Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৭ জুলাই ২০২২, ২৩ আষাঢ় ১৪২৯, ০৭ যিলহজ ১৪৪৩ হিজরী

লক্ষণ এক হলেও পার্থক্য বুঝবেন কিভাবে?

ডেঙ্গু জ্বর ও করোনা

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১০ জুলাই, ২০২১, ১২:০০ এএম

বাংলাদেশে করোনাভাইরাসে সংক্রমণ এবং মৃত্যু যখন গুরুতর আকার ধারণ করেছে ঠিক তখনই ডেঙ্গু জ্বরের প্রাদুর্ভাব দেখা দিচ্ছে। এই প্রবণতা এখনো পর্যন্ত ঢাকা শহরের মধ্যেই বেশি দেখা যাচ্ছে। স্বাস্থ্য অধিদফতরের সর্বশেষ হিসেবে, ১৫১ জন ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে ঢাকা শহরের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।
চিকিৎসকরা বলছেন, একজন ব্যক্তি একই সাথে কোভিড-১৯ এবং ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হতে পারেন। মশা নিধনের কার্যক্রম জোরদার করতে না পারলে পরিস্থিতি গুরুতর আকার ধারণ করতে পারে বলে আশঙ্কা করছেন চিকিৎসকরা। বাংলাদেশে জুন থেকে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ডেঙ্গু জ্বরের প্রাদুর্ভাব বেশি দেখা যায়।

লক্ষণ এক হলেও পার্থক্য আছে : চিকিৎসকরা বলছেন, কিছু লক্ষণ এবং উপসর্গ আছে যেগুলো শুরুর দিকে ডেঙ্গু জ্বর এবং কোভিড-১৯ এর ক্ষেত্রে একই রকম। সেক্ষেত্রে অনেক রোগীকে ডেঙ্গু জ্বর এবং কোভিড-১৯ দুটোর পরীক্ষা একসাথে করা হচ্ছে।

ঢাকার বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের সহযোগী অধ্যাপক শর্মিলা হুদা বলেন, ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত বেশিরভাগ রোগীর জ্বর, গায়ে ব্যথা, মাথা ব্যথা এবং চোখের পেছনে ব্যথা থাকে। সাধারণত এ ধরণের লক্ষণ থাকলে হাসপাতালে ভর্তি করানো হয় না। কারণ হাসপাতালগুলো এখন কোভিড রোগীতে পরিপূর্ণ। তবে পরিস্থিতি যদি জটিলতার ইঙ্গিত দেয় তাহলে হাসপাতালে ভর্তি হতেই হবে। সেক্ষেত্রে অন্য কোন বিকল্প নেই।

একই রোগী কি কোভিড এবং ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হতে পারেন? : বাংলাদেশের মেডিসিন বিশেষজ্ঞ অধ্যাপক এবিএম আবদুল্লাহ বলছিলেন, ডেঙ্গু জ্বর এবং কোভিড-১৯ দুটোই ভাইরাস জনিত রোগ হলে দুটোর মধ্যে কিছু পার্থক্য আছে। একই রোগী কোভিড এবং ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হতে পারে। দুটোর ক্ষেত্রেই জ্বর, গলা ব্যথা, সর্দি, কাশি এবং স্বাদ না থাকা হতে পারে। করোনার ক্ষেত্রে এসব লক্ষণের সাথে নাকে ঘ্রাণ পায় না এবং কারো কারো পাতলা পায়খানা হয়। এছাড়া করোনার ক্ষেত্রে শ্বাসকষ্ট-জনিত সমস্যা হতে পারে, যেটি ডেঙ্গু জ্বরের ক্ষেত্রে হয় না।

চিকিৎসকরা বলছেন, ডেঙ্গু জ্বরের ক্ষেত্রে চার-পাঁচদিন পরে শরীরে লাল অ্যালার্জির মতো র‌্যাশ হতে পারে। তখন রক্তে প্ল্যাটিলেটের মাত্রা কমে যেতে পারে। ডেঙ্গু জ্বরের ক্ষেত্রে ‘শক সিন্ড্রোম’ হতে পারে যেটি রোগীর মৃত্যুর কারণ হয়। কিছু লক্ষণ আছে যেগুলো থাকলে রোগীকে অবশ্যই হাসপাতালে ভর্তি হতে হবে। সেগুলোর মধ্যে যদি দেখা যায় যে রোগীর নাক দিয়ে রক্ত পড়ছে। অথবা তার কালো পায়খানা হচ্ছে। শর্মিলা হুদা বলছেন, গুরুতর ডেঙ্গু জ্বরের ক্ষেত্রে নারীদের মাসিকের সময় অতিরিক্ত রক্তচাপ কিংবা হঠাৎ করে মাসিক হতে পারে।
ডেঙ্গু প্রতিরোধে কী ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে? : বিশেষজ্ঞরা বলছেন, জমে থাকা বৃষ্টির পানিতে এডিস মশার বংশ বিস্তার হয়। এটি ডেঙ্গু জ্বরের জন্য দায়ী। ডেঙ্গু জ্বর প্রতিরোধ করার জন্য একমাত্র উপায় হচ্ছে এডিস মশার বংশ বিস্তার রোধ করা। আর তা করতে না পারলে চিকিৎসা দিয়ে কুলানো সম্ভব হবে না বলে সতর্ক করে দিচ্ছেন চিকিৎসকরা।

তবে ঢাকা শহরের অনেক বাসিন্দার অভিযোগ হচ্ছে, মশা নিধন করার কোন কার্যক্রম চোখে পড়ে না। মশা নিধন করার দায়িত্ব হচ্ছে সিটি কর্পোরেশনগুলোর। ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল জোবায়দুর রহমান বলেন, এডিস মশার লার্ভা ধ্বংস করার জন্য গত বছর যেসব বাড়ি ও স্থাপনায় অভিযান চালিয়ে জরিমানা করা হয়েছিল তাদের একটি তথ্যভাণ্ডার রয়েছে।

এডিস মশার লার্ভা : সেসব ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে চলতি বছর এপ্রিল মাসে মোবাইল ফোনে বার্তা পাঠিয়ে সতর্ক করে বলা হয়েছে, চলতি বছরও যদি তাদের স্থাপনায় এডিস মশার লার্ভা পাওয়া যায়, তাহলে গত বারের চেয়ে বেশি জরিমানা করা হবে। এ ধরণের এক হাজার ৭০০ বার্তা পাঠানো হয়েছে। ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তার দাবি, এলাকায় সপ্তাহে দু’দিন মশার ওষুধ ছিটানো হয়। একই সাথে বিভিন্ন এলাকার মানুষের জন্য নানা ধরণের সচেতনতামূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে।

বাংলাদেশের স্থানীয় সরকার মন্ত্রী তাজুল ইসলাম বলেছেন, এডিস মশার বংশ বিস্তার ঠেকাতে বিভিন্ন স্থাপনায় যাতে বৃষ্টির পানি জমে না থাকে সেজন্য শুক্রবার থেকে ঢাকায় ২০টি মোবাইল টিম কাজ শুরু করেছে। সূত্র : বিবিসি বাংলা।



 

Show all comments
  • Kazi Nurul Alam ১০ জুলাই, ২০২১, ১:৩১ এএম says : 0
    বুঝার কনো উপায় নাই, স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের দূর্নীতি আর অনিয়ম এই দেশের মানুষকে প্রতিনিয়ত চরম ভোগান্তি মৃত্যুর মুখেই ঠেলে দিচ্ছে
    Total Reply(0) Reply
  • Sanjida Islam ১০ জুলাই, ২০২১, ১:৩২ এএম says : 0
    · কোভিড-১৯ এর স্বাস্থ্যঝুঁকি এড়াতে সকলকে ঘরে থাকার অনুরোধ করছি।একইসাথে সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি উদ্যোক্তা,রাজনীতিবিদ,স্বচ্ছল ব্যবসায়ী,সমাজসেবীদেরকে এসময়ে কর্মহীন হয়ে যাওয়া অসহায়,দুঃস্হ ও কর্মহীন মানুষদের পাশে দাঁড়ানোর অনুরোধ করছি।
    Total Reply(0) Reply
  • Maniruzzaman Mani ১০ জুলাই, ২০২১, ১:৩৩ এএম says : 0
    সিটি করপোরেশন শুধু জরিমানা করে রাজস্ব আদায় করবে। কিন্তু ডেঙ্গু রোগীর তাতে কি লাভ হবে? তাই জরিমানা করার চেয়ে মশা মারার ব্যবস্থা করা উত্তম।
    Total Reply(0) Reply
  • Mirja Jewel ১০ জুলাই, ২০২১, ১:৩৩ এএম says : 0
    বাংলাদেশের হাসপাতালগুলোতে সুস্থ সবল ভালো মানুষগুলো গেলেও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের কারনে তারাও অসুস্থ হয়ে ফেরতে বাধ্য। আর সিটি করপোরেশনের মেয়র কাউন্সিলররা মশা মারার মেডিসিন ছিটানোর জন্য কয়েক কোটি টাকা বরাদ্দ থাকলেও কয়েক হাজার খরচ করে, বাকিটা মাইরা দেয়। উত্তরা দক্ষিণখানের সাবেক চেয়ারম্যানের বাড়িটা আর তার সামনের রাস্তাটা যদি কেউ দেখে থাকেন, তারাই বুঝবেন। একটা রাজকীয় প্রাসাদ আর তার সামনের রাস্তাটার যে কি অবস্থা!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Ariful Islam ১০ জুলাই, ২০২১, ১:৩৩ এএম says : 0
    আমার ভাগিনা দুইদিন ধরে ডেঙ্গু জরে আক্রান্ত ।অবস্থা বেশি ভালো না।
    Total Reply(0) Reply
  • Ashraful Islam ১০ জুলাই, ২০২১, ১:৩৪ এএম says : 0
    অগ্নিকান্ড, করোনা, ডেঙ্গু সব মিলিয়ে আমাদের কি অবস্থা দাঁড়ালো।
    Total Reply(0) Reply
  • Dadhack ১০ জুলাই, ২০২১, ১১:৫৪ এএম says : 0
    চরম অসৎ ও জঘন্য দুর্নীতিবাজরা দেশ চালায় বলেই আজকে আমাদের দেশের এই অবস্থা এরা আমাদের দেশ ধ্বংস করে ফেলেছে
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ডেঙ্গু জ্বর

৩১ জুলাই, ২০২০

আরও
আরও পড়ুন