Inqilab Logo

শনিবার, ০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৮ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিতের জন্য বই ও পত্রিকার ব্যবস্থা করলেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোমেন

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩১ জুলাই, ২০২১, ৭:৩৯ পিএম

করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে ঢাকা সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) চিকিৎসাধীন সাবেক অর্থমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় উপদেষ্টা মণ্ডলীর সদস্য আবুল মাল আবদুল মুহিতের শারীরিক অবস্থা স্থিতিশীল রয়েছে। গত বুধবার (২৯ জুলাই) তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশনায় তাকে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়।

সাবেক অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের চিকিৎসার বিষয়টি সার্বক্ষণিক তদারকি করছে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়। শুক্রবার (৩০ জুলাই) পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল মোমেন তার বড় ভাই মুহিতের সঙ্গে সাক্ষাত করতে সিএমএইচে যান। কিন্তু করোনা রোগীর সংখ্যা বেশি থাকায় হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পররাষ্ট্রমন্ত্রীকে তার ভাইয়ের সঙ্গে দেখা করার অনুমতি দেননি। পরে সিএমএইচ কর্তৃপক্ষ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে দুই ভাইয়ের মধ্যে কথা বলার সু্যোগ করে দেন। এভাবে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. মোমেন বড় ভাই সাবেক অর্থমন্ত্রী মুহিতের সঙ্গে কিছুক্ষণ কথা বলেন।

মুহিত শারীরিক অবস্থা অবহিত করার সময় দুটি অভিযোগের কথাও জানান ছোট ভাই মোমেনকে। একটি হলো- হাসপাতালে আসার পর তিনি কোনো পত্রিকা পাচ্ছেন না। আর অপরটি, হাসপাতালে তার কোনো বই নেই। ফলে হাসপাতালে তার সময় কাটাতে কষ্ট হচ্ছে। এসব অভিযোগ শুনে বড় ভাই এম এ মুহিতকে আশ্বস্ত করেন ড. মোমেন। শনিবার (৩১ জুলাই) বিকেলে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. এ কে আব্দুল মোমেন‌‌ ঢাকা পোস্টকে বলেন, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আলাপ করে আজ সকালে বড় ভাই মুহিতের জন্য চারটি জাতীয় পত্রিকা ও চারটি বই পাঠিয়েছেন। এতে তিনি মহা খুশি।

তিনি বলেন, এভাবে তিনি যতদিন হাসপাতালে থাকবেন ততদিন দৈনিক পত্রিকা পাঠানো হবে। হাসপাতালে গিয়েও বই পড়ার প্রতি এ এম এ মুহিতের যে টান সেটা একটি বিরল দৃষ্টান্ত। গত ২৫ জুলাই করোনা পরীক্ষার জন্য নমুনা দেন তিনি। করোনার পরীক্ষার ফলাফলে পজিটিভ আসে তার। একইসঙ্গে করোনায় আক্রান্ত হয়েছেন তার বড় ছেলে শাহেদ মুহিতও। তবে শাহেদের শারীরিক অবস্থা এখন পর্যন্ত মোটামুটি ভালো। তিনি চিকিৎসাধীন আছেন। আবুল মাল আবদুল মুহিতের সুস্থতার জন্য দেশবাসীর কাছে দোয়া কামনা করেছেন তার ভাই পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন