Inqilab Logo

রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

আসামে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেয়ার হিড়িক

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ১ আগস্ট, ২০২১, ৭:২১ পিএম

তৃণমূলের নজরে এখন বাঙালি অধ্যুষিত উত্তর-পূর্বের পাহাড়ি রাজ্য। ২০২৩ সালে ভোট হলেও, এখন থেকেই সেখানে রাজনৈতিক জমি শক্ত করার কাজে নেমে পড়েছে জোড়াফুল শিবির। ইতিমধ্যে সেখানে গিয়ে সমীক্ষার কাজও একপ্রস্থ এগিয়ে ফেলেছে ভোট কুশলী প্রশান্ত কিশোরের সংস্থা আইপ্যাক। তৃণমূল নেতৃত্বও ত্রিপুরা সফর শুরু করে দিয়েছেন। এই অবস্থায় তৃণমূলের সংগঠন আরও শক্তিশালী হচ্ছে বিজেপি, কংগ্রেস, সিপিএম থেকে নেতা-কর্মীদের যোগদানের ফলে।

বৃহস্পতিবার তৃণমূলে যোগ দিয়েছেন বিশিষ্ট রাজনীতিবীদ তথা সাবেক বিধায়ক সুবল ভৌমিক, সাবেক মন্ত্রী প্রকাশ চন্দ্র দাস। এছাড়াও পান্না দেব, প্রেমতোষ দেবনাথ, বিকাশ দাস, তপন দত্ত, মহম্মদ ইদ্রিশ সহ একাধিক বর্ষীয়ান নেতা শামিল হয়েছেন তৃণমূলের পতাকাতলে। বিজেপি ছেড়ে আরও যোগদান অপেক্ষা করছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন তৃণমূলের শীর্ষ নেতৃত্ব। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় দিন কয়েকের মধ্যে ত্রিপুরা যাওয়ার কথা রয়েছে। তার উপস্থিতিতে বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে বড়সড় যোগদান হবে বলে দলীয় সূত্রে খবর। আর এই প্রেক্ষাপটে দলবদলের ইঙ্গিত মিলেছে ত্রিপুরার রাজনীতিতে অতি পরিচিত মুখ সুদীপ রায়বর্মনের ফেসবুক পোস্টে। তিনি লিখেছেন, রাগ-হতাশা অথবা আবেগতাড়িত হয়ে চটজলদি নেয়া কোনও সিদ্ধান্ত জাতীয়তাবাদ বিরোধী শক্তির হাতকে শক্ত করে। জাতীয়তাবাদী শক্তির সঙ্গে থাকুন। শীর্ষ নেতৃত্বের উপর ভরসা রাখুন।

এদিকে, ত্রিপুরার সংগঠনকে ঢেলে সাজাচ্ছে তৃণমূল। নতুন করে সেখানে কমিটি গঠন করা হচ্ছে। ত্রিপুরায় মহিলা সংগঠনকে শক্তিশালী করতে জোরকদমে নেমে পড়েছেন তৃণমূল মহিলা কংগ্রেসের সভানেত্রী তথা সাংসদ কাকলি ঘোষদস্তিদার। বস্তুত, সদ্য সমাপ্ত বাংলার বিধানসভা নির্বাচনে দেখা গিয়েছে, মহিলা ভোট উজাড় করে দিয়েছে তৃণমূলের বাক্সে। আগামীদিন ত্রিপুরাতেও মহিলা ভোট দলের অনুকূলে আনতে চাইছেন নেতৃত্ব। ত্রিপুরার শহর, গ্রামে মহিলা সংগঠনকেও শক্তিশালী করা হচ্ছে। তবে বিজেপি সরকারের পুলিসের বিরুদ্ধে দমন পীড়নের অভিযোগ এনেছেন কাকলি। কৈলাশহরে পুলিস দলীয় কর্মীদের হেনস্তা করেছে বলে অভিযোগ তৃণমূলের। এদিকে, তৃণমূল তরফে বলা হচ্ছে ত্রিপুরায় বাম দেখেছেন, রাম দেখেছেন, এবার দেখবেন কাজ। নেতৃত্বের বক্তব্য, ত্রিপুরার মানুষ উন্নয়ন চান। কাজ দেখতে চান। সেই কর্মযজ্ঞ শুরু করবে তৃণমূলই। সূত্র : বর্তমান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: ভারত


আরও
আরও পড়ুন