Inqilab Logo

শনিবার, ২১ মে ২০২২, ০৭ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ১৯ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

যুক্তরাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিশ্বব্যবস্থা ‘ধ্বংস’ করার অভিযোগ চীনের

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুন, ২০২১, ৭:১৯ পিএম

চীন মঙ্গলবার মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রকে বিশ্ব ব্যবস্থার ‘বৃহত্তম সর্বনাশকারী’ হিসাবে অভিযুক্ত করেছে। এর একদিন আগেই রাশিয়া পশ্চিমাবিশ্ব দ্বারা প্রচারিত নিয়ম-ভিত্তিক শাসনের নিন্দা জানিয়েছিল।

মঙ্গলবার চীনের পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মুখপাত্র ওয়াং ওয়েনবিন বেইজিংয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘জোট ভেঙে চলে যাওয়া এবং অন্যের বিরুদ্ধে নিষেধাজ্ঞা ও সামরিক হুমকি প্রদানের মাধ্যমে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বিশ্ব ব্যবস্থার সবচেয়ে বড় ধ্বংসকারী। তাদের এই ‘নিয়ম-ভিত্তিক’ ব্যবস্থা হচ্ছে একটি মার্কিন-প্রভাবশালী কর্তৃত্ববাদী (হেজিমনি) সিস্টেম; যার সাথে অনেক মিত্রই একমত নয়।’ ওয়াং ওয়েনবিন বলেন, ‘বিশ্বব্যবস্থা হেজিমনিক বা মার্কিন নেতৃত্বাধীন চক্র দ্বারা সৃষ্ট নয়। সমস্ত দেশকেই প্রকৃত বহুপক্ষীয়তা অনুশীলন করা, আন্তর্জাতিক সম্পর্কের গণতান্ত্রিকীকরণকে এগিয়ে নেয়া এবং মানবজাতির জন্য একটি সৌভাগ্যের ভবিষ্যত গড়ে তুলতে হবে।’

এর আগে রাশিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী সের্গেই লাভরভ বলেন, নিয়ম-ভিত্তিক আদেশে কোনও নির্দিষ্ট বিষয়বস্তুর অভাব রয়েছে। যখন এটি পশ্চিমের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যায় তখন তারা ‘নিয়ম ভাঙা’ হয়েছে বলে দাবি করে। লাভরভ রাশিয়ান দৈনিক কোমর্ম্যান্টের একটি নিবন্ধে লিখেছেন, ‘তারা যত কোণঠাসা হবে, প্রতিদ্বন্দ্বীদের চাপ দেয়ার উপায় হিসাবে নোংরা কৌশল অবলম্বন করার স্বেচ্ছাচারী অনুশীলন চালিয়ে যেতে তাদের হাতকে তারা তত মুক্ত করব।’

চীন ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্টদের মধ্যে সাম্প্রতিক আলোচনার কথা উল্লেখ করে ওয়াং বলেন, ‘প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং এবং রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের কৌশলগত দিকনির্দেশনায় চীন-রাশিয়ার সম্পর্ক পরস্পরের প্রতি দৃঢ় রাজনৈতিক বিশ্বাস এবং পারস্পরিক সুবিধা নিয়ে ইতিহাসের সেরা সময়টিতে প্রবেশ করেছে।’ গত সোমবার দু’দেশের নেতারা বলেছেন, রাশিয়া ও চীনের মধ্যে সম্পর্ক দ্বিপক্ষীয় সহযোগিতার একটি ‘আদর্শ’ এবং ‘উদাহরণ’। ২০০১ সালের চীন-রাশিয়া বন্ধুত্ব চুক্তির ২০ তম বার্ষিকীতে একটি অনলাইন বৈঠকে এই দুই নেতা এই চুক্তিটি আরও পাঁচ বছরের জন্য বাড়িয়ে দিতে সম্মত হন।

চীনের মুখপাত্র ‘গণতান্ত্রিক দেশ হিসাবে তাইওয়ান দ্বীপটিকে রক্ষা করার’ জাপানের আহ্বানেরও সমালোচনা করেন। তিনি বলেন, ‘চীন জাপানকে যাতে এ জাতীয় ভুল আবার না ঘটে তা নিশ্চিত করার জন্য স্পষ্ট ব্যাখ্যা দেয়ার আহ্বান জানিয়েছে।’ উল্লেখ্য, চীন তাইওয়ানকে নিজেদের একটি বিচ্ছিন্ন প্রদেশ বলে দাবি করে। সূত্র: এক্সপ্রেস ট্রিবিউন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যুক্তরাষ্ট্র-চীন


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ