Inqilab Logo

ঢাকা বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১৩ শ্রাবণ ১৪২৮, ১৭ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

নতুন মাইলফলকে সাবিনা

স্পোর্টস রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২০ জুন, ২০২১, ৬:৪৪ পিএম

বাংলাদেশের নারী ফুটবলে গোলমেশিন খ্যাত জাতীয় দলের অধিনায়ক সাবিনা খাতুন। ঘরোয়া ফুটবলে একের পর এক রেকর্ড গড়েই চলেছেন তিনি। বাংলাদেশের প্রথম নারী ফুটবলার হিসেবে সব ধরনের প্রতিযোগিতা মিলিয়ে গত বছরের নভেম্বরে গড়েছেন ২৫০ গোলের অনন্য রেকর্ড। এবার আরেক রেকর্ডে নাম লিখিয়ে নতুন মাইলফলকে পৌঁছালেন তিনি।

রোববার দুপুরে কমলাপুরস্থ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে নারী প্রিমিয়ার লিগে সদ্যপুষ্করণী স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে হ্যাটট্রিক করেছেন সাবিনা। আর এই হ্যাটট্রিক করেই দেশের প্রথম মহিলা ফুটবলার হিসেবে প্রিমিয়ার লিগে গোলের সেঞ্চুরি করলেন তিনি। বসুন্ধরা কিংসের এই তারকা ফরোয়ার্ড রোববার সদ্যপুষ্করণী স্পোর্টিং ক্লাবের বিপক্ষে ম্যাচ শুরু করেছিলেন ৯৮ গোল নিয়ে। ম্যাচের প্রথমার্ধে দুই গোল করে শততম গোলের চূড়ায় বসেন সাবিনা। দ্বিতীয়ার্ধে আরেক গোলের মাধ্যমে হ্যাটট্রিক পূর্ণ করলে তার গোল সংখ্যা দাঁড়ায় ১০১। নারী প্রিমিয়ার লিগে মাত্র চার মৌসুমেই গোলের সেঞ্চুরি করে অনন্য রেকর্ডটি গড়েন সাবিনা। ২০১১ সালের আসরে শেখ জামাল ধানমন্ডি ক্লাবের হয়ে ২৫ গোল করে প্রিমিয়ার লিগে যাত্রা শুরু করেন তিনি। এরপর ২০১৩ সালে মোহামেডান স্পোর্টিং ক্লাবের পক্ষে তিনি করেন ২৮ গোল।

গোল করার ধারাবাহিকতা ধরে রেখে প্রিমিয়ার লিগের গত আসরে বসুন্ধরা কিংসের হয়ে সাবিনা করেন ৩৫ গোল। আর এবার চলতি লিগে এখন পর্যন্ত ১৩ গোল করে নিজের গোল সংখ্যাকে ১০১ তে নিয়ে যান তিনি। সাবিনা এ বিরল রেকর্ডটি গড়ার সময় জাতীয় নারী ফুটবল দলের প্রধান কোচ গোলাম রাব্বানি ছোটন মাঠেই ছিলেন। তখন তিনি সাইডলাইনের বাইরে দাঁড়িয়ে খেলা দেখছিলেন।

সাবিনার গোলসেঞ্চুরি রেকর্ডের পরই তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়ায় ছোটন বলেন, ‘সাবিনা সবসময়ই আকর্ষণীয় খেলোয়াড়। খুবই পরিশ্রমী ও খেলার প্রতি নিবেদিত প্রাণ, খুবই মনযোগী। এ কীর্তি অনেক বড় অর্জন। আশা করছি সাবিনা দেশের ফুটবলকে আরও এগিয়ে নেবে এবং নিজের রেকর্ড সমৃদ্ধ করবে।’



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বাংলাদেশের নারী ফুটবল
আরও পড়ুন