Inqilab Logo

সোমবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২ আশ্বিন ১৪২৮, ১৯ সফর ১৪৪৩ হিজরী

গণটিকা কার্যক্রম পেছানোর সিদ্ধান্ত

স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০২১, ১১:২৪ এএম

সারা দেশে গণটিকার কার্যক্রম আগামী শনিবার (৭ আগস্ট) শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সে সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। তবে শনিবারই (৭ আগস্ট) পরীক্ষামূলকভাবে গণটিকার কার্যক্রম শুরু হবে। এর এক সপ্তাহ পর আগামী ১৪ আগস্ট থেকে ১৯ আগস্ট পর্যন্ত পুরোদমে চলবে গণটিকার কার্যক্রম।

বৃহস্পতিবার (০৫ আগস্ট) গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর।

পূর্বঘোষণা অনুয়াযী, ৭ আগস্ট থেকে দেশে সপ্তাহব্যাপী করোনার টিকাদান কর্মসূচি হওয়ার কথা ছিল। প্রথম দিন প্রায় ৩২ লাখ টিকা দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছিল সরকার। ইতোমধ্যে টিকা দিতে স্বাস্থ্যকর্মীদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হয়েছে।

এদিকে কোন পর্যায়ে কয়টি করে টিকাকেন্দ্র হবে, কোথায় টিকা কেন্দ্রগুলো করা হবে, তা-ও ঠিক হয়েছে। এ বিষয়ে মাঠপর্যায়ে ইতোমধ্যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে বুধবার (৪ আগস্ট) বিকেল ৪টায় অনলাইনে সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রতিটি জেলার জেলা প্রশাসক (ডিসি), সিভিল সার্জন, পুলিশ সুপার (এসপি), উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও), উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তাসহ সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা অংশ নেন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর বলেছে, প্রতিটি ইউনিয়নে সপ্তাহে দু’দিন নিয়মিত টিকাদান ঠিক রাখা হবে। এর বাইরে তিন দিন করোনার টিকা দেওয়া হবে।

কোভিড-১৯ ভ্যাকসিন ব্যবস্থাপনা টাস্কফোর্স কমিটির সদস্য সচিব ডা. মো. শামসুল হক জানান, একেক দিন প্রায় ৩২ লাখ ৩০ হাজার ৬০০ জনকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্য ঠিক করা হয়েছে। কর্মসূচির প্রথম দিন এ পরিমাণ টিকাই দেওয়া হবে। সারা দেশে ৮১ হাজার ১৬৫ জন স্বাস্থ্যকর্মী ও স্বেচ্ছাসেবী এ কাজে নিয়োজিত।

গত কয়েক দিন ধরে দিনে তিন লাখের মতো করোনার টিকা দেওয়া হচ্ছে। ইউনিয়ন পর্যায়ে টিকা দিতে কেন্দ্র থাকবে প্রায় ১৪ হাজার।

এর আগে ১ আগস্ট স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, ৭ থেকে ১৪ আগস্টের মধ্যে সরকার ১ কোটি টিকা দিতে চায়। সরকারের হাতে এখন প্রায় সোয়া কোটি টিকা আছে। আরও এক কোটির মতো টিকা এ মাসের মধ্যেই আসবে।

দেশে প্রথম করোনার টিকা আসে গত ২১ জানুয়ারি। এরপর গত ৭ ফেব্রুয়ারি গণটিকাদান শুরু হয়। এরপর টিকা রপ্তানি বন্ধ করে দেওয়ায় দেশের টিকা কার্যক্রম গতি হারিয়েছিল। তবে চীন, যুক্তরাষ্ট্র ও জাপান থেকে টিকা আসায় এ কার্যক্রম আবার গতি পেয়েছে।

এখন পর্যন্ত ভারত, যুক্তরাষ্ট্র, চীন ও জাপান মিলিয়ে মোট টিকা এসেছে ২ কোটি ৫৬ লাখ ৪৩ হাজার ৯২০টি।

এ পর্যন্ত প্রথম ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে ১ কোটি ৯ হাজার ৯৫৩ জনকে। আর দুই ডোজ টিকা দেওয়া হয়েছে ৪৪ লাখ ১৬ হাজার ১৩১ জনকে। দেশের ৮০ শতাংশ মানুষকে টিকা দেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে এগোচ্ছে সরকার। এতে প্রয়োজন হবে প্রায় ২৬ কোটি টিকা।



 

Show all comments
  • ম নাছিরউদ্দীন শাহ ৫ আগস্ট, ২০২১, ২:৫০ পিএম says : 0
    আপনার হাতে কি পরিমাণ টিকা আছে? একজন দুটো টিকা দিলে ৩৬ কোটি। ইতিমধ্যে লক্ষ লক্ষ মানুষ টিকা প্রাপ্তীর জন্যে রেজিষ্ট্রেশন করিয়েছিলেন। সপ্তাহের পর পর সপ্তাহ কোন খবরাখবর নেই। আমার আর পরিবারের এক মাসের কাছাকাছি নিবন্ধন করিয়েছি খবর নেই। জরুরী লক্ষ লক্ষ নিবন্ধনপ্রাপ্তির টিকাপাওয়া। গনটিকা প্রযোজন প্রতিটি মানুষের টিকা পাওয়ার জন্যে সরকারের আন্তরিকতার অভাব নেই। গনটিকার কর্মসূচি কখন দিবেন। দেশের আইডি কার্ডধারী আটার বসরের উদ্ধে সকল নারী পুরুষের টিকা পাওয়ার পর। অথবা সরকারের কাছে বিশালাকার টিকা সংরক্ষিত থাকলেই গনটিকার আযোজন করা যায় ইত্যাদি। ঢাকা চট্টগ্রাম শনাক্তকরণের যেই চিত্র প্রায়৩৫% শতাংশের কাছাকাছি এই এলাকা রেডজুন এখানেই জরুরী গনটিকার প্রযোজন মানুষের জীবনের স্বার্থে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বিভিন্ন উপহারসামগ্রী মত টিকা দিচ্ছেন। টিকা ক্রয়ের আন্তরিকতা অভাব ক্ষুদ্রতম নেই। পরিকল্পনার মারাত্মক ঘাটতি অভাবের কারণে চট্টগ্রামের মত গুরুত্বপূর্ণ কভিট আক্রান্ত এলাকায় এক সপ্তাহের কর্মসূচি বন্ধ হয়ে একদিনের হলো কেন??অত‍্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ টিকার কর্মকাণ্ড এটি হঠাৎই গনটিকা কর্মসূচি মাইকিং হলো কেন?লক্ষ লক্ষ টিকা প্রাপ্তীর নিবন্ধনকৃত মানুষের টিকা শৃংখলার মাঝেই কি দেওয়া যেতনা? এখন কি হবে টিকা দিবেন দুইশত বা অধিক মানুষের লাইন হবে শত শত হাজার মতই স্থানীয় জনপ্রতিনিধিদের গালগল্প শুনতে হবে। সমালোচকদের সরকারের বিরুদ্ধে সমালোচনা করবে বিভিন্ন ভাবে।মহামারীতে পৃথিবীর প্রতিটি দেশের মানুষ কমবেশি আক্রান্ত প্রায় অদ‍্যকোটি কাছাকাছি মানুষ মৃত্যু বরণ করেছে আন্তর্জাতিক সম্প্রদায় বিভিন্ন দেশ বিভিন্ন ভাবে দিচ্ছেন টিকা দিচ্ছেন আমাদের এই গুলো দায়িত্বশীল বন্টন শৃংখলা জরুরী। গনটিকা দেওয়ার আগে লক্ষ লক্ষ বৃদ্ধ নারী পুরুষের দিকে নজর দিতে হবে। নিবন্ধন কৃত মানুষের টিকা নিশ্চিত করতে হবে। দায়িত্বশীল মানুষ গুলো পরিকল্পনা অনুযায়ী কাজ করতে হবে। শৃংখলা বিরাট সম্পদ। ( জনস্বার্থে) সরকারের আন্তরিকতার অভাব নাই। চরম বিশ্বাসঘাতকতা ভারতের সিরাম আমাদের সরকারের কাছ থেকে অগ্রিম টাকা নিয়েও টিকা দিলেন না। এই বিশ্বাসঘাতকতা চরম মূল্য দিতে হচ্ছে সরকার কে।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: করোনাভাইরাস


আরও
আরও পড়ুন