Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ১১ আগস্ট ২০২২, ২৭ শ্রাবণ ১৪২৯, ১২ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

ঘরের শত্রু আমাকে শেষ করে দিচ্ছে : কাদের মির্জা

নোয়াখালী ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০২১, ৭:৪৪ পিএম

বাংলাদেশ আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরের ছোট ভাই বসুরহাট পৌরসভার মেয়র আব্দুল কাদের মির্জা বলেছেন, ঘরের শক্রু বিভীষণ। আজকে ঘরের শক্র আমাকে শেষ করে দিচ্ছে। ওবায়দুল কাদের সাহেব আজকে আমার বিরুদ্ধে অবস্থান নিয়েছে। কি জন্য নিয়েছে, সেটাও খুঁজে পেয়েছি। আমি ওনার এবং ওনার স্ত্রীর অপরাজনীতির বিরুদ্ধে কথা বলেছি। ওবায়দুল কাদের সাহেবের কথা গুলো বলব। এতো ন্যাক্কারজনক, এতো ছোট মানসিকতা সম্পন্ন ব্যক্তি, আমার পরিবারে আমার আত্মীয় স্বজন ইতিমধ্যে সবাইকে অর্থ দিয়ে মন্ত্রীত্বের প্রভাব খাটিয়ে আমার বিপক্ষে নিয়েছে।

শনিবার দুপুর ১২টায় নিজের ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে লাইভে এসে তিনি এসব কথা বলেন।

মেয়র বলেন, আপনি যেমন বাহিরের কারে কারো সহযোগিতায় এখানে রাজনীতি করেন। আমরাও পিছিয়ে নেই। স্পষ্ট ভাষায় বলে দিচ্ছি। চোখ রাঙাবেন না, মুখ সামলান, যা ইচ্ছা তা করবেন হোতে পারেনা। একরামকে নিজামকে কে নোয়াখালী ফেনীর রাজনীতিতে পুনর্বাসন করেছে। আমার নানা কি শান্তি কমিটির প্রধান ছিল? আমার আব্বা কি রাজাকার ছিল। আপনি ডোন মাইন্ড ফ্যামিলির ছেলে। আপনি মেনে নিতে পারেন। আমি মেনে নিতে পারিনা। আমি যদি বেঁচে থাকি এর প্রতিশোধ আমি নেব। আপনি পারবেননা। একরাম আজকে বলে আমি ওবায়দুল কাদেরকে মাসোহারা দি। নিশ্চয় কোথাও আপনার দুর্বলতা আছে।

কাদের মির্জা বলেন, কি কোরবেন আমাকে জেল দিবেন। দেন, অভ্যাস আছে। আমনেও রেডি অন্য,সময় মত যাইবেন। আমনে আমারে ঢুকাবেন,আমনে বুঝি বাঁচি যাইবেন। আরে মারি আলাইবেন। আমি রেডি করি যাবু। কারে রেডি করি যাবু বলতে পারবোনা। সে গুলোর পারিবারিক দায়িত্ব নিয়ের বলি দিছি। তিন জনের নাম বলেছি। আমাকে মারলে, তিনজনকে মেরে ফেলবি। আপনে,আপনার বউ আর একরাম। তিনটা মারি ফেলবি। জেলে দেক, আমাদেরকে হত্যা করবে বলে হুমকি দিছে বলে আর বিরুদ্ধে মামলা করুক, কোরবে জানি। আমারে করলে কইছি। আমার বিরুদ্ধে অস্ত্র যখন গত পরশু দিন ধরা পড়ল। ট্রলারসহ আসছে মাল। র‌্যাব যদি সেখানে না যেত তাহলে হয়তো আজকে আমার জীবন বিপন্ন হত।

তিনি আরও বলেন, সাতবার আমাকে মারার পরিকল্পনা করছে। আপনার কাছে কোন বিচার পায় নাই। আমি প্রশাসনকে বলছি তারা টাকা পয়সা খাই সরে গেছে। এটাতো আমি বুঝি আপনি আমাকে মারতে চান। আপনার স্ত্রীকে এখানে প্রতিষ্ঠিত করার জন্য,এটা স্পষ্ট। আমনে মারি পালাইলে মারি পালান। আমি আপনার স্ত্রীর ভোট করতে পারবনা। আমিও আর কখনো ভোটেও দাঁড়াবো না। আমি কোন ভোটে দল থেকে নমিনেশন চাইলে জিহ্বা কেটে দিবেন। ওবায়দুল কাদের সাহেব ৬-৭ জন ছাড়া এরাকি আমার বিরুদ্ধে যায়। সব আপনি নিছেন। আমার কাছে প্রমাণ আছে। আমি একটা একটা করে প্রমাণ করে দেব। না করতে পারলে হিজরত করুম। আমি আপনার বিরুদ্ধে এমনে বলতেছিনা। ভাই ভাইয়ের বিরুদ্ধে কখন বলে। যখন দেয়ালে পিঠ ঠেকে যায়। তখন বলে, এর আগে বলার সুযোগ থাকেনা। আপনাকে অন্তর থেকে শ্রদ্ধা করার যোগ্যতা হারিয়ে ফেলেছেন। আপনার স্ত্রীর কারণে। কোথায় যান দেখবেন। এখানে মওদুদের শোকসভা বন্ধ করেদি,আপনার শোকসভায় কত লোক আসবেনা, এটা দেখবেন। আপনিতো মারা গেলে দেখবেননা। আপনার স্ত্রী ও আপনার লোকজন দেখবে।



 

Show all comments
  • মোঃ+দুলাল+মিয়া ২৬ জুন, ২০২১, ১১:০০ পিএম says : 0
    তুমি কি নোয়াখালীর পুরা মালিক না কি তোমার ভাই মহাসচিব তাই নোয়াখালীর লোকদের নিয়ে তামাশা করছে,একবার বলতেছেও আমি আওয়ামী লীগ থেকে পদত্যাগ করলাম আবার বলতেছে ও না আছি,সাংবাদিক আরে ও অনেক অভিজ্ঞ লোকদের অত্যাচার অবিচার হত্যা হরতাল এই গুলি করে নোয়াখালীর ছেলেদের হয়রানি জোর জবরদস্তি তোমার কথা শুনতে হবে নয়তে অত্যাচার এই গুলি কি পাইছেও তুমি মনে করিও না নোয়াখালীর আধিপত্য একাই তোমার হাতে।নোয়াখালীতে এই সমস্ত ঝামেলা ছিল না,নোয়াখালীর ছেলেরা এই সমস্ত ঝামেলায় থাকেনা ।নোয়াখালীর লোক ভদ্র কিন্তু তুমি তামাশা করে নিরীহ ছেলে মেয়ে প্রবীন সাংবাদিক এবং প্রবীন লোকদের অত্যাচার করিতেছেও ,আওয়ামী লীগ হউক বি এন পি হউক সবাই নোয়াখালীর সন্তান,তাই এখনও সময় আছে,ক্ষমতা আর টাকার বাহাদুরি করিও না,নোয়াখালীর মাটিকে সম্মান কর,এই মাটির ইজ্জত আছে এই মাটি থেকেই ওবায়দুল কাদেরের জন্ম এই মাটি থেকেই মালেক উকিলের জন্ম এই মাটি থেকেই মওদুদের জন্ম এই মাটি থেকেই আ স রব এর জন্ম। সবাই নোয়াখালীর যোগ্য সন্তান এখানে হানা হানি নেই ,পাটি আলাক হতে পারে কিন্তু সবাই ঐক্য কিন্তু তুমি কি তামাশা করিতেছেও একটু চিন্তা করে দেখ,এই যে কয়েকজন লোক মারা গেল এবং আতুর হয়েছে।এরা কারা এরা নোয়াখালীর সন্তান। ভালো হয়ে যাও নোয়াখালীতে গন্ডাগোল সৃষ্টি করিও না।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কাদের মির্জা


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ