Inqilab Logo

রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

চাঞ্চল্যকর বাংলাদেশী-ব্রিটিশ নাগরিক শাহনূর হত্যাকাণ্ডে ৬ জনের কারাদণ্ড!

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৬ জুলাই, ২০২১, ৮:৩৮ পিএম

বাংলাদেশী-ব্রিটিশ নাগরিক ১৬ বছরের কিশোর শাহনুর হত্যাকাণ্ডের প্রধান আসামি ১৮ বছরের ইগনাস স্টরিলাকে ১৭ বছরের জেল দিয়েছেন ব্রিটেনের একটি আদালত। এছাড়া ১৮ বছরের সাদিক আবু বকর ও ১৯ বছরের ইউসুফ জান্নেহকে ১৫ মাস, ১৮ বছরের নিক জানারোসকাসকে ১ বছর, ১৯ বছরের ইব্রাহীম খামিসকে ১৪ মাস ও ১৯ বছরের মাইকেল ম্যান্ডসকে ১১ মাস কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।–আল জাজিরা

গত বছরের মার্চে ১৬ যুক্তরাজ্যের বেকটনে ব্রিটিশ বাংলাদেশি কিশোর শাহনুর আহমেদকে হত্যা করা হয়। চাঞ্চল্যকর সেই হত্যাকাণ্ডে সম্প্রতি ছয় জনকে কারাদণ্ড দিয়েছেন যুক্তরাজ্যের আদালত। ঘটনাটি সম্পর্কে আদালত থেকে বলা হয়েছে, গতবছর মার্চে পূর্ব লন্ডনের বেকটন এলাকার গ্যালিয়ান রিচ ডিএলআর স্টেশনে একজন কিশোরের লাশ দেখতে পান একজন বাস চালক। আর এই মৃতদেহটি ছিলো ব্রিটিশ বাংলাদেশি কিশোর শাহনুরের। পুলিশ লাশ উদ্ধারের পর দ্রুত তদন্তে নামেন। এতে দুই কিশোর গ্রুপের সহিংসতার সঙ্গে শাহনুর হত্যার যোগসূত্র খুঁজে পান তদন্তকারীরা।

সেখানে একটি সিসিটিভি ফুটেজেরও সন্ধান পান তারা। যেখানে দেখা যায় পাঁচজন মিলে একজন কিশোরকে মারধর করছে। মারধরের ফুটেজটি ৩ মার্চ বিকেল ৪টা ৫৫মিনিটের। একই দিন রাত ৮টার দিকে দুই গ্রপের সদস্যদের গ্যালিয়ন রিচ ডিএলআর স্টেশনে দেখেন একজন বাস চালক। বাসের বাইরের ক্যামেরার ফুটেজে দেখা যায়, ছয় জন মিলে অন্য এক কিশোর গ্রুপকে ধাওয়া করছে। ওই গ্রুপে শাহনুরও ছিলো। ফুটেজে আরও দেখা যায়, শাহনুরকে তাড়া করার সময় প্রধান আসামি স্টরিলার হাতে ছুরি ছিলো। পুলিশের তদন্তে জানা যায়, কাছে রাখা একটি সাইকেল থেকে প্যাডল খুলে নিয়ে সেটি দিয়েই শাহনুরকে নির্যাতন করা হয়।

আর মাথায় আঘাতের কারণে শাহনুরের মৃত্যু হয়েছে বলে তদন্তে বেরিয়ে আসে। বিষয়টি নিয়ে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা লরেন্স স্মিথ বলেন, হত্যার সময় শাহনুরের বয়স ছিলো ১৬ বছর। কিশোরদের নৃশংসতায় শাহনূরের সব সম্ভাবনা মাটিতে মিশে গেছে। দুই গ্রুপের চলমান দ্বন্দ্বে এই দু:খজনক ঘটনা ঘটে। যা একটি পরিবারকে দুঃখের সাগরে ভাসিয়ে দিয়েছে। তাদের এই ক্ষতিপূরণ হবে না। উল্লেখ্য, শাহনূরের বাংলাদেশে বাড়ি হচ্ছে সিলেট বিভাগের মৌলভীবাজার জেলার জুরী উপজেলায়।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সিলেট


আরও
আরও পড়ুন