Inqilab Logo

রোববার, ২৬ জুন ২০২২, ১২ আষাঢ় ১৪২৯, ২৫ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

ইসকন জঙ্গি তৎপরতায় লিপ্ত : চট্টগ্রামে প্রবর্তক সংঘের সংবাদ সম্মেলন

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০২১, ১২:৩০ পিএম | আপডেট : ৩:৪০ পিএম, ২৬ জুন, ২০২১

ইসকনের বিরুদ্ধে আবারো সন্ত্রাসী কর্মকা-ের অভিযোগ করেছে প্রবর্তক সংঘ। সংঘের নেতারা বলেন, গেরুয়া বেশধারী ইসকন নামধারীরা পেশী শক্তি ব্যবহার করে প্রবর্তকের জমি দখল করছে। তারা জঙ্গিবাদি তৎপরতা সম্প্রসারণ করতে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের মন্দিরে জড়ো করছে। ইসকন নামধারী এসব জঙ্গিরা বড় ধরনের নাশকতার চক্রান্ত করছে। তারা এই আসুরিক শক্তির কড়াল গ্রাস থেকে প্রবর্তক সংঘকে রক্ষায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

তবে ইসকনের পক্ষ থেকে এসব অভিযোগ অস্বীকার করে বলা হয়েছে, ইসকন প্রবর্তকের কোন জমি দখল করেনি। চুক্তি অনুযায়ী তারা মন্দির নির্মাণ করেছে। খুব শিগগির ইসকন তাদের অবস্থান তুলে ধরবে বলে জানান ইসকনের এক কর্মকর্তা।
শনিবার চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের বঙ্গবন্ধু হলে এক সংবাদ সম্মেলনে প্রবর্তক সংঘের নেতারা ইসকনের বিরুদ্ধে অর্থপাচারেরও অভিযোগ করেন। এতে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংঘের সাধারণ সম্পাদক তিনকড়ি চক্রবর্তী। তিনি বলেন, ইসকনকে প্রবর্তক সংঘ মন্দির প্রতিষ্ঠার জন্য জমি দান করে। সেখানে মন্দির তৈরী করে তা পরিচালনা করবে ইসকন। কিন্তু এখন তারা চুক্তির সব শর্ত ভঙ্গ করে প্রবর্তক সংঘের জমি দখলসহ সন্ত্রাসী এবং জঙ্গি তৎপরতায় লিপ্ত হয়েছে। ইসকন নামীয় জঙ্গিদের ক্রমবর্ধমান ভূমি আগ্রাসন চলছে। তারা প্রবর্তক মন্দিরের নাম ব্যবহার করে ধর্মপ্রাণ ভক্তদের কাছ থেকে অনুদান সংগ্রহ করে অন্যত্র পাচার করছে।
তিনি বলেন, তারা মন্দিরে বহিরাগত সন্ত্রাসীদের জড়ো করে তাদের জঙ্গি কর্মকা- সম্প্রসারণ করার চেষ্টা করছে। ইসকন জঙ্গিরা নিজেরা বড় ধরনের কোন নাশকতামূলক ঘটনা ঘটিয়ে তা আমাদের নামে চালিয়ে দেওয়ার চক্রান্ত করছে বলেও আমরা জানতে পেরেছি। এ বিষয়ে ইসকনের বিরুদ্ধে পাঁচলাইশ থানায় জিডি হয়েছে বলেও জানান তিনি।
তিনকড়ি চক্রবর্তী ইসকনের বিরুদ্ধে বিদেশে অর্থপাচার এবং মন্দিরের নামে কর রেয়াতে পাথর, কাঠসহ মূল্যবান নির্মাণ সামগ্রী আমদানি করে অন্যত্র বিক্রি করে দেওয়ার অভিযোগ তুলে এসব ঘটনা তদন্তের দাবি জানান।
তিনি বলেন, সনাতন ধর্মে জঙ্গিবাদের কোন স্থান নেই। এরা ধর্মকে কলংকিত করেছে। আমরা আগেই বলেছি এরা সাধুবেশে সন্ত্রাসী। ইসকনের সাথে প্রবর্তক সংঘের করা চুক্তি বাতিলের সকল আইনগত প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমরা চুক্তি বাতিল করবো। সংবাদ সম্মেলনে প্রবর্তক সংঘের সভাপতি অ্যাডভোকেট সুভাষ চন্দ্র লালাসহ সংঘের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।



 

Show all comments
  • Shohag Al-Farooq ২৬ জুন, ২০২১, ২:০৭ পিএম says : 0
    ইসকন বাংলাদেশের ধর্মীয় সম্প্রতির পথে অন্তরায়।
    Total Reply(0) Reply
  • Ahsan Habib Raju ২৬ জুন, ২০২১, ২:০৮ পিএম says : 0
    ইসকনকে বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষণা করা হোক
    Total Reply(0) Reply
  • মুনির আল মাহদি ২৬ জুন, ২০২১, ২:০৮ পিএম says : 0
    ইস্কন সংগঠন একটি ১০০% জঙ্গি সংগঠন।
    Total Reply(0) Reply
  • সাইফুল ইসলাম ২৬ জুন, ২০২১, ২:০৯ পিএম says : 0
    একেবারেই সঠিক কথা।
    Total Reply(0) Reply
  • H M Saifi Adnan ২৬ জুন, ২০২১, ২:০৯ পিএম says : 0
    ইস্কনকে বাংলাদেশ থেকে তাড়াতে হবে
    Total Reply(0) Reply
  • Harun or roshid ২৬ জুন, ২০২১, ২:১২ পিএম says : 0
    ইসকন একটি হিন্দু উগ্রবাদী জংগী সংগঠন। এই সংগঠন হিন্দুদের যেমন ক্ষতিগ্রস্ত করবে,সাথে অন্য ধর্মের লোকের ও ক্ষতি করেছে।তাই সংগঠন বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ঘোষনা করা হউক।
    Total Reply(0) Reply
  • Habib ২৬ জুন, ২০২১, ২:১৩ পিএম says : 0
    ইসকন কে জঙ্গি গোষ্ঠীর তালিকা ভুক্ত করে কঠোর ব্যবস্থা গ্রহন করা হোক।
    Total Reply(0) Reply
  • Kader sheikh ২৬ জুন, ২০২১, ২:১৪ পিএম says : 0
    We fully support our hindu brothers and sisters , but not iskon, its tainting and dividing bengalis
    Total Reply(0) Reply
  • Selim ২৬ জুন, ২০২১, ৭:১৮ পিএম says : 0
    Taderk tarate hbe
    Total Reply(0) Reply
  • Abu Nayeem ২৬ জুন, ২০২১, ৮:৩০ পিএম says : 0
    Ishkon is a terrorist party.
    Total Reply(0) Reply
  • swatantra gouranga das ২৬ জুন, ২০২১, ৮:৪২ পিএম says : 0
    প্রবর্তক সংঘের সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে ইসকনের বক্তব্য চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে প্রবর্তক সংঘ কর্তৃক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের ব্যাপারে গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছে আন্তর্জাতিক কৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘ (ইসকন)। শনিবার (২৬ জুন) ইসকন প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের অধ্যক্ষ শ্রীপাদ লীলারাজ গৌর দাস ব্রহ্মচারী স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, ইসকন সম্পর্কে প্রবর্তক সংঘের দেয়া বক্তব্য অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। ১৯৩৫ সালে প্রতিষ্ঠিত শ্রীকৃষ্ণ মন্দির ও মন্দিরের সেবা পূজায় আত্মোৎসর্গিকৃত সাধু সন্ন্যাসীদের আশ্রম বাণিজ্যিক স্বার্থে ব্যবহার করতে না পেরে তারা ইসকনের নিরাীহ সাধুদের নামে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য পরিবেশন করে ধর্মপ্রাণ মানুষদের বিভ্রান্ত করার অপপ্রয়াস করছেন। ইসকন শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের বিগ্রহের নির্দিষ্ট ভূমির বাইরে প্রবর্তক সংঘের ভূমি দখল করেনি। বরং সংঘের কতিপয় অর্থলোভী ব্যক্তি একের পর এক সাধুদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। ইসকন সংস্থার সদস্যগণ সবসময় দেশের আইন,আদালত, সংবিধান ও সার্বভৌমত্বের প্রতি পুর্ণ অনুগত এবং রাষ্ট্র কর্তৃক অনুমোদিত অডিট ফার্ম কর্তৃক সমস্ত আর্থিক হিসাব নিকাশ নিয়মিতভাবে নিরীক্ষা করা হয়। মন্দিরের জন্য দানীয় মার্বেল পাথর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহানুভবতায় যেহেতু সম্পূর্ণ করমুক্ত সুবিধা পেয়েছে, সেহেতু জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্দেশনাক্রমে চট্টগ্রামের মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিযুক্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কর্তৃক মার্বেল পাথরের শতভাগ ব্যবহার হয়েছে মর্মে সত্যায়িত হয়েছে। বর্তমানে ইসকন শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরটি চট্টগ্রাম তথা সারা বাংলাদেশের সনাতনী সমাজের তীর্থক্ষেত্র হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। প্রতিদিন হাজার হাজার সনাতনী ধর্মপ্রাণ ভক্তবৃন্দ মন্দিরে এসে পূজা অর্চনা করছে। এসব দেখে ঈর্ষান্বিত হয়ে মন্দিরের আধ্যাত্মিক পরিবেশ বিনষ্ট করে সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য ইতিমধ্যে মন্দিরের বৈধ গ্যাস ও বিদ্যুৎ এবং পানি সরবরাহ ব্যবস্থা বন্ধ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। আমরা আশা করব অচিরেই তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে এবং স্বধর্ম ও স্বজাতি ধ্বংসের মত হীন চেষ্টা থেকে নিবৃত্ত হওয়ার জন্য ভগবানের কাছে প্রার্থনা করছি। স্বাক্ষরিত শ্রীপাদ লীলারাজ গৌর দাস ব্রহ্মচারী অধ্যক্ষ,ইসকন প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দির সংবাদ প্রেরক স্বতন্ত্র গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারী
    Total Reply(0) Reply
  • Md.Abbas Uddin ২৭ জুন, ২০২১, ১২:০৪ এএম says : 0
    বাংলাদেশের ৯৯% ঝামেলা তৈরি করে ইসকন। এবং ইসকন ভারতীয় হস্তক্ষেপে পরিচালিত হয়ে থাকে।
    Total Reply(0) Reply
  • SK.ABDUL Malek MALEK ২৭ জুন, ২০২১, ১০:০৩ এএম says : 1
    আন্তর্জাতিক ভাবে ইসকন সনাতনী সন্ত্রাসী।
    Total Reply(0) Reply
  • অর্নব কৃষ্ণ ২৭ জুন, ২০২১, ৩:৪৫ পিএম says : 0
    প্রবর্তক সংঘের সংবাদ সম্মেলনের বিষয়ে ইসকনের বক্তব্য চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবে প্রবর্তক সংঘ কর্তৃক আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনের ব্যাপারে গণমাধ্যমে বিবৃতি দিয়েছে আন্তর্জাতিক কৃষ্ণ ভাবনামৃত সংঘ (ইসকন)। শনিবার (২৬ জুন) ইসকন প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের অধ্যক্ষ শ্রীপাদ লীলারাজ গৌর দাস ব্রহ্মচারী স্বাক্ষরিত বিবৃতিতে বলা হয়, ইসকন সম্পর্কে প্রবর্তক সংঘের দেয়া বক্তব্য অত্যন্ত দুর্ভাগ্যজনক। ১৯৩৫ সালে প্রতিষ্ঠিত শ্রীকৃষ্ণ মন্দির ও মন্দিরের সেবা পূজায় আত্মোৎসর্গিকৃত সাধু সন্ন্যাসীদের আশ্রম বাণিজ্যিক স্বার্থে ব্যবহার করতে না পেরে তারা ইসকনের নিরাীহ সাধুদের নামে মিথ্যা ও বানোয়াট তথ্য পরিবেশন করে ধর্মপ্রাণ মানুষদের বিভ্রান্ত করার অপপ্রয়াস করছেন। ইসকন শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরের বিগ্রহের নির্দিষ্ট ভূমির বাইরে প্রবর্তক সংঘের ভূমি দখল করেনি। বরং সংঘের কতিপয় অর্থলোভী ব্যক্তি একের পর এক সাধুদেরকে মিথ্যা মামলা দিয়ে এক নৈরাজ্যকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করেছে। ইসকন সংস্থার সদস্যগণ সবসময় দেশের আইন,আদালত, সংবিধান ও সার্বভৌমত্বের প্রতি পুর্ণ অনুগত এবং রাষ্ট্র কর্তৃক অনুমোদিত অডিট ফার্ম কর্তৃক সমস্ত আর্থিক হিসাব নিকাশ নিয়মিতভাবে নিরীক্ষা করা হয়। মন্দিরের জন্য দানীয় মার্বেল পাথর গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের মহানুভবতায় যেহেতু সম্পূর্ণ করমুক্ত সুবিধা পেয়েছে, সেহেতু জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের নির্দেশনাক্রমে চট্টগ্রামের মাননীয় জেলা প্রশাসক মহোদয়ের নিযুক্ত নির্বাহী ম্যাজিষ্ট্রেট কর্তৃক মার্বেল পাথরের শতভাগ ব্যবহার হয়েছে মর্মে সত্যায়িত হয়েছে। বর্তমানে ইসকন শ্রীকৃষ্ণ মন্দিরটি চট্টগ্রাম তথা সারা বাংলাদেশের সনাতনী সমাজের তীর্থক্ষেত্র হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। প্রতিদিন হাজার হাজার সনাতনী ধর্মপ্রাণ ভক্তবৃন্দ মন্দিরে এসে পূজা অর্চনা করছে। এসব দেখে ঈর্ষান্বিত হয়ে মন্দিরের আধ্যাত্মিক পরিবেশ বিনষ্ট করে সামাজিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টির জন্য ইতিমধ্যে মন্দিরের বৈধ গ্যাস ও বিদ্যুৎ এবং পানি সরবরাহ ব্যবস্থা বন্ধ করার অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। আমরা আশা করব অচিরেই তাদের শুভ বুদ্ধির উদয় হবে এবং স্বধর্ম ও স্বজাতি ধ্বংসের মত হীন চেষ্টা থেকে নিবৃত্ত হওয়ার জন্য ভগবানের কাছে প্রার্থনা করছি। স্বাক্ষরিত শ্রীপাদ লীলারাজ গৌর দাস ব্রহ্মচারী অধ্যক্ষ,ইসকন প্রবর্তক শ্রীকৃষ্ণ মন্দির সংবাদ প্রেরক স্বতন্ত্র গৌরাঙ্গ দাস ব্রহ্মচারী
    Total Reply(0) Reply
  • ইঞ্জিনিয়ার মানিক কে, ভট্টাচার্য্য ২৮ জুন, ২০২১, ৩:৫৯ এএম says : 0
    হে জগৎবিচ্ছিন্ন,নেতৃত্বহীন,অসহায় বাংগালী হিন্দু সমাজ তোমরা আর নিজের পায়ে কুড়াল মাইরো না। ঘাতে আরও আঘাত লাগবে। বাচাবার কেউ নাই!! মার খাচ্ছ, আরও কঠিন মার খাবে। নিশ্চিন্ন হয়ে যাবে।
    Total Reply(0) Reply
  • P. C. Saha ২৯ জুন, ২০২১, ৩:০৪ পিএম says : 0
    প্রবর্তক সংঘ ইসকনকে জঙ্গি সংগঠন বলেছেন, যাহা অত্যন্ত দুঃখজনক এবং নিন্দনীয়। জমি নিয়ে বিরোধ থাকলে সংবাদ সম্মেলন কেন, আদালতে কেন যাচ্ছেন না? নিজেদের অবস্থানকে বড় করতে কোন ব্যক্তি বা গোষ্ঠীকে সামাজিক ভাবে ছোট করার অধিকার উনাদেরকে কেউ দিয়েছে? দেশে অনেক জঙ্গি সংগঠন আছে তাদের ধর্ম বিশ্বাসের সহিত ইসকনের ধর্ম বিশ্বাসের বা কর্মের কোন মিল নাই। প্রমান ছাড়া কিছু দোষারোপ করা কাণ্ডজ্ঞানহীনতারই বহিঃপ্রকাশ বই কিছুই না। আশা করি কাঁদা না ছুড়ে উপযুক্ত মাধ্যমে বিচার প্রার্থী হয়ে মিমাংসার চেষ্টা করবেন।
    Total Reply(0) Reply
  • KUMAD KUMER PK. ২৯ জুন, ২০২১, ১১:০০ পিএম says : 0
    প্রর্বতক সংঘ সাধুবেশে সন্ত্রাসী। এরা হিন্দু দালাল, এদের থেকে সবাই সাবধান। হিন্দু ধর্মে কোন জংগীবাদের স্থান নেই, সুতরাং ইসকোন কোন জংঙ্গী সংগঠন নয়।
    Total Reply(0) Reply
  • ডাবলু বর্মন ২ জুলাই, ২০২১, ৮:২৮ এএম says : 0
    ইস্কন আছে বলেই সনাতনীরা আজও ধর্মের নাম নিয়ে বেঁচে আছে,নইলে এইযে যেসব সংঘ সবই দালালদের দখলে ,ইসকন আন্তর্জাতিক সংস্থা বেশি চুলকাতে যেওনা ঘা বেশি হয়ে যাবে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন