Inqilab Logo

বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৭ আশ্বিন ১৪২৮, ১৪ সফর ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

দাবানলের গ্রাসে তুরস্কের বিদ্যুৎ উৎপাদন কেন্দ্র, সরানো হলো কর্মকর্তাদের

অনলাইন ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৫ আগস্ট, ২০২১, ২:০৫ পিএম

দাবানল ভয়ংকর হয়ে উঠেছে তুরস্ক, গ্রিস, ইটালিতে। দাবানলের কবলে ইসরায়েলও। দক্ষিণ-পশ্চিম তুরস্কের মিলাসের তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র দাবানলের গ্রাসে। কর্মীদের সরিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। হাইড্রোজেন কুলিং ট্যাঙ্ক আগেই খালি করে দেয়া হয়েছিল। সংবাদসংস্থা এএফপি জানিয়েছে, তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভিতর আগুন ঢুকে পড়ায় দমকল, পুলিশ ও অন্য সরকারি কর্মীরা পালিয়েছেন। তুরস্কের গণমাধ্যম আনাদোলু এ তথ্য জানায়।
শহরের মেয়র তোকাট জানিয়েছেন, তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রের ভিতরে আগুন লেগে গেছে।
তুরস্কের প্রেসিডেন্ট তায়েব এরদোগান যখন টেলিভিশনে ভাষণ দিচ্ছিলেন, তখনই তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্র খালি করে দেয়া হয়। প্রেসিডেন্ট এরদোগান তখন বলেন, ''তাপবিদ্যুৎ কেন্দ্রটি পুড়ে যেতে পারে। প্রবল হাওয়া বইছে। না হলে এই আগুন নিয়ন্ত্রণে আনা যেত।''
এদিকে প্রেসিডেন্ট এরদোগান বলেছেন, ''দাবানল নিয়ে রাজনীতি করার কোনো অবকাশ নেই। করোনার মতোই বিশ্বজুড়ে দাবানল হচ্ছে।''
তবে বিরোধীরা এরদোগানের প্রবল সমালোচনা করছেন। তারা বলছেন, প্রথম থেকে প্রেসিডেন্ট এরদোগান দাবানলকে কোনো দুরুত্ব দেননি। তাই এখন পরিস্থিতি হাতের বাইরে চলে গেছে। বিদেশি সাহায্য নেয়ার ক্ষেত্রেও তিনি তৎপরতা দেখাননি। গত সপ্তাহে সরকার জানায়, তাদের কাছে দাবানলের মোকাবিলা করার মতো যথেষ্ট সংখ্যক প্লেন ও হেলিকপ্টার নেই। এরপর ইইউ দুইটি প্লেন ও একটি হেলিকপ্টার পাঠিয়েছে। কিন্তুপ্রেসিডেন্ট এরদোগান গ্রিস ও ইসরায়েলের কাছ থেকে কোনো সাহায্য নিতে চাননি।
দেশটিতে এ পর্যন্ত ১৬৭টি দাবানল নেভানো হয়েছে বলে জানিয়েছেন তুরস্কের কৃষি ও বনমন্ত্রী বেকির পাকদেমিরলি।
তিনি জানান, তুরস্কের ৮১ প্রদেশের ৩৩টিতে দাবানল ছড়িয়ে পড়েছে। এখনো সাতটি প্রদেশের ১৬টি দাবানল নিয়ন্ত্রণে কাজ চলছে। সূত্র : এএফপি, আনাদোলু



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: তুরস্ক


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ