Inqilab Logo

শুক্রবার, ৩০ জুলাই ২০২১, ১৫ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৯ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী
শিরোনাম

এবার চিন্তা বাড়াচ্ছে পেরুর ল্যাম্বডা স্ট্রেন

সারা বিশ্বে ‘আধিপত্য’ বিস্তার করছে ডেল্টা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২০ জুন, ২০২১, ১২:০১ এএম

করোনাভাইরাসের নতুন একটি ভ্যারিয়্যান্টের উপস্থিতি নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (হু)। এটির নাম রাখা হয়েছে ‘ল্যাম্বডা’। ২০২০ সালের অগস্টে পেরুতে প্রথম চিহ্নিত হয় এটি। তার পর থেকে অন্তত ২৯টি দেশে ছড়িয়ে পড়েছে এই স্ট্রেন। হু একে জায়গা দিয়েছে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব ইনটেরেস্ট’ তালিকায়। তাদের বক্তব্য, ল্যাম্বডা স্ট্রেনকে এই মুহূর্তে পর্যবেক্ষণে রাখা জরুরি। খুব শিগগিরি হয়তো আলফা, বিটা, ডেল্টা, গামা-র মতো একেও জায়গা দিতে হবে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব কনসার্ন’ তালিকায়। হু-র সাপ্তাহিক বুলেটিনে বলা হয়েছে, ‘‘দক্ষিণ আমেরিকা জুড়ে ল্যাম্বডা স্ট্রেনের ব্যাপক ভাবে ছড়িয়ে পড়া দেখেই একে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব ইনটেরেস্ট’ ঘোষণা করার সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।’’ করোনাভাইরাসের স্ট্রেনগুলোকে দু’টি ভাগে ভাগ করা হয়েছে। একটিতে রাখা হয়েছে সেই সব স্ট্রেনকে, যেগুলি মহামারির মতো সমস্যা তৈরি করছে। অন্য ভাগে থাকা স্ট্রেনগুলো নিরীহ, অর্থাৎ ভয়ের কারণ নেই। হু জানিয়েছে, ল্যাম্বডা স্ট্রেনটিকে তারা দীর্ঘ সময় ধরে পর্যবেক্ষণ করে দেখেছে, এটির সংক্রমণ ক্ষমতা ক্রমেই বেড়েছে। অ্যান্টিবডির ক্ষমতাও নষ্ট করে দিচ্ছে এটি। এ পর্যন্ত ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব কনসার্ন’ তালিকায় থাকা স্ট্রেনগুলোই খবরের শিরোনামে উঠে এসেছে। যেমন ব্রিটেনে চিহ্নিত আলফা স্ট্রেন, ব্রাজিলের গামা স্ট্রেন, ভারতে চিহ্নিত ডেল্টা স্ট্রেন। এর মধ্যে ডেল্টা স্ট্রেনকে ১১ মে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব ইনটেরেস্ট’ তালিকাভ‚ক্ত করেছিল হু। কিন্তু তার পরেই এর দ্রুত গতিতে ছড়িয়ে পড়া ও মারণ ক্ষমতা দেখে এটিকে ‘ভ্যারিয়্যান্ট অব কনসার্ন’ তালিকায় ঢোকানো হয়। ল্যাম্বডাও তেমনই খেল দেখাবে নাকি, তা নিয়ে উদ্বিগ্ন হু। করোনাভাইরাসের লাগাতার ভোলবদল নিয়ে যারপরনাই চিন্তিত বিশেষজ্ঞেরা। এই মুহূর্তে করোনা-যুদ্ধ রুখতে হাতে একমাত্র অস্ত্র প্রতিষেধক। কিন্তু ভাইরাসের ক্রমাগত মিউটেশন দেখে বিশেষজ্ঞদের চিন্তা, এর পরে যদি ভ্যাকসিনও কাজ না-দেয়! কারণ কিছু ক্ষেত্রে এমনই ভোল বদলাচ্ছে ভাইরাস, যে নতুন স্ট্রেন কার্যত নতুন ভাইরাসের মতো আচরণ করছে। এই মুহ‚র্তে লক্ষ্য, তৃতীয় ঢেউ আছড়ে পড়ার আগে যত বেশি সম্ভব টিকাকরণ সেরে ফেলা। তার আগেও অবশ্য ভাইরাসের বিক্ষিপ্ত হামলার ঘটনা ঘটছেই। যেমন কাবুল। বেশ কিছু দিন হলো কাবুলের আমেরিকান দ‚তাবাসের পরিষেবা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। এর মধ্যে দ‚তাবাস কর্তৃপক্ষ আজ ঘোষণা করলেন, ১১৪ জন কর্মী সংক্রমিত হয়েছেন। মৃত্যু হয়েছে এক জনের। সেনা হাসপাতালের আইসিইউ উপচে যাচ্ছে। জায়গা হচ্ছে না রোগীর। দূতাবাসের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, সংক্রমিতদের বেশির ভাগেরই টিকাকরণ হয়নি। পরিস্থিতি সামলাতে একটি আপৎকালীন ওয়ার্ড চালু করা হয়েছে। সেখানেই রোগীদের অক্সিজেন দেয়া হচ্ছে। চীনা সংস্থা সিনোফার্মের কোভিড টিকা দেয়া হচ্ছে আফগানিস্তানে। এখন পর্যন্ত দেশের ১ শতাংশ নাগরিকেরও টিকাকরণ সম্পূর্ণ হয়নি। রাশিয়াতেও নতুন করে সংক্রমণ বাড়তে শুরু করেছে। শুক্রবার এক দিনে ১৭ হাজার মানুষ নতুন করে আক্রান্ত হয়েছেন। মস্কোর এক জায়গায় ইউরো কাপ দেখানো হচ্ছিল। রাতারাতি নিষিদ্ধ করা হয়েছে সেটি। অপরদিকে, ভারতে পাওয়া করোনাভাইরাসের অতি সংক্রামক ডেল্টা ধরনটি এখন সারা বিশ্বে ‘আধিপত্য’ বিস্তার করছে বলে জানিয়েছে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা- ডব্লিউএইচও। শুক্রবার ডব্লিউএইচওর প্রধান বিজ্ঞানী সৌম্য স্বামীনাথন এক ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানিয়ে বলেন, “সংক্রমণ ঘটানোর বাড়তি সক্ষমতার কারণে সারা বিশ্বেই ডেল্টা ধরনটি বেশ তাড়াতাড়ি আধিপত্য বিস্তার করে ফেলছে।” অন্য অনেক ভাইরাসের মত নতুন করোনাভাইরাসও ক্রমাত রূপ বদল করে চলছে। এর মধ্যে গত বছর ভারতে এর যে পরিবর্তিত একটি রূপ শনাক্ত হয়েছে, তা নাম পেয়েছে ডেল্টা। এই ধরন বা ভ্যারিয়েন্টটি (বি.১.৬১৭.২) অতি সংক্রামক হওয়ায় এর আগেই একে ‘বিশ্বের উদ্বেগ’ হিসেবে চিহ্নিত করেছিল বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা। সংক্রমণের দ্বিতীয় ঢেউয়ে ভারতে রেকর্ড রোগী শনাক্ত ও মৃত্যুর জন্য এই ডেল্টা ধরনটিকেই দায়ী করা হচ্ছে। বাংলাদেশেও এ ধরনটির দাপটের মধ্যে আক্রান্ত ও মৃত্যুর সংখ্যা বাড়ছে। ঢাকায় কোভিড-১৯ রোগীদের দুই-তৃতীয়াংশের দেহেই ডেল্টা ধরন পেয়েছে আইসিডিডিআর,বি। গত মে মাসের শেষ এবং জুন মাসের প্রথম সপ্তাহে ঢাকায় করোনাভাইরাস আক্রান্ত ৬০ জনের নমুনার জেনোম সিকোয়েন্স বিশ্লেষণ করে এই চিত্র পাওয়া যায়। এর আগে ভয় ধরিয়েছিল যুক্তরাজ্যে পাওয়া করোনাভাইরাসের আলফা ধরন (বি.১.১৭)। এ সপ্তাহেই যুক্তরাজ্যে করোনাভাইরাসের এই ধরন দুটি বিশ্লেষণ করে পাবলিক হেলথ ইংল্যান্ড (পিএইচই) জানিয়েছে, ডেল্টা ধরনটি আলফার চেয়ে গৃহস্থালিতে ৬৪ শতাংশ বেশি দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে। এবিপি, রয়টার্স।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ