Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০৫ আগস্ট ২০২১, ২১ শ্রাবণ ১৪২৮, ২৫ যিলহজ ১৪৪২ হিজরী

আসছে কঠোর লকডাউন, ঈদ শেষ না করেই খুলনা ছাড়ছেন মানুষ

খুলনা ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ২১ জুলাই, ২০২১, ১১:১৮ পিএম

পরিবার পরিজনের সাথে ঈদ করতে ৩/৪ দিন আগে তারা খুলনা এসেছিলেন। রাজধানী ঢাকাসহ দেশের দূরদূরান্তের বিভিন্ন জেলা থেকে কেউ ট্রেনে, কেউ বা এসেছিলেন বাসে। ঈদের পরেই আসছে আবার কঠোর লকডাউন। তাই এখনই খুলনা ছাড়ছেন তারা।

আজ ঈদের রাতে খুলনা মহানগরীর বাস টার্মিনাল গুলোতে দেখা গেছে, যাত্রীদের প্রচন্ড চাপ। বাস কাউন্টার গুলো টিকিট দিতে হিমশিম খাচ্ছে। সরকারী বিধির তোয়াক্কা না করেই বাসগুলো যাত্রী ভরে তবেই ছাড়ছে গন্তব্যের উদ্দেশ্যে। টিকিটের জন্য রীতিমত কাড়াকাড়ি চলছে।

খুলনা সোনাডাংগা বাস টার্মিনালের টাইম কীপার আলমগীর হোসেন জানান, সময় মত সব বাস কাউন্টার ছেড়ে যাচ্ছে। ঈদের কারণে যাত্রীদের বাড়তি চাপ রয়েছে। আজ বুধবার ও আগামীকাল বৃহস্পতিবার বাস চলবে। এরপর বন্ধ হয়ে যাবে লকডাউনের কারণে। তাই যাত্রীদের এতো ভিড়।
নগরীর রয়্যাল মোড়ের ঢাকাগামী কয়েকটি বাস কাউন্টারের কর্মচারীরা দাবি করেছেন সরকার নির্ধারিত ৬০ শতাংশ ভাড়া বেশি নিয়ে অর্ধেক যাত্রী বহন করা হচ্ছে।

যদিও অনেক যাত্রী অভিযোগ করেছেন, পথের থেকে যাত্রী নিয়ে তারা অধিক মুনাফা করছে। তাছাড়া টিকিটের চাহিদা বেড়ে যাওয়ায় ভাড়া বেশি রাখছে।

খুলনা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির নেতা সিদ্দিকুর রহমান জানান, সরকারি বিধি মেনেই পরিবহণ গুলো চলছে। এ পর্যন্ত বাড়তি ভাড়া বা বেশি যাত্রী নেয়ার কোন অভিযোগ পাওয়া যায়নি। পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।



 

Show all comments
  • Shanto ২২ জুলাই, ২০২১, ৯:৫৩ এএম says : 0
    অহংবাদ/ মিথ্যা / ভণ্ডামি / ধোকা /প্রতারণা/ বিভ্রান্তি / অমানবিকতা / ক্ষতিকারক / শয়তানবাদের সর্বোচ্চ অন্ধকার যুগে বর্তমান বিশ্বে আমরা অবস্থান করছি। তাই সাধারণ মানুষ সর্বোচ্চ সতর্কতা সাবধানতা অবলম্বন করুন! আপনার সাধারণ বোধগুলোকে সক্রিয় করার সর্বোচ্চ চেষ্টা করুন। গভীর তদন্ত না করে অন্ধভাবে কোনও কিছু গ্রহণ বা বিশ্বাস করবেন না। একটা কথা সব সময় স্মরণ রাখবেন আর তা হলো - সর্বোচ্চ শয়তানবাদের এই যুগে রক্ষকরাই ভক্ষক এর ভূমিকা পালন করছে, আপনার চারপাশে এর অসংখ্য প্রমাণ রয়েছে। সুতরাং বিশ্বাস একমাত্র শুধুমাত্র সত্যকে করা যায়। আর শুধুমাত্র সর্বশক্তিমান আল্লাহ সমস্ত সত্তের উৎস। কিন্তু সাবধান ! শয়তান এবং এর অনুসরণ কারীরা নিজেদেরকে সত্যবাদী হিসেবে প্রকাশ করে অথচ এরাই সমস্ত ধরনের মিথ্যার উৎস! এরা বলে, কথিত ভাইরাস নাকি ভয়ঙ্কর! যার সত্যিকারের কোনো অস্তিত্ব নেই সেটি কে কেন্দ্র করে লকডাউন দিয়ে অসহায় দরিদ্র মানুষদের উপর লোভী স্বার্থপর শয়তানি ক্ষমতার অধিকারীরা নানাভাবে শোষণ নির্যাতন জুলুম করে তাদের বড় ক্ষতি করে চলছে। অথচ এরা কথিত ভাইরাস থেকে লক্ষ কোটি গুণ বিষাক্ত, এদের দ্বারা পৃথিবীর লক্ষ লক্ষ কোটি কোটি মানুষ নানাভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে এবং মারা যাচ্ছে। যদি লকডাউন দিতে হয় তাহলে এই সকল বড় বড় মিথ্যুক ভন্ড প্রতারক জালেম শোষকদের বিরুদ্ধে সর্বাত্মক লকডাউন দেওয়া হোক। বর্তমানে সারা পৃথিবীতে কথিত ভাইরাসের নাম দিয়ে মানুষের বিভিন্ন রোগে আক্রান্ত এবং মৃত্যুর যে কারণ বলা হচ্ছে তার আসল কারণ হচ্ছে বিষাক্ত খাদ্য বিষাক্ত পরিবেশ বিষাক্ত মোবাইল রেডিয়েশন বিষাক্ত মানসিক চাপ - যা শয়তান এবং এর অনুসরণকারীরা এই পৃথিবীতে প্রতিষ্ঠা করেছে। মানুষের রূপ ধারী অমানুষ, যারা তাদের ভেতর শয়তানকে ধারণ করে শয়তানকে লালন করে, যারা নানাভাবে সাধারণ মানুষের সাথে মিথ্যা ধোকা প্রতারণা ভন্ডামি করে তাদের উপর নানাভাবে জুলুম শোষণ করে যাচ্ছে, সাধারণ মানুষকে নানাভাবে তাদের ক্রীতদাসে রূপান্তর করছে, তাদেরকে অন্ধভাবে বিশ্বাস করে নিজেদের জীবনকে বিষাক্ত অভিশপ্ত করবেন না। সদা সর্বদা সবসময় সত্যের পক্ষে থাকুন। আর এই পৃথিবীতে সর্বোচ্চ পর্যায়ের সত্য হচ্ছে মনুষত্ব,ন্যায় বিচার, কল্যাণ, মানবতা, শান্তি। অথচ আজ এই পৃথিবীতে সত্তিকারের মনুষ্যত্ব ন্যায় বিচার কল্যাণ মানবতা শান্তি নেই। এরা নানাভাবে সাধারণ মানুষদের মানব অধিকার, মানব স্বাধীনতা এবং বাক স্বাধীনতাকে নানাভাবে ধ্বংস করছে। বড় বড় মিথ্যুক ভন্ড প্রতারক ধোকাবাজ শোষক জালেম - মানুষের রূপ ধারী অমানুষরা আজ মুখে মুখে মনুষত্ব ন্যায় বিচার শান্তির কথা বলে, অথচ তারাই এই পৃথিবীতে তাদের নিজস্ব লোভ স্বার্থ শয়তানি ক্ষমতার জন্য ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে নানাভাবে অশান্তি সৃষ্টি করছে। আপনি যতই এদেরকে সহযোগিতা করবেন এরা ততোই শক্তিশালী হয়ে নানাভাবে আপনার উপর শোষণ-নির্যাতন করবে। সাধারন জনগন যদি এদের ক্ষতিকর কর্মকাণ্ড গুলোকে বন্ধ করতে বাধ্য না করে তাহলে কখনই তারা এ থেকে নিজেদেরকে বিরত রাখবে না। সুতরাং এদেরকে সকল ধরনের সাহায্য সহযোগিতা করা বন্ধ করুন, না হলে সর্বোচ্চ পর্যায়ের ক্ষতিগ্রস্ত হবেন আপনি।
    Total Reply(0) Reply
  • Dadhack ২২ জুলাই, ২০২১, ১:০১ পিএম says : 0
    আপনি যা লিখেছেন সবই 100% কারেক্ট স্বাধীনতার আগে আমাদের মত বৃদ্ধ মানুষরা দেখেছে যে আমরা আমাদের সমাজে এরকম ভন্ড পাষণ্ড নরপিচাশ গুন্ডা চাঁদাবাজ, গুম কারী, গণহত্যাকারী, আমাদের ট্যাক্সের লক্ষ কোটি হাজার লুটপাটকারী ছিলনা...দেশ স্বাধীন হওয়ার পরেই পাকিস্তানি বাহিনীর থেকেও আমাদের সরকার পাষণ্ড নরপিচাশ হয়ে যায় তারা কথায় কথায় মানুষকে হত্যা করতো করতো এমন ভাবে টর্চার কোরতো করতে করতে মেরে ফেলত ধর্ষণ করতো মানুষের সম্পদ লুণ্ঠন কত আরো কত কাজ করতো তা বলতে গেলে একটা বই হয়ে যাবে আমরা এখন চিন্তা করি কেন আমরা স্বাধীন করলাম আমরা তো এখন আওয়ামী লীগের কাছে পরাধীন এবং ইন্ডিয়ার কাছে পরাধীন তারা আমাদেরকে জঘন্যভাবে শাসন শোষণ করেই যাচ্ছে...এর একমাত্র কারণ হচ্ছে যে আমরা আল্লাহর আইন চাই না সেই জন্যই আল্লাহ আমাদের উপর পাষণ্ড নরপিচাশ শাসন চাপিয়ে দিয়েছেন যতদিন পর্যন্ত আমরা আল্লাহর আইন এর জন্য সংগ্রাম না করব ততদিন পর্যন্ত আমরা এদের হাতে নিষ্পেষিত হতেই থাকবো.
    Total Reply(0) Reply
  • Ashik a Rasul Khurrom ২২ জুলাই, ২০২১, ৩:৪৩ পিএম says : 0
    Bortoman sorkar ja krce ta khubi vlo krce sk Hasina ekjon priyo o joggo netree
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: খুলনা


আরও
আরও পড়ুন