Inqilab Logo

বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ১২ মাঘ ১৪২৮, ২২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী
শিরোনাম

পরীমনি হচ্ছে লেডি রংবাজ-মালেক আফসারী

বিনোদন রিপোর্ট: | প্রকাশের সময় : ৮ আগস্ট, ২০২১, ১২:০৩ এএম

পরীমনিকে নিয়ে অন্তর্জ্বালা নামে একটি সিনেমা নির্মাণ করেছিলেন বিশিষ্ট চলচ্চিত্র নির্মাতা মালেক আফসারী। এ সিনেমা নির্মাণ করতে গিয়ে পরীর নানা কর্মকান্ড তিনি কাছ থেকে পর্যবেক্ষণ করেছেন। পরীমনির উচ্ছৃঙ্খল জীবন সম্পর্কেও অবগত হয়েছেন। পরীমনি গ্রেফতার হওয়ার পর এ সম্পর্কে তিনি তার ইউটিউব চ্যানেল মালেক আফসারী অফিসিয়ালে হাজির হয়ে পরীমনির অনেক অপকীর্তি তুলে ধরেছেন। পরীমনিকে লেডি রংবাজ আখ্যায়িত করে তিনি বলেন, তার কলিজা অনেক বড়। কাউকে তোয়াক্কা করে না। ও কান্না করার মানুষ না। গ্রেফতারের আগে যে কান্নাকাটি করেছে, তা তার নাটক ছিল। ও নাটকবাজ। তিনি বলেন, ওর উচ্ছৃঙ্খল জীবনযাপন বন্ধ করার জন্য অনেক সময় ধরে পরামর্শ দিয়েছি। বলেছি, তোমার ট্যালেন্ট আছে, কাজে মন দাও। আমার কথা শোনেনি। উল্টো বলেছে, সিনেমার টাকা দিয়ে আমি চলি না। এখানে না থাকলেও চলবে। তিনি বলেন, বোট ক্লাবের ঘটনা নিয়ে ওর পক্ষে কথা বলতে গিয়ে দর্শকদের অনেক কথা শুনতে হয়েছে। ভেবেছি নিজের পরিবারের সন্তান। ভুল করতেই পারে। তবে ও কোনো কথাই শোনেনি। সাত-আট মাস আগে তার ফেসবুকে বিকিনি পরে ছবি আপলোড করেছিল। এ ছবি দেখে ওকে বলেছিলাম, এসব উল্টা-পাল্টা ছবি দিও না। এটা ঠিক না। আমাদের মুসলমানের দেশ। ও এর জবাব ফেসবুকে দিয়ে বলেছে, আপনি ডিরেক্টর ছবি ডিরেকশন দেন, আমাকে ডিরেকশন দিতে আসবেন না। এতে আমি মাইন্ড করি নাই। ভেবেছি পোলাপাইন। মালেক আফসারি বলেন, ও যখন যে সিনেমার শুটিং করেছে সেখান থেকে তার নামে অভিযোগ এসেছে। অন্তর্জ্বালা সিনেমা করার সময় সেখানে গন্ডগোল করে একজনকে চেয়ার দিয়ে পিটিয়েছে। এফডিসিতে এক প্রযোজককে স্যান্ডেল দিয়ে পিটিয়েছে। শাকিবের সঙ্গে সিলেটে শুটিং করতে গিয়ে ঝামেলা করেছে। তিনি বলেন, ওর বাসা থেকে যত মদের বোতল উদ্ধার হয়েছে, তা দিয়ে একটা মদের দোকান দেয়া যাবে। এছাড়া অন্য মাদকদ্রব্যও উদ্ধার হয়েছে। পরীমনির এসব কান্ড দেখে আমার মেয়ে এখন আমাকে সিনেমা ছেড়ে দেয়ার কথা বলছে। ওকে কিছু বলতে পারছি না। নিজের কপালে নিজেই এখন ঝাড়– দিয়ে মারতে ইচ্ছা করছে। কারণ, এটা ছাড়া তো আর কিছু শিখিনি। তবে চিন্তা করছি এ লাইন ছেড়ে দেব। তিনি বলেন, ও কি দেখে নাই, চারদিকে অমুক মডেল, তমুক অভিনেত্রী মাদক নিয়ে ধরা পড়ছে? এসব দেখে কেন সতর্ক হলো না? আসলে ওর পেছনে প্রভাবশালী কেউ না কেউ আছে। যার কারণে কোনো কিছু তোয়াক্কা করেনি। এখন এর পরিনতি ভুগতে হবে। মালেক আফসারী বলেন, এখন করোনার সময়ে বড় বড় পাঁচ তারকা হোটেলগুলোতে মদের আসর খুব একটা বসছে না বলেই অনেক মডেল-অভিনেত্রীরা এখন বাসায় মদের দোকান খুলে বসেছে। তবে এগুলো তারা নিজেদের পয়সায় কিনে না। এগুলো ওদেরকে কিনে দিয়ে মদের আসর বসায়।



 

Show all comments
  • মিজানুর রহমান ৮ আগস্ট, ২০২১, ১১:১০ পিএম says : 0
    যেসব নায়িকারা পরিচালকদের অসম্মান করে তাদেরকে চলচ্চিত্র থেকে বাদ দেওয়া উচিৎ।
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ