Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৮ অক্টোবর ২০২১, ১২ কার্তিক ১৪২৮, ২০ রবিউল আউয়াল সফর ১৪৪৩ হিজরী

কেনির কীর্তির দিনে স্ত্রী লরার হতাশা

স্পোর্টস ডেস্ক | প্রকাশের সময় : ৯ আগস্ট, ২০২১, ১২:০০ এএম

সাইক্লিং স্প্রিন্টের কিরিন ইভেন্টে রিও ডি জেনিরো অলিম্পিকসে জেতা মুকুট টোকিওতে ধরে রাখলেন জেসন কেনি। গড়লেন গ্রেট ব্রিটেনের প্রথম অ্যাথলেট হিসেবে অলিম্পিকসে সাত স্বর্ণ জয়ের কীর্ত। গতকাল টোকিও অলিম্পিকসের শেষ দিনে সাইক্লিং কিরিনের পুরুষ এককের ফাইনালে অন্য প্রতিযোগীদের তিন ল্যাপ বাকি থাকতে স্বর্ণ নিশ্চিত করেন কেনি। ছাপিয়ে যান সাবেক সতীর্থ ক্রিস হয়ের ছয় সোনা জয়ের রেকর্ড। সাত সোনার প্রথমটি কেনি জিতেছিলেন ২০০৮ সালের বেইজিং অলিম্পিকসের টিম স্প্রিন্ট থেকে। ২০১২ সালের লন্ডন অলিম্পিকসে পান টিম স্প্রিন্ট ও ব্যক্তিগত বিভাগের সোনা। রিওতে ৩৩ বছর বয়সী এই অ্যাথলেট জিতেন তিন ইভেন্টের মুকুট। যদিও টোকিওর আসরে এই প্রথম কেনি পেলেন সোনার স্বাদ। এর আগে টিম স্প্রিন্টে রুপা জিতেছিলেন তিনি। সব মিলিয়ে ‘গ্রেটেশ শো অন অর্থ’ খ্যাত অলিম্পিকসে এই সাইক্লিস্টের পদক হলো ৯টি। কেনির সাফল্যের দিনে হতাশ হতে হয়েছে তার স্ত্রী লরা ট্রটকে। টোকিওতে এসেছিলেন ওমনিয়াম ইভেন্টে টানা তৃতীয় সোনার লক্ষ্য নিয়ে। কিন্তু তা প‚রণ হলো না গ্রেট ব্রিটেনের এই সফলতম সাইক্লিস্টের। পাঁচ বছর আগে রিওতে সাইক্লিং ওমনিয়ামের শিরোপা ধরে রেখে প্রথম ব্রিটিশ নারী হিসেবে চারটি অলিম্পিক সোনা জয়ের কীর্তি গড়া লরা টোকিওতে হারিয়েছেন এ ইভেন্টের মুকুট। রেসের মাঝে দুর্ঘটনায় পড়ে হয়েছেন ষষ্ঠ। তবে ম্যাডিসন ইভেন্টে ঠিকই সোনা জিতেছেন লরা। মেয়েদের টিম পারস্যুট ইভেন্টে পেয়েছেন রুপা। সব মিলিয়ে অলিম্পিকসে এই তারকা সাইক্লিস্টের পদক হলো ৫টি সোনা ও একটি রুপা মিলিয়ে ৬টি।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অলিম্পিক


আরও
আরও পড়ুন