Inqilab Logo

ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮, ৬ আশ্বিন ১৪২৫, ১০ মুহাররাম ১৪৪০ হিজরী‌

সংসদে বিরোধীদলীয় এমপির প্রশ্ন : দেশে কি মার্শাল ল’ চলছে

প্রকাশের সময় : ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১২:০০ এএম | আপডেট : ১১:৪৭ পিএম, ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬

স্টাফ রিপোর্টার : সচিবালয়ের গেটে এমপির গাড়ি ঢুকতে না দেয়া নিয়ে পুলিশির কর্মকা-ে ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন জাতীয় পার্টির বগুড়া-৬ আসনের সংসদ সদস্য নুরুল ইসলাম ওমর। তিনি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, দেশে কি মার্শাল ল’ নাকি জরুরি অবস্থা জারি করা হয়েছে যে, সচিবালয়ের গেটে এত বাড়াবাড়ি করছে পুলিশ? বর্তমানে দেশে কি পুলিশি রাজত্ব কায়েম হয়েছে? তাহলে মাছের রাজা ইলিশ, দেশের রাজা পুলিশ’ কি এটাই সত্য?
গতকাল মঙ্গলবার দশম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশনে মাগরিবের নামাজের পরে পয়েন্ট অব অর্ডারে দাঁড়িয়ে তিনি এই প্রশ্ন করেন। নুরুল ইসলাম ওমর স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর দৃষ্টিআকর্ষণ করে বলেন, ‘আজ (গতকাল মঙ্গলবার) একটি কাজে সচিবালয় যাই, আমার একটি কাগজ বাইরে থাকায় আমার ব্যক্তিগত সহকারীকে (পিএ) গাড়ি দিয়ে পাঠিয়ে দিই কাগজটি আনতে। এখানে বিপত্তি যখন পিএ গাড়ি নিয়ে পুনরায় সচিবালয় ঢুকতে যায় তখন কর্তব্যরত পুলিশ তাকে ঢুকতে দেয়নি।
তারা (পুলিশ সদস্যরা) বলেছে, এমপি সাহেব নাই, তাই আপনাকে যেতে দিবো না। এরপর পিএ আমাকে ফোনে চেষ্টা করে, আমি তাকে বলি যে, দায়িত্বে আছে তাকে দাও, পুলিশ সদস্য বলেছে আমরা কারো সাথে কথা বলবো না। কোন কথাই তারা শোনেনি। পরে আমি পিএকে বললাম ঠিক আছে তোমাকে যেহেতু আসতে দিচ্ছে না, তাহলে বাইরে থাক, আমি আসছি। এরপর তাকে বাইরেও যেতে দেবে না। পরে আমি যখন গেলাম তখন পুলিশ সদস্যদের বললাম ঘটনাটা কি? দেশে কি মার্শাল ল’ নাকি জরুরি অবস্থা জরি করা হয়েছে। আপনারা আসতেও দেবেন না, যেতেও দেবেন না ঘটনাটা কি? এ সময় আমি পুলিশ সদস্যদের বললাম, আপনাদের একজন অফিসারকে ডাকেন, পরে একজন এসআইকে পেলাম, তাকে বললাম আপনি যেতেও দিচ্ছেন না, আসতেও দিচ্ছেন, তাহলে কি পিএকে গ্রেফতার করবেন, আটকে রাখবেন’।
এমপি বলেন, এটা কোন ধরনের আচরণ, একজন এমপি’র সাথে পুলিশ কি আচরণ করবে সেটা জানে না। আজ আমার একটি কথাই বেশি মনে পড়ছে, কয়েকদিন আগে দেখেছি পত্রিকায় মাছের রাজা ইলিশ, দেশের রাজা পুলিশ, তাহলে কি এটাই সত্যি। এজন্য তিনি সচিবালয়ের ওই পুলিশ সদস্যদের তদন্ত দাবি করেন।
তিনি অভিযোগ করেন, যারা এই ধরনের কাজ করছে তারা নিশ্চয়ই জামায়াত শিবির বা বিএনপি’র লোক। তারা সংসদ সদস্যদের অবমাননা করতেই এই কাজ করছে। একটি সুষ্ঠু তদন্ত করে বিষয়টি বের করতে হবে। আর তা না হলে ধরে নিবো পুলিশই দেশের রাজা। এই ঘটনা একজন এমপির সাথে করা মানে পুরো সংসদকে অবমাননা করা। তাহলে সাধারণ মানুষের সাথে পুলিশ কি ধরনের আচরণ করে তা বোঝাই যায়Ñ এমন মন্তব্য করেন নুরুল ইসলাম ওমর।



 

Show all comments
  • Md Iqbal ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১০:৪৪ এএম says : 0
    sov apnadar jonno holo
    Total Reply(0) Reply
  • Rakib ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১০:৪৫ এএম says : 0
    atokhone bujte parlem
    Total Reply(0) Reply
  • Munna ১০ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬, ১০:৪৬ এএম says : 0
    more than it................
    Total Reply(0) Reply

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ