Inqilab Logo

রোববার, ১৬ জানুয়ারী ২০২২, ০২ মাঘ ১৪২৮, ১২ জামাদিউস সানি ১৪৪৩ হিজরী

১৫ আগস্ট ঘিরে ফতুল্লায় চাঁদাবাজির অভিযোগ

নারায়ণগঞ্জ থেকে স্টাফ রিপোর্টার | প্রকাশের সময় : ১৩ আগস্ট, ২০২১, ৩:২৩ পিএম

আগামী ১৫ আগস্ট জাতীয় শোক দিবসকে সামনে রেখে ফতুল্লার কুতুবপুরে চাঁদাবাজির মহোৎসবে মেতে উঠেছে সরকারদলীয় সাইনবোর্ডধারী এক শ্রেণীর মৌসুমী চাঁদাবাজ। কার্ড দিয়ে সকল শ্রেণীর পেশাজীবী মহলের নিকট থেকে কাছ আদায় করা হচ্ছে চাঁদা । এমনকি প্রতারণার কৌশল হিসেবে একই অনুষ্ঠানের দুই প্রকারের কার্ড ছাপিয়ে তাঁরা তা বিলি করছে যার সত্যতাও মিলেছে।

জানা যায়, শোক দিবসকে সামনে রেখে চাঁদাবাজির পরিকল্পনা পূর্ব থেকেই করে রেখেছিলো কুতুবপুরের একাধিক চাঁদাবাজ চক্র। সে লক্ষ্যে কার্ডও ছাপায় তাঁরা। সূত্র জানায়, অধিক চাঁদা আদায় করতে কার্ডে জেলা ও মহানগর পর্যায়ের নেতাদের নাম ব্যবহার করেই ক্ষান্ত হয়নি তারা বরং প্রধান অতিথি হিসেবে জুড়ে দিয়েছে মাননীয় সংসদ সদস্য একেএম শামীম ওসমানের নাম। এখানেই শেষ নয় বিবাদমান একাধিক পক্ষকে খুশি রাখার কৌশল অবলম্বন করতেও ভুল করেনি তাঁরা। দু প্রকারের কার্ড ছাপিয়ে বিতরণ করে চাদাঁ আদায় করার অভিজ্ঞতা পাওয়া গেছে।

তথ্য মতে, সংসদ সদস্যসহ বড় নেতাদের নাম দেখে অনেকেই বাধ্য হচ্ছেন চাঁদা দিতে। তবে কেউ চাঁদা দিতে না চাইলে তাকে দেওয়া হচ্ছে বিভিন্ন প্রকার হুমকি। লাঞ্চিত হওয়ার ভয়ে তাই অনেকেই নীরবে চাঁদা দিয়ে দিচ্ছেন। আর কুতুবপুর জুড়ে এই চাঁদাবাজির নেপথ্যে উঠে এসেছে চিতাশাল খালপাড়ের সরকারদলীয় সাইনবোর্ডধারী জুয়াড়ি শফিক, মুসলিমপাড়ার হাইব্রিড খ্যাত মুন্না, অপর হাইব্রিড খালপাড়ের সোহেল, আমতলার মাহবুব ওরফে অটো মাহবুব, খালপাড়ের মাদক ব্যবসায়ী সালাউদ্দিনের নাম ৷ জানা যায়, খালপাড়ের ভুঁইফোড় সংগঠন 'বঙ্গবন্ধু স্মৃতি সংসদ' এর আড়ালেই মাদক ব্যবসা, জুয়ার বোর্ডসহ যাবতীয় অপকর্ম ও অসামাজিক কার্যকলাপ চালায় শফি ও তার বাহিনী৷ এইসব অপকর্মে তাকে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের এক বড় নেতা টাকার বিনিময়ে শেল্টার দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। শফি ও তার বাহিনীর সকলেই মাদকাসক্ত বলে জানান

শোক দিবসকে সামনে রেখে বড় অঙ্কের চাঁদাবাজি করতে বেশ আগে ভাগেই মাঠে নামে তারা৷ মুন্না, সোহেল, অটো মাহবুব ও সালাউদ্দিনের মাধ্যমে চাঁদা কালেকশন করে শফি। এমন কর্মকান্ডে কুতুবপুরের সর্বত্র বইছে সমালোচনার ঝড়। সংঘবদ্ধ এই চাঁদাবাজ চক্রের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে প্রশাসনের প্রতি জোর দাবি জানিয়েছেন ভুক্তভোগীরা৷



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: অভিযোগ


আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ
গত​ ৭ দিনের সর্বাধিক পঠিত সংবাদ