Inqilab Logo

বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭ আশ্বিন ১৪২৮, ১৪ সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

চাঁদপুরে হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট : বাড়ছে মৃত্যু

চাঁদপুর থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০২১, ৩:৪৩ পিএম

করোনা আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা কয়েকগুণ বেড়ে যাওয়ায় চাঁদপুর ২৫০ শয্যার সরকারি জেনারেল হাসপাতালে অক্সিজেন সংকট দেখা দিয়েছে। ঈদের আগের দিন থেকেই এ সমস্যা হচ্ছে বলে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ জানায়।

এদিকে, শনিবার ও রোববার এ হাসপাতালে আইসোলেশনে থাকা ১৪ জন মারা গেছেন। তাদের মধ্যে 8 জন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন। ৪ জনের নমুনা সংগ্রহ করে রিপোর্টের অপেক্ষায়। বাকি দুজনের নমুনা সংগ্রহ করা হয়নি। তবে সবাই করোনার জটিল উপসর্গ নিয়ে ভুগছিলেন।
এছাড়া সোমবার(২৬ জুলাই) ১২০ বেডের আইসোলেশন ইউনিটে রোগী আছেন ১৭৫ জনের মতো। রোগীর চাপে ঠাসা চাঁদপুর সদর হাসপাতাল।

করোনা ডেডিকেটেড চাঁদপুর জেনারেল হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. হাবিব উল করিম বলেন, ‘অক্সিজেন সংকট তেমন বেশি না, মাঝে মাঝে সমস্যা হয়। রোগী বেড়ে যাওয়ার কারণে এ সমস্যা হচ্ছে।

অক্সিজেন সরবরাহ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘গত ১৫ জুলাই থেকে আবুল খায়ের গ্রুপ অক্সিজেন দিচ্ছে। এছাড়া কুমিল্লা থেকে প্রতিদিনই অক্সিজেন সিলিন্ডার রিফিল করে আনা হচ্ছে। এরপরও সমস্যা হয়ে যাচ্ছে। অক্সিজেন সংকট কিছু সময়ের জন্য হলেও তা খুব বেশি না। হাসপাতালে বর্তমানে ২৪০টি অক্সিজেন সিলিন্ডার ব্যবহার করা হচ্ছে। যার মধ্যে ১৮০টি বড় এবং ৬০টি ছোট সিলিন্ডার।’

তিনি আরও জানান, স্পেকট্রার মাধ্যমে নির্মিত সদর হাসপাতালের অক্সিজেন প্লান্ট পুরোপুরি প্রস্তুত। তবে লিকুইড অক্সিজেন আসতে দেরি হওয়ার কারণে তা চালু করা যাচ্ছে না। সারাদেশের ৩০টি লিকুইড অক্সিজেন প্লান্ট এখনও চালু করা যায়নি। অক্সিজেন পেলে এগুলো চালু হবে।

সিভিল সার্জন ডা. মো. সাখাওয়াত উল্লাহ বলেন, ‘রোগী যে হারে বাড়ছে, তাতে এখন অক্সিজেন সংকট দেখা দিয়েছে। উপজেলা হাসপাতালে করোনা বেড থাকার পরেও সেসব এলাকার রোগীরা ২৫০ শয্যা হাসপাতালমুখী হচ্ছেন। সদর হাসপাতালে মাঝে মাঝে অক্সিজেন মজুত কমে যায়। অনেক সময় সিলিন্ডার খালি হয়ে যায়। রাতে কিছুটা সংকট মাঝে মাঝে দেখা দেয়। আবার রিফিল করলে ঠিক হয়ে যায়। একটা সিলিন্ডার তিন থেকে চার ঘণ্টার মধ্যেই শেষ হয়ে যায়। নবনির্মিত লিকুইড অক্সিজেন প্লান্ট চালু হয়ে গেলে এ সমস্যা কেটে যাবে। সহসাই এটি চালু হয়ে যাবে বলে নির্মাতারা জানিয়েছেন।’

তিনি জানান, চাঁদপুরে করোনা পরিস্থিতি দিন দিনই অবনতি হচ্ছে। গড়ে এখন ৩শ’র উপরে নমুনা নেওয়া হচ্ছে। গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় পাঁচ জন হাসপাতালে মারা গেছেন।
এ যাবৎ জেলায় ৮ হাজার ১শ’ ৩৭ জন আক্রান্ত। গত কয়েকদিনে আক্রান্তের হার ৪৫ থেকে ৫৫ শতাংশ। জেলার ভেতরে মারা যাওয়ার সংখ্যা এ পর্যন্ত ১৫৮জন। তাছাড়া চাঁদপুরে বাড়ি কিন্তু ঢাকা বা অন্য কোথায়ও মারা গেছেন আরও ১৯৩ জন। সেই হিসাবে জেলার ৩৫১ জন অধিবাসী করোনায় মারা গেছেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনা

২০ সেপ্টেম্বর, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ