Inqilab Logo

রোববার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১১ আশ্বিন ১৪২৮, ১৮ সফর ১৪৪৩ হিজরী

হুমকির মুখে যমুনা তীরের ৫০ গ্রাম

মহসিন রাজু : | প্রকাশের সময় : ৬ আগস্ট, ২০২১, ১২:০৫ এএম

গত কয়েকদিন উজানে বৃষ্টির অভাবে যমুনায় পানি কমলেও শুরু হয়েছে নদী ভাঙন। এর ধারাবাহিকতায় বগুড়ার ধুনট উপজেলার ভান্ডারবাড়ির বন্যা নিয়ন্ত্রণ বাঁধের বানিয়াজান স্পারের মাঝে ধস নেমেছে। সামনে নদীর পানি ও স্রোতের ধার বাড়লে স্পারটি পুরোপুরি ধসে পড়লে ধুনটের ভান্ডারবাড়ি ও গোসাইবাড়ি ইউনিয়ন দুটির ৫০টি গ্রামের অস্তিত্ব হুমকির মুখে পড়বে। স্থানীয়রা জানান, যমুনার ভাঙন রোধ ও ধুনটের দুটি ইউনিয়ন ভান্ডারবাড়ি ও গোসাইবাড়িকে রক্ষার উদ্দেশ্যেই বানিয়াজানে স্পারটি নির্মাণ করা হয়েছিল। বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের দেয়া তথ্য অনুযায়ি ২০০৩ সালে যমুনার ভাঙন রোধে সারিয়াকান্দী উপজেলা ও ধুনট উপজেলায় ৬টি স্পার নির্মাণ করা হয়। প্রতিটি স্পারের নির্মাণ ব্যায় ১১ কোটি করে মোটর ৬৬ কোটি টাকা খরচ করা হয়েছিল।
তবে খোঁজ নিয়ে দেখা গেছে উল্লেখিত স্পারগুলোর মধ্যে শুধু সারিয়াকান্দীর হাসনা পাড়ায় দুটি স্পার এখনও টিকে রয়েছে। এদিকে ইতোমধ্যেই বানিয়াজান স্পারের ১৫০ মিটার কংক্রিটের ৫০ মিটারই বিলীন হয়ে গেছে। অপর তিনটি স্পারের অস্তিত্বই নেই।

গতকাল বৃহস্পতিবার ঘটনাস্থলে যেয়ে দেখা যায়, বানিয়াজান স্পারের কংক্রিট অংশের গোড়ায় ধস নেমেছ। এই ঘটনা দেখে স্পারের পাশে গড়ে উঠা দোকান গুলো সরিয়ে নিয়েছে দোকানদাররা। স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদের সদস্য জহুরুল ইসলাম জানান, ধস নামার কথা জেনে ঘটনাস্থলে চলে আসি এবং পানি উন্নয়ন বোর্ডের কর্মকর্তাকে জানিয়ে বিষয়টি ফেন করে জানিয়ে দিয়েছি। এ সম্পর্কে জানতে চাইলে বগুড়া পানি উন্নয়ন বোর্ডের সহকারী প্রকৌশল মো. হুমায়ন কবির জানান, ধসের খবর পাওয়ার পর সেখানে বোর্ডের একটি পরিদর্শন টিম চলে গেছে। তাদের রিপোর্ট ও সুপারিশের পর দ্রুত পদক্ষেপ নেয়া হবে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: যমুনা তীর
আরও পড়ুন