Inqilab Logo

রোববার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৪ আশ্বিন ১৪২৮, ১১ সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

যুক্তরাজ্যে ইরানি রাষ্ট্রদূতকে তলব

ইনকিলাব ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৩ আগস্ট, ২০২১, ১২:৩৯ পিএম

ওমান উপকূলে ইসরায়েলের একটি তেলবাহী জাহাজে হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে লন্ডনে নিযুক্ত ইরানি রাষ্ট্রদূতকে তলব করেছে যুক্তরাজ্য। এমনকি তেলের জাহাজটিতে হামলার ঘটনাকে এরই মধ্যে ‘ভয়াবহ’ বলে আখ্যা দিয়েছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। ভয়ঙ্কর সেই ঘটনায় তেল ট্যাংকারের দুই ক্রুও নিহত হয়েছেন। এদের মধ্যে একজন ব্রিটিশ নাগরিক এবং অন্যজন রোমানিয়ার নাগরিক।

লন্ডনভিত্তিক প্রতিষ্ঠান জোডিয়াক ম্যারিটাইমের অধীনে পরিচালিত হচ্ছিল এমভি মার্সার স্ট্রিট নামে ওই জাহাজটি। গত বৃহস্পতিবার ওই জাহাজে হামলার সময় এটি আরব সাগরের ওমান উপকূলে ছিল।

মূলত এর পরপরই তেলবাহী জাহাজে বিস্ফোরণের ঘটনায় ইরানকে দায়ী করেছে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র এবং ইসরায়েল। যদিও তেহরান শুরু থেকেই ওই হামলার বিষয়টি প্রত্যাখ্যান করে আসছে। ইসরায়েলি পররাষ্ট্রমন্ত্রী ইয়ার লাপিদ অভিযোগ করেছেন, এটি ছিল ইরানের ‘সন্ত্রাসী হামলা’।

তিনি বলেছিলেন, ইরান শুধু ইসরায়েলের সমস্যা নয়। বিশ্ব অবশ্যই নীরব থাকতে পারে না। যদিও লাইবেরিয়ান পতাকাবাহী এবং জাপানি মালিকানাধীন এই তেলবাহী জাহাজে আসলে কি ঘটেছে, তা এখনো পরিষ্কার নয়।

অপর দিকে এই হামলার পেছনে ইরানের হাত রয়েছে বলে অভিযোগ করেছেন মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী অ্যান্টনি ব্লিনকেন ও ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, যুক্তরাষ্ট্র বিশ্বাস করে ইরান এই হামলা চালিয়েছে। এর যথাযথ জবাবও তারা পাবে। অপর দিকে ব্রিটিশ পররাষ্ট্রমন্ত্রী ডমিনিক রাব দাবি করেন, তেল ট্যাংকারে আক্রমণের জন্য ইরান একাধিক ড্রোন ব্যবহার করেছে। তেহরান ইচ্ছাকৃতভাবে এবং পরিকল্পিতভাবে হামলাটি চালিয়েছে, যা আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন।

এ সময় ইরানকে এ ধরনের আক্রমণ বন্ধ এবং নির্বিঘ্নে জাহাজ চলাচলের সুযোগ দেওয়ার জন্য তিনি আহ্বান জানান।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ