Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ৩০ জুন ২০২২, ১৬ আষাঢ় ১৪২৯, ২৯ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী

খুলনার হাসপাতাল গুলোতে অক্সিজেনের জন্য রোগীদের হাহাকার, মারামারি !

খুলনা ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ৯ জুলাই, ২০২১, ৯:০৬ এএম

খুলনায় করোনা রোগীদের অক্সিজেন সিলিন্ডারের সংকট মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। ফলে সময়মতো অক্সিজেন না পেয়ে অনেকে মারা যাচ্ছেন বলে স্বজনরা অভিযোগ করছেন। দীর্ঘ অপেক্ষার পর হাসপাতালগুলোতে কোনভাবে ভর্তি হতে পারলেও অক্সিজেনের অভাবে অসংখ্য রোগীর জীবন চরম ঝুঁকির মাঝে রয়েছে। আর এ অবস্থায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের বক্তব্যেও অসহায়ত্ব ফুটে উঠেছে। অক্সিজেন সিলিন্ডার কে কার আগে নেবে, তা নিয়ে সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত কাড়াকাড়ি চলছে রোগীদের স্বজনদের মধ্যে। এমনই চিত্র খুলনার ১৩০ শয্যার কোভিড ডেডিকেটেড হাসপাতালে।

খুলনার সবচেয়ে বড় এই বিশেষায়িত হাসপাতালে ১৩০ শয্যার বিপরীতে গত কয়েকদিন যাবত রোগী ভর্তি থাকছেন ১৮০ থেকে ১৯০ জন। এখানে মাত্র ৭৭টি শয্যায় রয়েছে কেন্দ্রীয় অক্সিজেনের সরবরাহ ব্যবস্থা, বাকি রোগীদের ভরসা সিলিন্ডার। হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পাঁচ শ’ সিলিন্ডার মজুদের কথা বললেও হাহাকার থামছে না।

বৃহষ্পতিবার রাত সাড়ে ১১ টায় নাসিমা বেগম নামে রোগীর এক স্বজন দৈনিক ইনকিলাবকে জানান, অক্সিজেনের সিলিন্ডার আমি নিজে ঘুরিয়ে আমার রোগীর পাশে রাখি। একটু পর এসে দেখি সেটা আরেকজন নিয়ে গেছে। আমাদের মতো যারা সাধারণ রোগী, তারা সিলিন্ডার পাচ্ছে না। রাত ১২ টার দিকে হাসপাতালের বাইরের চত্বরে দুই রোগীর স্বজনদের মধ্যে সিলিন্ডার নিয়ে প্রায় হাতাহাতির মত অবস্থা দেখা যায়। রাত সাড়ে ১২ টার দিকে আবুল হোসেন নামে আরেক করোনা রোগীর ভাই জানান, সিলিন্ডার না পেয়ে আমরা এদিক ওদিক দৌড়াদৌড়ি করছি। শুধু অক্সিজেনের অভাবে আমার ভাই মারা যাচ্ছে।

করোনা প্রতিরোধ ও সমন্বয় কমিটির অন্যতম সদস্য ও খুলনা মেডিকেল কলেজের উপাধ্যক্ষ ডা. মেহেদী নেওয়াজ জানান, রোগীর এমন চাপ অব্যাহত থাকলে পরিস্থিতি চলে যাবে নিয়ন্ত্রণের বাইরে। রোগীর সংখ্যা যখনই ১৭০ অতিক্রম করছে তখনই সংকট সৃষ্টি হচ্ছে।
এদিকে সংকটময় মুহুর্তে খুলনার বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের পক্ষ থেকে অক্সিজেন ব্যাংক গঠন করে রোগীদের অক্সিজেন সরবরাহ করা হচ্ছে। তবে চাহিদার তুলনায় তা অপ্রতুল।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ