দেশীয় বাংলা মদ ও গাঁজা ক্রয় করে মাদক ব্যবসায়ীদের নিকট বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। গোপনসূত্রে প্রাপ্ত তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-১১, সিপিএসসি’র একটি আভিযানিক দল নারায়ণগঞ্জ জেলার নারায়ণগঞ্জ সদর মডেল থানাধীন টান বাজার এলাকায় বিশেষ অভিযান পরিচালনা করে ১৭ জুন ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ রাত ০৮.০০ ঘটিকার সময় উক্ত মাদক ব্যবসায়ীদেরকে আটক সহ ৪৭ লিটার দেশীয় বাংলা মদ, ৫০০ গ্রাম গাঁজা ও মাদক বিক্রয়ের নগদ ৯,১৮১/- টাকা জব্দ করা হয়। গ্রেফতারকৃত আসামীরা স্বীকার করে যে, তারা আর্থিকভাবে লাভবান হওয়ার জন্য পরস্পর যোগসাজশে দীর্ঘদিন যাবৎ নারায়ণগঞ্জ ও ঢাকার আশপাশের এলাকায় নিষিদ্ধ মাদকদ্রব্য দেশীয় বাংলা মদ ও গাঁজা বিক্রয় ও সরবরাহ করে আসছিল। নিষিদ্ধ মাদকের আখড়া বন্ধে র‌্যাবের অভিযান অব্যাহত থাকবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: গাঁজা

২২ জানুয়ারি, ২০২২
২২ জানুয়ারি, ২০২২
আমার এক নিকটাত্মীয় মদ-গাঁজা সেবন করত। স্বামী-স্ত্রী প্রায় সময়মই ঝগড়া হতো, স্বামী তার স্ত্রীর গায়ে অনেক সময় হাত তুলত। স্ত্রীও খুব বেশী একটা ছাড় দিত না। আবার স্ত্রীর বিরুদ্ধে অন্য পুরুষের সাথে দীর্ঘ দিন রাতে-বিরাতে গোপন ফোনালাপের অভিযোগ ছিল। তাদের দুই ছেলে আছে। স্বামী তার স্ত্রীর নামে ব্যাংক একাউন্টে ১৫-১৮ লাখ টাকার সম্পদ রেখেছিল। স্ত্রী বাপের বাড়ি গিয়ে সেগুলো হাত করে নেয় এবং নেশাখোর স্বামীর সংসার করবেনা বলে জানায়। এ অবস্থায় কয়েকটি ব্যর্থ আলোচনা বা বৈঠক হয়। প্রায় এক বছরের বেশী সময় পর স্ত্রী ওই স্বামীকে এক উকিলের মাধ্যমে ডাকযোগে ডিভোর্সলেটার পাঠায়। স্বামী বলে সে ওই লেটার রিসিভ ও সাইন করেনি। এর প্রায় এক বছর পর তার স্ত্রী ওই গোপন ফোনালাপের অভিযুক্ত ব্যক্তিকেই বিয়ে করে। প্রশ্ন হলো স্ত্রীর এ তালাক ও পরবর্তী বিয়ে ইসলামের বিধান মতে সঠিক ভাবে হয়েছে কি না? আর না হলে এখন করনীয় কি?

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ