Inqilab Logo

বুধবার, ২৭ অক্টোবর ২০২১, ১১ কার্তিক ১৪২৮, ১৯ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

ইন্দোনেশিয়ায় পূর্ণাঙ্গ টিকার পর ডজন চিকিৎসকের মৃত্যু

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জুন, ২০২১, ১২:০২ এএম

পূর্ণ মাত্রার টিকা দেয়ার পরও ইন্দোনেশিয়ায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে কমপক্ষে এক ডজন চিকিৎসক মারা গেছেন। সেখানকার চিকিৎসকদের একটি সংগঠন এ তথ্য জানিয়েছে। বলা হয়েছে, করোনা সংক্রমণ শুরু হওয়ার পর থেকে সেখানে প্রায় এক হাজার স্বাস্থ্যকর্মী মারা গেছেন। ওই সংগঠনটি শুক্রবার নিশ্চিত করে বলেছে, এর মধ্যে চিকিৎসক মারা গেছেন ৪০১ জন। তাদের মধ্যে ১৪ জন আছেন, যাদেরকে পুরোপুরি টিকা দেয়া হয়েছিল। এ খবর দিয়েছে অনলাইন আল-জাজিরা। এতে আরো বলা হয়, দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার এ দেশটিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের মধ্যেও উচ্চ হারে করোনা সংক্রমণ দেখা দিয়েছে। করোনা ভাইরাসের উচ্চ মাত্রায় সংক্রমণ ক্ষমতাসম্পন্ন স্ট্রেইনের কারণে অবস্থা খারাপ হয়ে পড়েছে। গত সপ্তাহে ২৭ কোটি মানুষের এই দেশে করোনা সংক্রমণ খুব বেশি দেখা দেয়। শনিবার পর্যন্ত সেখানে কমপক্ষে ২০ লাখ ৫০ হাজার মানুষ করোনায় আক্রান্ত হওয়ার তথ্য মিলেছে। রাজধানী জাকার্তা এবং অন্য যেসব স্থানে খুব বেশি সংক্রমণ দেখা দিয়েছে সেখানে হাসপাতালগুলোতে শতকরা ৭৫ ভাগ বেশি রোগী ভর্তি হচ্ছেন। সংগঠনটির কোভিড-১৯ বিষয়ক প্রধান মোহাম্মদ আদিব খুমাইদি সাংবাদিকদের বলেছেন, আমরা এখনও ডাটা আধুনিকায়ন করছি। নিশ্চিত হওয়ার চেষ্টা করছি অন্য যারা মারা গেছেন তাদেরকে টিকা দেয়া হয়েছিল কিনা। এই দেশটিতে প্রয়োগ করা হচ্ছে চীনে তৈরি সিনোভ্যাক টিকা। এই টিকার ওপর খুব বেশি নির্ভরশীল ইন্দোনেশিয়া। এই টিকা ব্যবহার করে আগামী বছরের শুরু পর্যন্ত কমপক্ষে ১৮ কোটি মানুষকে টিকা দিতে চায় সরকার। এ মাসে মধ্য জাভা’য় টিকা দেয়া হয়েছে এমন কমপক্ষে ৩০০ চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মীর দেহে করোনা সংক্রমণ হয়। তার মধ্যে প্রায় এক ডজনকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একই সঙ্গে সেখানে ভারতে প্রথম শনাক্ত হওয়া উচ্চ মাত্রার সংক্রামক ডেল্টা ভ্যারিয়েন্টসহ নতুন নতুন ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ ঘটেছে। ডেটিক নিউজ ওয়েবসাইটের তথ্যমতে, রাজধানী জাকার্তায় পরিস্থিতি এমন অবস্থায় গেছে যে, সেখানে হাসপাতালগুলোকে ইমার্জেন্সি তাঁবু স্থাপন করতে হয়েছে রোগীদের সেবা দিতে। প্রাদেশিক সরকারের কর্মকর্তাদের উদ্ধৃত করা হয়েছে এই রিপোর্টে। উত্তর সুমাত্রা প্রদেশের রাজধানী মেদানে কোভিড টাস্কফোর্সের সদস্য ড. ইনকি নাদিয়া ডি লুবিস। তিনি জানিয়েছেন, সেখানে গত ৬ মাসে ১৮০০ শিশু করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছে। এর মধ্যে মারা গেছে ১৪টি শিশু। আল-জাজিরা।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ইন্দোনেশিয়া


আরও
আরও পড়ুন