Inqilab Logo

রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

ভ্যাকসিন ছাড়া ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞায় অনেক দেশ

ভ্যাকসিন পাসপোর্ট আইন অনুমোদন ফ্রান্স পার্লামেন্টে

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জুলাই, ২০২১, ১২:০০ এএম

ভ্যাকসিন ছাড়া ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞার আওতায় অনেক দেশ। ভ্যাকসিন পাসপোর্ট ছাড়া কোথাও ভ্রমণ করা যাবে না, যাওয়া যাবে না পাবলিক প্লেসে, এমনকি ওঠা যাবে না ফ্লাইটেও। কোন কোন দেশ শিক্ষার্থীদের স্কুলে নিয়ে যাওয়া অভিভাবকদেরও ভ্যাকসিন নেয়া বাধ্যতামূলক করেছে। আবুধাবী ভ্যাকসিন ছাড়া সব ধরনের পাবলিক প্লেসে চলাচলের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। কার্যকর হবে আগামী ২০ আগস্ট থেকে। এক টুইট বার্তায় বলা হয়েছে, ১৫ লাখ মানুষের শহর আবুধাবীতে টার্গেট গ্রæপের ৯৩ শতাংশকে ভ্যাকসিন প্রদানের পর থেকে স্কুলসহ সুপার মার্কেট, জনসমাগমস্থলে ভ্যাকসিনহীন লোকদের প্রবেশ নিষিদ্ধ হবে। পাকিস্তান তার অভ্যন্তরীণ রুটে ভ্যাকসিন না নেয়া ব্যক্তিদের ভ্রমণের ওপর নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। তবে শিশুদের ক্ষেত্রে এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ হবে না। এছাড়া আংশিক ভ্যাকসিন গ্রহিতা, বিদেশী নাগরিক, বিদেশে ভ্যাকসিন গ্রহণের প্রমাণ থাকা ব্যক্তি এবং রোগে শয্যাশায়ী ব্যক্তিদের ক্ষেত্রেও এ নিষেধাজ্ঞা থাকবে না বলে জানিয়েছে পাকিস্তানের সরকারি সূত্র।
এদিকে নভেল করোনাভাইরাস (কোভিড-১৯) মোকাবিলার অংশ হিসেবে নিত্যদিনের চলাচলে ভ্যাকসিন পাসপোর্ট আইন অনুমোদন করেছে ফ্রান্সের পার্লামেন্ট। ভ্যাকসিন পাসপোর্ট আইনের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ-বিক্ষোভের মধ্যেই গত রোববার ফরাসি পার্লামেন্টের উচ্চ ও নিম্নকক্ষের আইনপ্রণেতাদের মধ্যে সমঝোতার ভিত্তিতে আইনটি অনুমোদিত হয়। গত সপ্তাহে ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল ম্যাখোঁ ‘স্বাস্থ্য পাস’-এর বিষয়ে নির্দেশ জারি করেন। এতে বলা হয়, সিনেমা কিংবা নাইটক্লাবের মতো জায়গা, যেখানে ৫০ জনের বেশি লোক জড়ো হবে, সেখানে এই পাস লাগবে।
এছাড়া আগস্ট থেকে উড়োজাহাজে ভ্রমণ ও আন্তঃট্রেন ভ্রমণেও এ পাস বাধ্যতামূলক করা হচ্ছে। স্বাস্থ্য পাসে টিকার সবগুলো ডোজ সম্পর্কে এবং করোনা নেগেটিভের তথ্য থাকবে। ম্যাখোঁর এমন ঘোষণার মধ্য দিয়ে ফরাসি সরকারের করোনা মোকাবিলায় টিকাকেই প্রধান হাতিয়ার হিসেবে গণ্য করার বিষয়টি উঠে এসেছে।
তবে, ভ্যাকসিন পাসপোর্ট নিয়ে পার্লামেন্টে বিতর্ক চলে। কেউ কেউ একে নাগরিক স্বাধীনতার ওপর হস্তক্ষেপ হিসেবে বিবেচনা করেন। রোববার তিন ঘণ্টা ধরে পার্লামেন্টের উভয় কক্ষের সদস্যদের মধ্যে এ নিয়ে ব্যাপক আলোচনা চলে। শেষ পর্যন্ত তারা সমঝোতায় পৌঁছালে ভোটাভুটি হয়। আইনটির পক্ষে ভোট পড়ে ১৫৬ এবং বিপক্ষে ৬০। ভোট দেওয়া থেকে বিরত থাকেন ১৪ জন। তবে, চ‚ড়ান্তভাবে এটি আইনে পরিণত হতে ফ্রান্সের সর্বোচ্চ প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ সাংবিধানিক পরিষদের অনুমোদন লাগবে। সূত্র : এএফপি, সিএনএ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ