Inqilab Logo

বুধবার, ২৯ জুন ২০২২, ১৫ আষাঢ় ১৪২৯, ২৮ যিলক্বদ ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

হাসপাতাল বন্ধ না হওয়া পর্যন্ত আন্দোলন

শ্বাস নিতে চায় সিআরবি

চট্টগ্রাম ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৭ জুলাই, ২০২১, ১২:০৫ এএম

‘না নিতে পারি যদি শ্বাস, হাসপাতাল তো নাভিশ্বাস’। ‘প্রকৃতি ও ঐতিহ্য ধ্বংস করে হাসপাতাল চাই না’। ‘শ্বাস নিতে চায় চট্টগ্রাম’। এমন সব প্রতিবাদী সেøাগান উচ্চারিত হচ্ছে চট্টগ্রামের উম্মুক্ত সবুজ-শীতল সিআরবিতে। মনোরম সবুজ পাহাড় ঘেরা শতবর্ষী বৃক্ষের ছায়া সুশীতল সিআরবি সুরক্ষায় বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী, সচেতন নাগরিক সমাজের পাশপাশি নানা শ্রেণি পেশার মানুষের ক্ষোভ প্রতিবাদ, মিছিল সমাবেশ, মানববন্ধন, প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচি তথা সামাজিক আন্দোলন অব্যাহত আছে।
চট্টগ্রামের ইতিহাস, ঐতিহ্য, সংস্কৃতি ও প্রাকৃতিক অনুষঙ্গের অবিচ্ছেদ্য অংশ সিআরবি ধ্বংসের যে কোন চক্রান্ত রুখে দিতে ঐক্যবদ্ধ চাটগাঁবাসী। দল মত নির্বিশেষে সবাই এই সামাজিক আন্দোলনে শরিক হয়েছেন। সরকারি দল আওয়ামী লীগের পাশাপাশি মাঠের বিরোধী দল বিএনপিসহ ছোট বড় সব রাজনৈতিক দলের নেতারাও প্রতিবাদী মানুষের কাতারে নেমেছেন। নগর পরিকল্পনাবিদ, স্থপতি, শিল্পী, ইতিহাসবিদ, উদ্যানবিদ, প্রকৌশলী, শিক্ষক, পরিবেশবিদ ও সাংবাদিক, কবি-সাহিত্যিকরাও মাঠে।
উম্মুক্ত সবুজ-শীতল এই এলাকা হরেক প্রজাতির পাখ-পাখালি ও গাছ গাছালি এবং বন্যপ্রাণির আবাসস্থল। চট্টগ্রামের শ্বাস-প্রশ্বাসের জন্য এই এলাকার প্রাকৃতিক বৈশিষ্ট্য অক্ষুণœ রাখার কোন বিকল্প নেই। সিআরবিতে বেসরকারি হাসপাতাল, মেডিকেল কলেজ ও নার্সিং ইনস্টিটিউট নির্মাণ বন্ধের ঘোষণা না আসা পর্যন্ত এই আন্দোলন অব্যাহত রাখার ঘোষণাও দেয়া হয়েছে।
গতকাল শুক্রবার সরকারি ছুটির দিনেও ঐতিহাসিক সিআরবি প্রাঙ্গণে সমাবেশ, মানববন্ধনসহ নানা কর্মসূচি পালন করা হয়। এসময় বক্তারা বলেন, সিআরবি রেলওয়ে পূর্বাঞ্চলের সদর দপ্তর। এটি ব্রিটিশ আমলের স্থাপত্য শৈলীর একটি অনবদ্য নিদর্শন এবং চট্টগ্রামের সবচেয়ে প্রাচীন ভবন। ঐতিহ্যের অংশ এমন একটি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার কাছেই বহুতল হাসপাতাল, মেডিকেল কলেজ ও নার্সিং ইনস্টিটিউট নির্মাণ করা হলে পুরো এলাকার প্রাকৃতিক পরিবেশ ধ্বংস হয়ে বিরাণ ভ‚মিতে পরিণত হবে। এরফলে পুরো নগরীর পরিবেশের ভারসাম্য বিনষ্ট হবে। এমন আত্মঘাতি কর্মকান্ড চাটগাঁবাসী কখনো মেনে নেবে না। এমনিতেই এই নগরী দখলবাজদের ক্রমাগত আগ্রাসনের কারণে পাহাড়, জলাভ‚মি ও শতবর্ষী বৃক্ষরাজি হারিয়ে এখন এক চরম প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মুখোমুখি।
সিআরবি সাত রাস্তার মোড়ে বিকেলে মানববন্ধন ও সমাবেশ করে চট্টগ্রাম সাংস্কৃতিক পরিষদ। এতে বক্তারা বলেন, সিআরবি শিরীষ তলায় বাঙালি সংস্কৃতির চিয়ায়ত অনুষঙ্গ পহেলা বৈশাখের বর্ষবরণ উৎসব আয়োজিত হয়। পাশাপাশি শিরীষ তলায় অন্যান্য সাংস্কৃতিক আয়োজনও হয়ে থাকে। সিআরবি এলাকায় বাণিজ্যিক হাসপাতালসহ বিভিন্ন স্থাপনা নির্মাণ হলে সেখানে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান আয়োজনও হুমকির মুখে পড়বে।
পরিষদের কর্মকর্তা ও ইকো ফ্রেন্ডসের সভাপতি উত্তম কুমার আচার্য্যের সভাপতিত্বে এবং পরিষদের সাধারণ সম্পাদক শহীদ ফারুকীর পরিচালনায় মানববন্ধনে বক্তব্য রাখেন, জার্মান ইন্সিটিউট অফ অল্টারনেটিভ এনার্জির বাংলাদেশ প্রতিনিধি প্রকৌশলী জ্যোতির্ময় ধর, নাট্যকার আব্দুর রহিম, সাইফ আজাদ, সাংবাদিক বিশ্বজিৎ পাল, শিল্পী জুলেখা বেগম জুলি, সৈয়দ শাকিল আরাফাত প্রমুখ।
ছাত্র ফেডারেশন চট্টগ্রাম নগর শাখা সকালে একই এলাকায় সমাবেশ করেছে। সংগঠনের যুগ্ম আহবায়ক সাইফুর রূদ্রর সঞ্চালনায় এতে বক্তব্য রাখেন আহবায়ক কাজী আরমান, রিয়াদ রাসেল, পাপন বণিক প্রমুখ। এছাড়া গ্রিন অ্যালায়েন্স বাংলাদেশ, পমা ছাড়াও বিভিন্ন সংগঠন নানা প্রতিবাদী কর্মসূচি পালন করে।
এদিকে সিআরবিতে হাসপাতাল নির্মাণের সিদ্ধান্ত থেকে সরকার সরে না আসা পর্যন্ত আন্দোলন চালিয়ে যাবার ঘোষণা দিয়েছে চট্টগ্রামের নাগরিক সমাজ। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সিআরবির সাত রাস্তার মোড়ে এক প্রতিবাদী অবস্থান কর্মসূচি থেকে এ ঘোষণা আসে। কর্মসূচিতে মানবতাবিরোধী অপরাধ ট্রাইব্যুনালের প্রসিকিউটর রানা দাশগুপ্ত, কবি ও সাংবাদিক আবুল মোমেন, প্রফেসর ডা. এ কিউ এম সিরাজুল ইসলাম, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, জেলা আইনজীবী সমিতির সাবেক সভাপতি শেখ ইফতেখার সাইমুল চৌধুরী বক্তব্য রাখেন। এতে মুক্তিযুদ্ধের গবেষণা কেন্দ্রের চেয়ারম্যান ডা. মাহফুজুর রহমান, মুক্তিযুদ্ধের বিজয়মেলা পরিষদের মহাসচিব মো. ইউনূস, পরিবেশবিদ ইদ্রিস আলীসহ বিভিন্ন সংগঠনের প্রতিনিধিরা যোগ দেন।
‘চট্টগ্রামবাসী না চাইলে হাসপাতাল হবে না’
প্রধানমন্ত্রী প্রাকৃতিক পরিবেশ সুরক্ষা ও বৃক্ষরোপণে আন্তরিক উল্লেখ করে চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান বলেছেন, বঙ্গবন্ধু কন্যার সঙ্গে সিআরবি নিয়ে দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের কথা হয়েছে। এরপর প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া আমাদের বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী জানিয়েছেন চট্টগ্রামের মানুষ না চাইলে সিআরবিতে নতুন হাসপাতাল হবে না। আওয়ামী লীগ নেতা মফিজুর রহমান বৃহস্পতিবার রাতে সাংবাদিকদের এ কথা বলেন। তিনি বলেন, মহানগর, উত্তর ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ নেতারা সরেজমিন সিআরবির প্রস্তাবিত হাসপাতাল এলাকা পরিদর্শন করে সার্কিট হাউসে বসে ওবায়দুল কাদেরের সঙ্গে কথা বলেন। তখন বিষয়টি নিয়ে তিনি প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপ করেন। এরপর প্রধানমন্ত্রীর অভিমত ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া আমাদের জানিয়ে দেন। মফিজুর রহমান বলেন, সিডিএ আগে সিআরবি এলাকাকে হেরিটেজ ঘোষণা করেছিল। সেখানে কোনো বাণিজ্যিক বা নতুন স্থাপনা করা যাবে না। এ তথ্য গোপন করে অথবা ভুল তথ্য দিয়ে সিআরবি এলাকায় ৫০০ শয্যার হাসপাতাল ও ১০০ আসনের মেডিকেল কলেজ তৈরির উদ্যোগ নেওয়া হয়েছিল। সিআরবির বাইরে চট্টগ্রামে বড় হাসপাতাল করার মতো অনেক জায়গা আছে
ছবি: সিআরবি সাত রাস্তার মোড়ে প্রতিবাদী মানববন্ধন-চট্টগ্রাম ব্যুরো

 



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: হাসপাতাল


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ