Inqilab Logo

শনিবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১০ আশ্বিন ১৪২৮, ১৭ সফর ১৪৪৩ হিজরী

এখন প্রায় সব এলাকাতেই কম বেশী লকডাউন চলে থাকে। তখন সে এলাকায় দোকান পাঠ বন্ধ রাখতে বলে। অনেক দোকানদার লুকিয়ে চপিচুপি একটু ঝাপ খুলে বেচা বিক্রি করে। এখন ইসলামিক দৃষ্টিকোন থেকে প্রশ্ন হচ্ছে, আমি যদি এ সব দোকান থেকে কিছু কিনি তাহলে আমি কি গুনাহগার হবো? কেনার পর পন্য টা আমার জন্য হালাল না হারাম হবে?

সাইফ
ইমেইল থেকে

প্রকাশের সময় : ৯ জুলাই, ২০২১, ৭:২১ পিএম

উত্তর : ২০২১ সালের জুলাই মাসের মধ্যভাগে চলমান যে লকডাউন, এটি স্বাস্থ্য বিভাগের প্রস্তবনায় পরিচালিত একটি নিষেধাজ্ঞা। এতে জনসমাগম, শারীরিক দূরত্ব না মানা, মাস্ক ব্যবহার না করা একান্ত বর্জনীয় কাজ। বিশেষ প্রয়োজনে স্বাস্থবিধি মেনে বের হওয়ার অনুমতিও আছে। যেমন ওষুধ, খাদ্যদ্রব্য, জরুরি পণ্য, রোগীর সেবা, বিপন্ন ব্যক্তির চিকিৎসা, দাফন কাফন ইত্যাদি। দূরত্ব ও স্বাস্থবিধি মেনে দোকানপাট বন্ধ রেখে প্রবেশ-প্রস্থান, কোনো বস্তু ক্রয়-বিক্রয় বিধি লংঘন হতে পারে। তবে, শরীয়তে নিষিদ্ধ বা হারাম নয়। খাদ্য, চিকিৎসা, তথ্য ও নিরাপত্তার কাজে বাধা ন হয়, এমন সতর্ক ও স্বাস্থসম্মত চলাচল নিষেধের আওতায় পড়ে বলে মনে হয় না। এসব ক্ষেত্রে নিজেই প্রয়োজনে কমবেশি পরিমাণ বিবেচনা করে চলা উচিত।
উত্তর দিয়েছেন : আল্লামা মুফতি উবায়দুর রহমান খান নদভী
সূত্র : জামেউল ফাতাওয়া, ইসলামী ফিক্হ ও ফাতওয়া বিশ্বকোষ।
প্রশ্ন পাঠাতে নিচের ইমেইল ব্যবহার করুন।
[email protected]

 

ইসলামিক প্রশ্নোত্তর বিভাগে প্রশ্ন পাঠানোর ঠিকানা
[email protected]



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: লকডাউন

১১ আগস্ট, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ