Inqilab Logo

রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

সীমান্তে ৪ হাজার কমান্ডো মোতায়েন করবে আসাম

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩০ জুলাই, ২০২১, ১২:০৭ এএম

সীমানা নিয়ে মিজোরামের সঙ্গে আসামের দ্বন্দ্ব চরমে উঠেছে। এ ঘটনায় সোমবার দুই রাজ্যের জনতা-পুলিশ সংঘর্ষে আসামের ছয়জন পুলিশ নিহত হয়েছে। এবার নিজেদের সীমান্ত সুরক্ষায় ৪ হাজার কমান্ডো মোতায়েন করার কথা জানিয়েছে আসাম। খবর আল-জাজিরার। উভয় রাজ্যের সীমান্ত এলাকায় ওই সংঘর্ষের ঘটনায় ৬০ জনের বেশি মানুষ আহত হয়। গত কয়েক দশক ধরেই সীমানা নিয়ে রাজ্য দুটির মধ্যে দ্ব›দ্ব চলছে। মঙ্গলবার আসামের মুখ্যমন্ত্রী হিমন্ত বিশ্ব শর্মা বলেছেন, সীমান্তে ‘নতুন কমান্ডো ব্যাটালিয়ন’ মোতায়েন করা হবে। গত মাস থেকে রাজ্য দুটির মধ্যে দ্বন্দ্ব চরমে। তখন মিজোরাম অভিযোগ করে যে, তাদের সীমানায় অনুপ্রবেশ করেছে আসাম। তবে আসাম সরকার উল্টো অভিযোগ করে বলেছে যে, মিজোরামের গ্রামবাসীরা রাজ্যটির সংরক্ষিত বনের জমিতে অবৈধভাবে অনুপ্রবেশ করছে। হিমন্ত বলেন, আমরা কোনও অনুপ্রবেশ চাই না। এগুলো সংরক্ষিত বনাঞ্চল। সবাই মিলে এগুলোর সুরক্ষা দিতে হবে। আসাম-মিজোরাম সীমান্তে শান্তি এবং ভারসাম্য যাতে বজায় থাকে তা নিশ্চিত করতে হবে আমাদের। প্রয়োজনে আইনের আশ্রয় নেয়ার হুঁশিয়ারি দিয়েছেন বিজেপির এই নেতা। তিনি বলেন, ‘সংরক্ষিত বনের এক ইঞ্চিও যাতে দখল না হয়ে যায়’ সেটা নিশ্চিত করতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হবে তার সরকার। আসামের মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ওই অঞ্চলে রাস্তা নির্মাণ এবং ঝুম চাষের চিত্র ধরা পড়েছে স্যাটেলাইট ইমেজে। এদিকে সোমবারের ঘটনার জন্য আসাম পুলিশকে দায়ী করেছেন মিজোরামের মুখ্যমন্ত্রী জোরামথাঙ্গা। মিজো ন্যাশনাল ফ্রন্টের এই নেতা কেন্দ্রের শাসন ক্ষমতায় থাকা বিজেপির আঞ্চলিক মিত্র। জোরামথাঙ্গা বলেছেন, আসামের পুলিশ জোরপূর্বক একটি বর্ডার পোস্ট দখল করে নেয়। এসময় তারা নিরস্ত্র বেসামরিক ব্যক্তিদের হেনস্থা করে। এই সমস্যা সমাধানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের সাহায্য চেয়েছেন দুই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী। আল-জাজিরা।



 

Show all comments
  • Rana Ahmed ৩০ জুলাই, ২০২১, ৯:১১ এএম says : 0
    পশ্চিমবঙ্গের কলকাতা একসময় ভারতবর্ষের রাজধানী ছিল।কিন্তু আজ ভারতের শ্রেষ্ঠ ৫টি শহরের মধ্যে তার নামই নেই।তাছাড়া বাঙালিদের প্রতি ভারতের অন্যন্যা রাজ্যের একটা নেগেটিভ দৃষ্টিভঙ্গিও কাজ করে।আসামে ১৯লক্ষ বাঙালি হিন্দুর রাজনৈতিক অধিকার লোপ।এমনকি আসামে বাঙালিদের প্রতি সন্দেহের চোখে দেখা হয়।।।সংস্কৃতি, ভাষা, নিজস্ব জাতীয়তাবোধ আজ বিলুপ্তের পথে!!!!আফসোস ইচ্ছা করলে একসময় পশ্চিমবঙ্গের বাঙালিরা নিজেদের স্বকীয়তা বজায় রেখে বিশ্ব রাজনীতিতে ভূমিকা পালন করতে পারতো!!!
    Total Reply(0) Reply
  • Mijan Bin Saeed ৩০ জুলাই, ২০২১, ৯:১১ এএম says : 0
    আজ হোক কাল হোক ভারত ভাঙ্গবেই। কেন্দ্রীয় শাসনব্যবস্থা বৈষম্যমুলক। বেশকিছু রাজ্যের প্রতি কেন্দ্রের বিমাতাসুলভ শাসনে বিরক্ত রাজ্যের জনগণ। অনুন্নত রাজ্যগুলোকে শোষণ করেই ভারতের অর্থনীতি চললেও উন্নয়ন হয় না সেসব রাজ্যে।
    Total Reply(0) Reply
  • Ibrahim Al Hasan ৩০ জুলাই, ২০২১, ৯:১২ এএম says : 0
    এ ২টা রাজ্য আমাদের বাংলাদেশের সাথে যুক্ত করে দেওয়া হোক...
    Total Reply(0) Reply
  • Masud Rana ৩০ জুলাই, ২০২১, ৯:১২ এএম says : 0
    এর কারণ ইন্ডিয়াতে সম বন্টন বলতে কিছুই নাই হিন্দি ভাষি রাজ্য গুলা বেশী সুবিধা নেয় অন্য রাজ্য গুলা তেমন সুবিধা পায় না সেই রাগের বহিঃপ্রকাশ
    Total Reply(0) Reply
  • Razaul Karim ৩০ জুলাই, ২০২১, ৯:১২ এএম says : 0
    ভারতে রাজ্য বেশি হয়ে গেছে,ভাগ এখন সময়ের দাবী।কি এক আজব দেশ,এক প্রদেশ আরেক প্রদেশের কথা বোঝেনা।যাদের নিজের কোন রাষ্ট্র ভাষা নাই।
    Total Reply(0) Reply
  • Saiful Samiur ৩০ জুলাই, ২০২১, ৯:১২ এএম says : 0
    আলাদা জাতি গোষ্ঠীর এত বড় বড় অঞ্চল গুলোকে ভারত আবেগ দিয়ে আটকে রেখেছে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ