Inqilab Logo

সোমবার, ১৭ জানুয়ারী ২০২২, ০৩ মাঘ ১৪২৮, ১৩ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

মামলা দায়েরে এনআইডি কাডের বাধ্যবাধকতায় উদ্বিগ্ন যুক্তরাজ্য প্রবাসীরা

সিলেট ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৮ জুন, ২০২১, ৭:৩৬ পিএম

এনআইডি বা জাতীয় পরিচয়পত্র ছাড়া মামলা করা যাবে না, হাইকোর্টের এমন সিদ্ধান্তে উদ্বিগ্ন যুক্তরাজ্য প্রবাসীরা। গত সোমবার (১৪ জুন) হাইকোর্টের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম ও বিচারপতি মো. মোস্তাফিজুর রহমানের সমন্বযয়ে গঠিত ভার্চ্যুয়াল হাইকোর্ট বেঞ্চ আদেশ দেন, থানায় বা আদালতে এখন থেকে মামলা বা অভিযোগ করতে গেলে বাদী বা অভিযোগকারীর জাতীয় পরিচয়পত্রের নম্বর উল্লেখ করতে হবে। প্রয়োজনে জাতীয় পরিচয়পত্রের ফটোকপি দিতে হবে। এমন সংবাদ প্রকাশের পর যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের কপালে পড়েছে চিন্তার ভাঁজ। গত বুধবার এন আর বি লন্ডন নামের সংগঠনের ব্যানারে এক প্রতীকী মানব বন্ধনের আয়োজন করেছেন যুক্তরাজ্য প্রবাসীরা, পূর্ব লন্ডনের আলতাব আলী পার্কে সংগঠনের আহবায়ক মানবাধিকার কর্মী ও সাংবাদিক আনসার আহামেদ উল্লার সভাপতিত্বে, আহাদ চৌধুরী বাবুর পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন, ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সাধারন সম্পাদক জামাল খান, লন্ডন বাংলা প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ আ স ম মাসুম, সাংবাদিক কামাল মেহেদী, আহাদ চৌধুরী বাবু, জুয়েল রাজ, হেফাজুল করীম রাকিব, শাহ মোস্তাফিজুর রহমান বেলাল, রেজাউল করিম মৃধা, হাসনাত চৌধুরী সহ আরো অনেকে। মানববন্ধনে একাত্মতা প্রকাশ করেন ভয়েস ফর জাষ্টিস ইউকে’র সাধারন সম্পাদক কে এম আবু তাহের চৌধুরী। মানববন্ধন থেকে বলা হয়েছে প্রবাসীদের দাবি দাওয়া সংক্রান্ত বিষয় নিয়ে হাইকমিশনে একটি স্মারকলিপি দেওয়া হবে।
সংগঠনের পক্ষ থেকে আনসার আহমদ উল্লাহ ও আহাদ চৌধুরী বাবু বলেন, যুক্তরাজ্য প্রবাসীদের দাবি জাতীয় পরিচয় পত্রের সাথে বাংলাদেশে অফিসিয়াল কাজে পাসপোর্ট অন্তর্ভূক্ত করার জন্য। এছাড়া প্রবাসীদের দীর্ঘদিনের দাবি জাতীয় পরিচয় পত্র দেওয়ার কার্যক্রম শুরু করার আহবান জানানো হয়।
সংশ্লিষ্টরা জানান, বাংলাদেশের বাস্তবতায় এই রুল জারি হলে এমন সিদ্ধান্তে সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে থাকা ১ কোটি ৬০ লাখের বেশী প্রবাসী বাংলাদেশীদের সম্পত্তি রক্ষা সহ নানা আইনী সহায়তায় বাড়বে জটিলতা। যুক্তরাজ্যে বসবাসরত ব্রিটিশ বাংলাদেশী নাগরিকদের বেশীরভাগই দ্বৈত নাগরিকত্ব নিয়ে বাংলাদেশের নাগরিকও। এরমধ্যে বেশীরভাগ প্রবাসী বাংলাদেশীদের ভোটার আইডি কার্ড বা জাতীয় পরিচয় পত্র নেই। সাধারণত ব্রিটিশ পাসপোর্টে বাংলাদেশে ভ্রমনের ক্ষেত্রে নো ভিসা সিল বা নো ভিসা স্টিকারই দ্বৈত নাগরিকত্বের প্রমান হিসাবে বিবেচিত হয়। ব্রিটিশ বাংলাদেশীদের অনেকেই বাংলাদেশে পৈত্রিকসূত্রে জমি বা বাসা বাড়ীর মালিক। অনেকে নিজেও বাংলাদেশে জমিজমা, বাসা বাড়ি করে থাকেন। অনেকে বাংলাদেশে গিয়ে নানা ধরনের ব্যবসা বানিজ্যে বিনিয়োগ করেছেন। একই সাথে আতœীয় স্বজনের সাথে জমিজমা নিয়ে মামলা চলছে বাংলাদেশে অনেকের। হাইকোর্টের এই সিদ্ধান্ত প্রবাসীদের বাংলাদেশে দেশে মামলা করার অধিকার হারাবেন। মঙ্গলবার যুক্তরাজ্যে বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করতে দেখা গেছে প্রবাসী বাংলাদেশিদের।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ