Inqilab Logo

সোমবার, ২৫ অক্টোবর ২০২১, ০৯ কার্তিক ১৪২৮, ১৭ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

আধুনিক ঢাকা গড়তে দূষণ-দুর্বৃত্তায়নের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হতে হবে : আতিকুল ইসলাম

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জুন, ২০২১, ৭:৫০ পিএম

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের (ডিএনসিসি) মেয়র মো. আতিকুল ইসলাম বলেছেন, সুস্থ-সচল ও আধুনিক ঢাকা গড়ার লক্ষ্যে দখল, দূষণ ও দুর্বৃত্তায়নের বিরুদ্ধে সকলকে সোচ্চার হতে হবে। শনিবার রাজধানীর রেডিসন ব্লু ঢাকা ওয়াটার গার্ডেনে রোটারি ক্লাব, সোনারগাঁও ঢাকা কর্তৃক আয়োজিত রোটারি ডিস্ট্রিক্ট কনফারেন্সে একথা বলেন তিনি। ডিএনসিসি মেয়র বলেন, জন্মলগ্ন থেকেই রোটারি ইন্টারন্যাশনাল মানব সেবায় কাজ করে আসছে। বিশ্বব্যাপী পোলিও নির্মূলে এর ভূমিকা খুবই প্রশংসনীয়।

আতিকুল ইসলাম বলেন, করোনা মহামারির প্রথম দিকে যখন কেউ করোনায় আক্রান্ত মানুষের কাছে যেতেও ভয় পেত সেই সময়েও তিনি মহান সৃষ্টিকর্তার উপর ভরসা করে নির্ভয়ে অসহায় মানুষের কাছে গিয়ে খাবার পৌছে দিয়েছেন। তিনি বলেন, করোনাকালে “সবাই মিলে সবার ঢাকা” এর মাধ্যমে ৭৬ হাজার অসহায় পরিবারের নিকট খাবার পৌঁছে দেয়া হয়েছে। এই কার্যক্রম এখনো অব্যাহত রয়েছে। স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন বিডি ক্লিন সদস্যদের অক্লান্ত পরিশ্রমের ফলে এসব খাবার প্যাকেট এবং বিতরণ করা সম্ভব হয়েছে। এজন্য তিনি "সবাই মিলে সবার ঢাকা" এবং "বিডি ক্লিন" এর সাথে সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ জানান। তিনি আরও বলেন, নগরবাসীর স্বাস্থ্য সেবার জন্যই রাজধানীর মহাখালীতে সাত দশমিক এক সাত একর জমিতে তৈরি এক লাখ ৮০ হাজার ৫৬০ বর্গফুট আয়তনবিশিষ্ট ডিএনসিসির একটি বিপণীবিতানকে এক হাজার শয্যাবিশিষ্ট দেশের সবচেয়ে বড় "ডিএনসিসি ডেডিকেটেড কোভিড-১৯ হাসপাতাল" এ রূপান্তরিত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, এই ভবনটি মার্কেটের জন্যই করা হয়েছিল। এখানে আড়াই শতাধিক দোকান বরাদ্দও দেয়া হয়েছিল। বোর্ড মিটিংয়ের মাধ্যমে সেই বরাদ্দ বাতিল করা হয়েছে। এখানে বছরে ডিএনসিসির প্রায় একশত কোটি টাকা আয়ের সম্ভাবনা থাকলেও বিপদের সময় মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্যই মার্কেটটিকে হাসপাতালে রূপান্তরিত করা হয়েছে। ডিএনসিসি মেয়র বলেন, মহামারী চলাকালীন এই হাসপাতালটি করোনাভাইরাস আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদান করবে। মহামারী শেষ হলে এটি ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের জেনারেল হাসপাতাল হিসেবে পরিচালিত হবে, যেখানে সব ধরনের চিকিৎসা সেবা প্রদান করা হবে। মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, নগরীর জলাবদ্ধতা নিরসন এবং দূষণ নিয়ন্ত্রণে স্বল্প, মধ্য ও দীর্ঘ মেয়াদী পরিকল্পনা নিয়ে ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন কাজ করে যাচ্ছে।

তিনি বলেন, ইতোমধ্যে ডিএনসিসি বিভিন্ন জায়গায় খাল উদ্ধার ও পরিষ্কার কার্যক্রম শুরু করেছে, জনগণের সহায়তায় তা অব্যাহত থাকবে। প্রতিটি খালের দুই পাড়ের সীমানা নির্ধারণ করে তা যথাযথভাবে রক্ষণাবেক্ষণের ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। খালগুলো উদ্ধার ও রক্ষণাবেক্ষণে রোটারিয়ানদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। ডিএনসিসি মেয়র করোনাভাইরাসের বিস্তার রোধকল্পে সাধারণ মানুষের মাঝে বিতরণের জন্য তার পক্ষ থেকে আজ রোটারি ইন্টারন্যাশনালের নিকট ১ লাখ মাস্ক হস্তান্তর করেন। মো. আতিকুল ইসলাম বলেন, নিজের পরিবার, শহর ও দেশকে সুরক্ষিত রাখতে সকলকেই মাস্ক পরিধান করতে হবে এবং সরকারি নির্দেশনাসহ স্বাস্থ্যবিধিসমূহ যথাযথভাবে মেনে চলতে হবে।

তিনি আরও বলেন, সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় ঢাকাকে দখল, দূষণ ও দুষ্ট লোকের কবল থেকে মুক্ত করে সবার বাসযোগ্য একটি সুস্থ, সুন্দর ও আধুনিক নগরী হিসেবে গড়ে তোলার জন্য সকলকে নিজ নিজ অবস্থানে থেকে জনকল্যাণে কাজ করতে হবে। রোটারি ইন্টারন্যাশনাল এর পক্ষ থেকে ডিএনসিসির মেয়র মোহাম্মদ আতিকুল ইসলাম, "সবাই মিলে সবার ঢাকা"র স্বপ্নদ্রষ্টা তৌফিক জাহিদুর রহমান এবং স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন "বিডি ক্লিন"কে রোটারি স্প্রিট অফ সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডিএনসিসি মেয়র


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ