Inqilab Logo

শুক্রবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০২ আশ্বিন ১৪২৮, ০৯ সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

করোনা শহর গ্রাম বুঝে না, বাড়ছে কক্সবাজারের সর্বত্র- ডা. শাহজাহান নাজির

কক্সবাজার ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৮ জুলাই, ২০২১, ১০:১৪ পিএম

র‍্যাপিড এন্টিজেন টেস্টের মাধ্যমে করোনা উপসর্গের রোগীর স্যাম্পল পরীক্ষা করে মাত্র১৫ মিনিটেই ফলাফল পাওয়া যায়। আরটিএ (RTA) হলো দ্রুত সময়ে করোনা পরীক্ষা পদ্ধতি। মাত্র ১৫ মিনিটেই এই পরীক্ষায় করোনার রেজাল্ট পাওয়া যায়। এতে উপকৃত হচ্ছেন রোগীরা। বিশেষজ্ঞদের মতে যেরকম র‍্যাপিড ডেংগু টেস্ট বা র‍্যাপিড ম্যালেরিয়া টেস্ট এর মাধ্যমে ডেংগু ও ম্যালেরিয়া টেস্ট করা হয় এটিও তাই।

কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের সহকারী অধ্যাপক, ক্লিনিক্যাল ট্রপিক্যাল মেডিসিন এবং সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ ডাঃ মোহাম্মদ শাহজাহান নাজির বলেন, র‍্যাপিড টেস্টের মাধ্যমে রোগীদের ভোগান্তি কমেছে, পাশাপাশি দ্রুত ফলাফল পাওয়া যাচ্ছে।

তিনি বলেন,গত বছরের শুরু থেকে কুতুবদিয়া বা টেকনাফ থেকে স্যাম্পল নিয়ে কক্সবাজার মেডিকেল কলেজের ল্যাবে আনা হতো। সেখানে পিসিআরের মাধ্যমে টেস্ট করা হতো। শুধু পিসিআর মেশিনেই কমপক্ষে ৬ ঘন্টা লাগতো। আর বহন করার ৮/১০ ঘন্টা তো আছেই।

আর এখন র‍্যাপিড টেস্ট এ মাত্র ১৫ মিনিটেই পাওয়া যাচ্ছে ফলাফল। এছাড়াও যারা র‍্যাপিড টেস্টে পজিটিভ হয় তাদের সবাই কে পিসিআর করে দেখা হয়েছে প্রায় ৯২-৯৫% পিসিআর পজিটিভ হয়। র‍্যাপিড টেস্ট এ যারা নেগেটিভ হয়ে তাদের সবাইকে পিসি আর করে দেখা হয়েছে, এতে প্রায় ৯০-৯৪% পিসি আর নেগেটিভ হয়। এতেই ধরে নেয়া যায় র‍্যাপিড টেস্ট একটি নির্ভরযোগ্য টেস্ট।

তিনি বলেন, আলহামদুলিল্লাহ বিগত ৬/৭/২১ তারিখ থেকে কক্সবাজার জেলার সবকটি উপজেলায় র‍্যাপিড টেস্ট শুরু হয়েছে। এর আগে ১২/১/২১ তারিখ থেকে শুধু জেলা সদরে করা হতো।

গত তিন দিনের র‍্যাপিড টেস্ট এর রেজাল্ট বিশ্লেষণ করে তিনি বলেন, শহরে বা গ্রামে কোথায় করোনা বেশি হচ্ছে তা বুঝা যায়। এই টেস্ট সাধারণ যাদের জ্বর বা উপসর্গ আছে এরকম ৭ দিনের মধ্যে করা হয়।

ডা. শাহজাহান নাজির এর মতে গত ৩ দিনের টেস্টে সদরের পজিটিভিটির হার ৩৪.৫%, টেকনাফের পজিটিভিটির হার ৪০%, রামুর পজিটিভিটির হার ৩৩%, মহেশখালী এর ৩৩%, চকরিয়া এর ৩২ %, পেকুয়া এর ২৮% ও কুতুবদিয়া এর ১৫%। তাতেই বুঝা যাচ্ছে, শহর কিংবা গ্রাম তেমন কোন পার্থক্য নেই। করোনার প্রকোপ আছে সর্বত্রই।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: কক্সবাজার


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ