Inqilab Logo

মঙ্গলবার, ৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৪ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

বিএনপি নেতা খোকার গুলশানের বাড়ি ও না’গঞ্জের দেড়শ’ বিঘা জমি বাজেয়াপ্ত

প্রকাশের সময় : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৬, ১২:০০ এএম

স্টাফ রিপোর্টার : ঢাকার সিটি করপোরেশনের সাবেক মেয়র, বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকার মালিকানাধীন রাজধানীর গুলশানের ছয়তলা বাড়ি বাজেয়াপ্ত করছে সরকার।
গত বুধবার ঢাকার গুলশানে ছয়তলা ভবন বাজেয়াপ্ত করে নোটিশ ঝুলিয়ে দেয়া হয়। এদিকে গতকাল বৃহস্পতিবার বিএনপির এই নেতার নারায়ণগঞ্জের ৫০ একর  (দেড়শ’ বিঘা) জমিও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। এছাড়াও গাজীপুর অবস্থিত সম্পদও বাজেয়াপ্ত করার প্রক্রিয়া চলছে। ক্ষমতার অপব্যবহার ও নিয়মবহির্ভূতভাবে রাজধানীর ১০টি মার্কেটের ১৩৮টি দোকান বরাদ্দ দেয়ার অভিযোগে সাদেক হোসেনের বিরুদ্ধে আরেকটি মামলা দায়ের করেছে দুদক। গত ৫ মে করা এ মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, একতরফাভাবে রায় প্রদান করে এসব বাড়ি ও জমি বাজেয়াপ্ত করার ঘটনাকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসার বহিঃপ্রকাশ বলে অভিযোগ করছে বিএনপি
ঢাকার গুলশান ২ নম্বর সেক্টরের ৭২ নম্বর সড়কের ৯ নম্বর হোল্ডিংয়ের ৫ কাঠা জমি এবং তার ওপর নির্মিত ছয়তলা ভবনে ঢাকার জেলা প্রশাসক নোটিশ ঝুলিয়ে দেন। ওই বাড়ির দাম আদালত ২ কোটি ৪৭ লাখ ৬০ হাজার টাকা নির্ধারণ করেছিলেন। দেশের কোনো রাজনীতিকের বাড়ি ও সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার মতো পদক্ষেপ বিরল।
সাবেক মেয়রের বিরুদ্ধে দুদকের মামলার রায়ে ১০ কোটি ৫ লাখ ২১ হাজার ৮৩২ টাকা মূল্যের স্থাবর-অস্থাবর সম্পত্তি রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল। এর মধ্যে মেসার্স বুড়িগঙ্গা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের নামে গাজীপুরের কালিয়াকৈর উপজেলার বিভিন্ন মৌজায় ২৭ খ- কৃষি জমি, নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার বিভিন্ন মৌজায় ৩৪ খ- কৃষি জমিসহ মোট ৬১টি দলিলে ১৩৩ দশমিক ৫৯৫২ একর জমি রয়েছে। এসব জমির চার মালিকের মধ্যে খোকার অংশ হিসেবে ৭ কোটি ৩৪ লাখ ৪৮ হাজার টাকা মূল্য ধরা হয়েছে ১৩৩ একর জমির দাম হিসেবে। এ ছাড়া বুড়িগঙ্গা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের নামে হাবিব ব্যাংকে জমা করা টাকা থেকে ২৩ লাখ ১২ হাজার ৯৭৩ টাকা নিয়ে মোট ১০ কোটি ৫ লাখ ২১ হাজার ৮৩২ টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেন আদালত। তাঁর আইনজীবী মহসীন মিয়া সাংবাদিকদের জানিয়েছেন, জজকোর্টে তাঁরা ন্যায়বিচার পাননি।
গত বছরের ২০ অক্টোবর গোপন ও অবৈধ সম্পদ অর্জনের মামলায় সাদেক হোসেনকে ১৩ বছরের কারাদ- দেন আদালত। তিনি অবৈধভাবে ১০ কোটি ৫ লাখ ২১ হাজার ৮৩২ টাকার সম্পদের মালিক হয়েছেন ঘোষণা করে ওই সম্পদ রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করার নির্দেশ দেয়া হয়েছিল রায়ে। সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময় দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক) রমনা থানায় এ মামলা করে।
খোকার ৫০ একর জমি বাজেয়াপ্ত
রূপগঞ্জ (নারায়ণগঞ্জ) উপজেলা সংবাদদাতা : ঢাকার সাবেক মেয়র, মন্ত্রী ও বিএনপির নেতা সাদেক হোসেন খোকার মালিকানাধীন নারায়ণগঞ্জের রূপগঞ্জ উপজেলার কর্ণগোপ অবিস্থত বুড়িগঙ্গা ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে থাকা ৫০ একর ৮৯ শতাংশ বাজেয়াপ্ত করেছে জেলা প্রশাসন। আদালতের নির্দেশে জেলা প্রশাসন ১৫ সেপ্টেম্বর রূপগঞ্জ উপজেলার গোলাকান্দাইল, কর্ণগোপ ও তেৎলাবো মৌজায় ওই জমি সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার নারায়ণগঞ্জের জেলা প্রশাসক রাব্বী মিয়া জানান, দুদকের দায়ের করা দুর্নীতির মামলায় সাদেক হোসেন খোকার মালিকানায় থাকা রূপগঞ্জ উপজেলার সাফকবলা দলিলমূলে কেনা ৫০ দশমিক ৮৯০২ একর কৃষি খাস জমি রাষ্ট্রের অনুকূলে বাজেয়াপ্ত করতে আদালতের আদেশের অনুলিপি পায় জেলা প্রশাসন। এ পরিপ্রেক্ষিতে চলতি বছরের ২২ আগস্ট উপজেলার গোলাকান্দাইল মৌজায় ৩ দশমিক ০৯৭৫ একর, কর্ণগোপ মৌজায় ৬ দশমিক ১৫৭২ একর ও তেৎলাবো মৌজায় ৪১ দশমিক ৬৩৫৫ একর কৃষিজমি সরকারের দখল ও নিয়ন্ত্রণে নিয়ে লাল পতাকা টাঙানো হয় এবং সাইনবোর্ড লাগিয়ে দেয়া হয়েছে। ১৫ সেপ্টেম্বর ওই জমি সরকারি খাস খতিয়ানভুক্ত করা হয়েছে। সেখানে সরকারি জমির নিরাপত্তায় ২০ জন আনসার সদস্য মোতায়েনের জন্য আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষাবাহিনীর মহাপরিচালককে চিঠি দেয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বিএনপি নেতা খোকার গুলশানের বাড়ি ও না’গঞ্জের দেড়শ’ বিঘা জমি বাজেয়াপ্ত
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ