Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৮, ২৬ রবিউস সানী ১৪৪৩ হিজরী

মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ

## মডেল পিয়াসা-পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার জিমি ও কবির কারাগারে ## আইস ও এলএসডি নামের মাদক সেবন বা অন্য কোন মাদকে আসক্ত থাকার আলামত নেই আসামিদের মধ্যে-তদন্ত সংশ্লিস্ট কর্মকর্তাদের মন্

বিশেষ সংবাদদাতা | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২১, ১২:০২ এএম

ব্যবসায়ী, বিত্তশালী পরিবারের সন্তান ও প্রশাসনের কথিপয় প্রভাবশালীদের নিয়ে আড্ডায় চিত্রনায়িকা পরীমণি ও মডেল পিয়াসা-মৌদের হয়রানি বা প্রতারণায় শিকার ব্যক্তিদের সন্ধান করছে সিআইডি। এসব বিষয়ে রিমান্ডে চিত্রনায়িকা পরীমণি ও প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজকে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করছেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তারা। তবে মদপান বা অন্য কোন মাদক গ্রহণ করলেও চিত্রনায়িকা পরীমণি ও মডেল পিয়াসা-মৌ এদের কেউ মাদকাসক্ত নন বলে জানিয়েছেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্র। গ্রেফতারকৃতদের একাধিকবার জিজ্ঞাসাবাদ করেছেন এমন তদন্ত কর্মকর্তারা বলছেন, আইস ও এলএসডি নামের মাদক সেবন বা অন্য কোন মাদকে আসক্ত থাকার আলামত নেই আসামিদের মধ্যে। তবে এদের গ্রেফতারের সময় আইস ও এলএসডির মতোর ভয়ংকর মাদকসহ বিপুল পরিমান মাদক উদ্ধারের বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলেও ওই কর্মকর্তারা মন্তব্য করেছেন।
অন্যদিকে মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা, চিত্রনায়িকা পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার জুনায়েদ করিম জিমি ও কবির হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করা হলে ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত বুধবার এ আদেশ দেন। এ ছাড়া গত মঙ্গলবার থেকে পরীমণি ও ঢাকা মহানগর পুলিশের এডিসি গোলাম সাকলায়েন শিথিলের জন্মদিন পালনের একটি ভিডিও সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। এ বিষয়টিও খতিয়ে দেখছেন পরীমণি-সাকলায়েনের ঘটনায় গঠিত পুলিশ সদরদফতরের তদন্ত কমিটি।
নাম প্রকাশ না করার শর্তে রিমান্ডে আসামিদের জিজ্ঞাসাবাদ করছেন সিআইডির এমন একজন দায়িত্বশীল কর্মকর্তা গতকাল দৈনিক ইনকিলাবকে বলেন, চিত্রনায়িকা পরীমণি ও প্রযোজক নজরুল ইসলাম রাজসহ রিমান্ডে থাকা অন্যান্য আসামিদের ব্যবসায়ী, বিত্তশালী পরিবারের সন্তান ও প্রশাসনের কথিপয় প্রভাবশালীদের নিয়ে দেয়া আড্ডা এবং তাদের আয়ের উৎস সম্পর্কে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। তারা কোথায় থেকে কিভাবে মাদক পেয়েছেন তাও রয়েছে জিজ্ঞাসাবাদে তালিকায়। এ ছাড়া আরো বেশ কিছু অভিযোগ রয়েছে গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে। এ সব বিষয়ে আমরা প্রয়োজনে মুখোমুখি জিজ্ঞাসাবাদ করছি। তবে তদন্তের স্বার্থে জিজ্ঞাসাবাদের বিষয়ে কিছু বলছে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।
এক প্রশ্নের জবাবে ওই কর্মকর্তা বলেন, মদপান বা অন্য কোন মাদক গ্রহণ করলেও চিত্রনায়িকা পরীমণি ও মডেল পিয়াসা-মৌ এদের কেউ মাদকাসক্ত নন। আইস ও এলএসডির মতোর ভয়ংকর মাদক বা অন্য কোন মাদকে আসক্ত হলে আসামিরা অসুস্থ হয়ে পড়তেন। গ্রেফতারের এক সপ্তাহ বেশি হলেও তাদের শারীরিক বড় কোন পরিবর্তন লক্ষ্য করা যাচ্ছে না বলে ওই কর্মকর্তা মন্তব্য করেন।
গত মঙ্গলবার পরীমনি আদালতের বারান্দায় দাঁড়িয়ে থাকা সাংবাদিকদের উদ্দেশে বলতে থাকেন, একটা মিথ্যা মামলায় আমাকে ফাঁসানো হয়েছে। আমার বিরুদ্ধে যে মামলা দেয়া হয়েছে, তা ১০০ ভাগ মিথ্যা মামলা।
শুনানির শুরুতে রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলি আবদুল্লাহ আবু পরীমনিকে কেন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা দরকার, তার পক্ষে যুক্তি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, পরীমনির বাসা থেকে নতুন ধরনের মাদক আইস, এলএসডি পাওয়া গেছে। এই মাদকের উৎস কী, সেটি জানার জন্য তাকে রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা জরুরি।
রাষ্ট্রপক্ষের কৌঁসুলির বক্তব্য শেষ হলে পরীমনির আইনজীবী মজিবুর রহমান আদালতে বলেন, পরীমনি জনপ্রিয় একজন নায়িকা। আমেরিকার প্রখ্যাত বাণিজ্য সাময়িকী ফোর্বসের প্রকাশ করা এশিয়ার ১০০ ডিজিটাল তারকার তালিকায় নাম রয়েছে বাংলাদেশি এই অভিনেত্রীর। তার প্রতি অন্যায় আচরণ করা হচ্ছে। তাকে তো চার দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়েছে। নতুন করে তো তাকে রিমান্ডে নেয়ার কোনো যৌক্তিকতা নেই। চিকিৎসা করলেই প্রমান হবে পরীমণি আইস-এলএসডি বা অন্য কোন মাদক সেবন করেছে কি না এমনটাই দাবি করেন তার আইনজীবি।
মডেল পিয়াসা-জিমি ও কবির কারাগারে: মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা, চিত্রনায়িকা পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার জুনায়েদ করিম জিমি ও কবির হোসেনকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত। ঢাকার চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট (সিএমএম) আদালত বুধবার এ আদেশ দেন। এর আগে গুলশান ও ভাটারা থানায় করা পৃথক দুটি মাদক মামলায় ফারিয়া মাহবুব পিয়াসাকে আদালতে হাজির করে মোট ১০ দিন রিমান্ডে নিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করার আবেদন করে সিআইডি। আদালত উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে ফারিয়া মাহবুবের রিমান্ড ও জামিন উভয় আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
এ ছাড়া পরীমনির কস্টিউম ডিজাইনার জুনায়েদ করিমকে আবার আদালতে হাজির করে পাঁচ দিনের রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করে সিআইডি। আদালত উভয় পক্ষের বক্তব্য শুনে জুনায়েদের রিমান্ড ও জামিন আবেদন নাকচ করে তাকে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। এ ছাড়া পরীমনির বিরুদ্ধে করা মামলার অপর আসামি কবির হোসেনকে পাঁচ দিন রিমান্ডে নেয়ার আবেদন করে সিআইডি। আদালত তাকে রিমান্ড ও জামিন উভয় আবেদন নাকচ করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।
রিমান্ড শুনানি শেষে আদালতের হাজত খানায় নেয়ার পথে মডেল ফারিয়া মাহবুব পিয়াসা বলেছেন, জামান ও জামানের বউকে খোঁজেন। ওই প্রস্টিটিউটকে খুঁজে বের করেন। বাঁচানোর মালিক জামান। জামানের কাছে যান। তার বউয়ের পরকীয়ার ষড়যন্ত্রের শিকার আমরা। আমাদের না ধরে ওই প্রস্টিটিউটকে ধরেন। আমরা তার ষড়যন্ত্রের শিকার।তার এ কথা শুনে উপস্থিত সাংবাদিকরা পিয়াসার কাছে জানতে চান কে এই জামান? কিন্তু এর কোনো উত্তর দেননি তিনি। বারবার জামান ও তার স্ত্রীকে খোঁজে বের করতে বলেন পিয়াসা।
পরীমণি-সাকলায়েনের নতুন ভিডিও ভাইরাল: পরীমণিকে নিয়ে বাসায় ১৮ ঘণ্টা কাটানো ডিএমপির এডিসি গোলাম সাকলায়েন শিথিল বরাবরই গণমাধ্যমের কাছে পরীমণির সঙ্গে তার সম্পর্ক অস্বীকার করেছেন। তবে এবার সাকলায়েনের সঙ্গে পরীমণির একটি জন্মদিন পালনের ভিডিও সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। ভিডিওটি দেখে ধারণা করা হচ্ছে, এটি সাকলায়েনের জন্মদিনে ধারণ করা। ভিডিওতে দেখা যায়, পরীমণি ও সাকলায়েন একসঙ্গে কেক কেটেছেন এবং পরীমণি তার মুখে কেক তুল দিয়েছেন। কেক কাটার পর পরীমণি তাকে চুম্বনও করেছেন। মঙ্গলবার ১০ আগস্ট সন্ধ্যার পর ইউটিউব ও ফেসবুকে ভিডিওটি ছাড়া হয়। ভিডিওর ক্যাপশনে বলা হয়, পরীমনি ও পুলিশ কর্মকর্তা সাকলাইনের গোপন ভিডিও!
পুলিশ সদর দফতরের গঠিত তদন্ত কমিটি সূত্রে জানা গেছে, পরীমণি ও সাকলায়েনের সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ভাইরাল হওয়া ভিডিওটি তদন্ত কমিটি খতিয়ে দেখছে। পাশাপাশি তদন্ত কমিটি তাদের বিরুদ্ধে যে অভিযোগ রয়েছে তা গুরুত্বের সাথে তদন্ত করছে। গত রোববার ৮ আগস্ট পুলিশ সদরদফতরের অতিরিক্ত ডিআইজি মিয়া মাসুদ করিমকে (ট্রেনিং) প্রধান করে এ কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির বাকি দুজনের একজন হলেন-ডিএমপির উইমেন সাপোর্ট অ্যান্ড ইনভেস্টিগেশন সেন্টারের ডিসি হামিদা পারভিন এবং সিআইডির ফরেনসিক বিভাগের এসএস রুমানা আক্তার। তদন্ত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য কমিটিকে ১৫ কার্যদিবস সময় দেয়া হয়েছে।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: পরীমনি


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ