Inqilab Logo

রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

আজ পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন সউদী পররাষ্ট্রমন্ত্রী

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ২৭ জুলাই, ২০২১, ১২:০০ এএম

সউদী পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রিন্স ফয়সাল বিন ফারহান আল সউদ আজ মঙ্গলবার পাকিস্তান সফরে যাচ্ছেন। এই সফরে তিনি পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কুরেশির সাথে দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কের পাশাপাশি ‘আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ইস্যু’ নিয়ে আলোচনা করবেন। গতকাল পাকিস্তানের পররাষ্ট্র দফতর (এফও) এক বিবৃতিতে এই তথ্য জানিয়েছে।
বিবৃতিতে পররাষ্ট্র দফতরের পক্ষ থেকে বলা হয়, ‘দু’দেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী পাক-সউদী সম্পর্ক এবং আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ইস্যু নিয়ে মত বিনিময় করবেন। সউদী কর্মকর্তা তার সফরে পাকিস্তানের অন্যান্য গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের সাথেও সাক্ষাত করবেন।’ রেডিও পাকিস্তানের খবরে বলা হয়েছে, যুবরাজ ফয়সালের সাথে সউদী সরকারের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সমন্বয়ে একটি প্রতিনিধি দল থাকবেন। পররাষ্ট্র দফতরের মুখপাত্র জাহিদ হাফিজ চৌধুরীকে উদ্ধৃত করে খবরে বলা হয়, পাকিস্তান ও সউদী আরব ‘দীর্ঘস্থায়ী ও ঐতিহাসিক ভ্রাতৃত্বপূর্ণ সম্পর্ক, সাধারণ বিশ্বাস, অংশীদারিত্বের ইতিহাস এবং পারস্পরিক সহায়তায় আবদ্ধ। এই সম্পর্ক সকল ক্ষেত্রে নিবিড় সহযোগিতা এবং আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক ইস্যুতে পারস্পরিক সহযোগিতার দ্বারা চিহ্নিত।’ চৌধুরী আরও উল্লেখ করেছেন যে, সউদী আরব, কাশ্মীর সম্পর্কিত ইসলামিক সহযোগিতা সংস্থার সংগঠনের সদস্য হিসাবে ‘কাশ্মীরের উদ্দেশ্যকে দৃঢ়ভাবে সমর্থন করেছিল। তিনি সউদী কর্মকর্তাদের ‘ঘন ঘন উচ্চ পর্যায়ের সফর’ কথা উল্লেখ করে বলেন যে ‘সম্পর্কের মূল বৈশিষ্ট্য যা পাকিস্তান এবং সউদী আরবের মধ্যে সম্পর্ককে আরও অবিচ্ছিন্ন মাত্রায়, আরও গভীর ও বিস্তৃত করতে সাহায্য করে।’
সউদী আরবের পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এই সফরের প্রায় এক সপ্তাহ আগে ৬২ জন পাকিস্তানী বন্দিকে বিশেষ বিমানের মাধ্যমে সউদী আরব থেকে প্রত্যাবাসন করা হয়েছে। পূর্ববর্তী প্রতিবেদন অনুসারে, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান হস্তক্ষেপে তাদের প্রত্যাবাসনের জন্য তহবিলের ব্যবস্থা করার পরে বন্দীদের তাদের দেশে ফিরিয়ে আনা হয়েছিল। এই ঘোষণা দিয়ে ইমরান খান টুইটে জানিয়েছিলেন যে, ‘আমার নির্দেশে তহবিলের ব্যবস্থা করা হয়েছিল এবং একটি বিশেষ বিমান সউদী আরব থেকে ৬২ জন বন্দিকে ফিরিয়ে এনেছে, যাতে তারা পরিবারের কাছে ফিরে যেতে পারেন।’
এর আগে গত মে মাসে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর তৎকালীন পররাষ্ট্র বিষয়ক বিশেষ সহকারী ঘোষণা দিয়েছিলেন যে, ইসলামাবাদ ও রিয়াদ সউদী আরবের কারাগারে বন্দী থাকা ২ হাজারেরও বেশি পাকিস্তানি বন্দিকে স্বদেশে প্রত্যাবাসনের জন্য একটি চুক্তি করেছে। ডনের একটি প্রতিবেদনে জানানো হয়েছিল যে, প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সউদী আরব সফরের সময় একই মাসে প্রধানমন্ত্রী যে চুক্তির কথা বলছিলেন তা স্বাক্ষরিত হয়েছিল। এছাড়াও, পাকিস্তান সরকার প্রতি সউদী আরব থেকে প্রতি বছর ১৫০ কোটি ডলারে তেল সুবিধা পাওয়া যাবে বলে ঘোষণা দিয়েছিল। সূত্র : ডন।



 

Show all comments
  • Imdad Hussain Khan ২৭ জুলাই, ২০২১, ৫:২১ এএম says : 0
    অত্যন্ত স্বাভাবিক ঘঠনা মনেকরি। কারন বন্ধু কিংবা শত্রু,( সেটা ব্যক্তিগত, পারিবারিক, কিংবা রাষ্ট্রীয়) কোনটাই চিরস্থায়ী হয়না, হতে পারেনা।
    Total Reply(0) Reply
  • Habib Choudhury ২৭ জুলাই, ২০২১, ৫:২২ এএম says : 0
    পাকিস্তান তুরস্কের সাথে সম্পর্ক উন্নয়ন করছে। তুরস্কের সাথে সৌদি আরবের শীতল সম্পর্ক অনেক পুরনো।
    Total Reply(0) Reply
  • Imran Selim ২৭ জুলাই, ২০২১, ৫:২৩ এএম says : 1
    পৃথিবীর সব দেশ আমেরিকা এবং চায়না দুটি ব্লকে ভাগ হতে যাচ্ছে। এর বাইরে কারো কোনো জোড়ালো সম্পর্ক থাকবে না। পাক-সৌদি সম্পর্ক তারই ধারাবাহিকতা।
    Total Reply(0) Reply
  • Krishna Mazumder ২৭ জুলাই, ২০২১, ৫:২৩ এএম says : 1
    বিশ্ব যে দুই মেরুতে ভাগ হয়েগেছে তা স্পষ্ট। বর্তঅমানে ন্যাটোর কোন গুরত্ব নেই।
    Total Reply(0) Reply
  • MD Jahurul Islam ২৭ জুলাই, ২০২১, ৫:২৪ এএম says : 0
    বর্তমানে ইমরান খান পাকিস্তানের সরকার সঠিক রাস্তা আছে
    Total Reply(0) Reply
  • Monjur Rashed ২৭ জুলাই, ২০২১, ১২:৩২ পিএম says : 0
    Charismatic Leader Imran Khan is maintaining simultaneous relationship with Iran , Turkey & Saudi Arabia.
    Total Reply(1) Reply
    • Md. Ehsan Ul Maula ২৭ জুলাই, ২০২১, ৪:৪৮ পিএম says : 0
      And of course with USA and China.
  • habib ২৭ জুলাই, ২০২১, ১০:৪২ এএম says : 0
    PM Imran Khan is the best policy maker about his country
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: সউদী আরব


আরও
আরও পড়ুন