Inqilab Logo

রোববার, ১৪ আগস্ট ২০২২, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৯, ১৫ মুহাররম ১৪৪৪
শিরোনাম

বীজতলা তৈরী ও বোনা আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রা অতিক্রম বগুড়া অঞ্চলের

৪ জেলায় খরা পরিস্থিতির মধ্যে চলছে আমন আবাদের কাজ

বগুড়া ব্যুরো | প্রকাশের সময় : ১৪ আগস্ট, ২০২১, ২:০৪ পিএম

বৃষ্টিহীন শ্রাবনের কারনে প্রায় খরা পরিস্থিতির মধ্যেই বগুড়া কৃষি অঞ্চলে এগিয়ে চলেছে আমন রোপনের কাজ।
শনিবার এই রিপোর্ট লেখার সময় পর্যন্ত কৃষি বিভাগের সরেজমীন উইং এর তথ্য মোতাবেক বগুড়া কৃষি অঞ্চলের ৪ জেলায় বীজতলা রোপনের কাজ শেষ হয়েছে। প্রত্যেক জেলাতেই বীজতলা তৈরীর কাজ লক্ষ্যমাত্রার শতকরা হার ছাড়িয়ে গেছে।
বগুড়া অঞ্চলের কৃষি কর্মকর্তা আজিজার রহমান ইনকিলাবকে তথ্য দিয়ে জানিয়েছেন , চলতি াামন মওশুমে বগুড়া জেলায় স্থানীয় , হাইব্রীড ও উফশী মিলিয়ে ৯ হাজার ১০৮ হেক্টরে বীজতলা তৈরীর লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে বীজতলা প্রস্তত হয়েছে ১০ হাজার ২৫৩ হেক্টর। শতকরা হিসেবে অগ্রগতির হার ১১২ শতাংশ ।
জয়পুরহাটে বীজতলা তৈরীর অগ্রগতির হার ১০৫, পাবনায় ১০৯ এবং সিরাজগঞ্জে ১০৩। ফলে ৪ জেলার সমন্বয়ে বগুড়া কৃষি অঞ্চলের বীজতলা তৈরীর গড় অগ্রগতির হার ১০৯ শতাংশ।
এদিকে বগুড়া কৃষি অঞ্চলে বন্যা সহায়ক ধান বোনা আমনের চাষ কেবল পাবনা ও সিরাজগঞ্জ জেলাতেই হয়ে থাকে বলে কৃষি বিভাগের তথ্যে দেখা যায়। সে মোতাবেক মধ্য শ্রাাবনেই পাবনা অঞ্চলে ৪০ হাজার ৫৫০ হেক্টরের বোনা আমন চাষের লক্ষ্যমাত্রার বিপরীতে চাষ হয়েছে ৩৯ হাজার ১০০ হ্ক্টেরে। অপরদিকে সিরাজগঞ্জে ১০ হাজার ৭৫০ হেক্টরের লক্ষ্য মাত্রার বিপরীতে চাষ হয়েছে ১৪ হাজার ৭৬৫ হেক্টরে।্ দুই জেলায মোট ৫৩ হাজার ৮৬৫ হেক্টরে বোনা আমন চাষ হওয়ায় লক্ষা মাত্রা অর্জনের শতকরা হার দাঁড়িয়েছে ১০৫ শতাংশ।
এদিকে শ্রাবন মাসে স্বাভাবিক বৃষ্টিপাত না হওয়ায় রোপা আমনের চাষাবাদ কিছুটা বাধাগ্রস্ত হয়েছে বলে জানিয়েছে চাষীরা। কোথাও কোথাও সেচ দিয়েও জমিতে রোপা আমন রোপন করা হচ্ছে বলে দেখা গেছে।
কৃষি বিভাগের সর্বশেষ তথ্যানুযায়ি বগুড়া জেলায় রোপা আমনের হাইব্রীড, উফশী ও স্থানীয় মিলিয়ে মোট লক্ষ্যমাত্রা ১ লাখ ৮০ হাজার ৮৪০ হেক্টরের বিপরীতে এপর্যন্ত চাষ হয়েছে ১ লাখ ৪৫ হাজার ২৪৫ হেক্টর । শতকরা হিসেবে অগ্রগতির হার ৮০ শতাংশ ।
জয়পুর হাট জেলায় রোপা আমনের হাইব্রীড, উফশী ও স্থানীয় মিলিয়ে মোট লক্ষ্যমাত্রা ৬৯হাজার ৬৬০ হেক্টরের বিপরীতে এপর্যন্ত চাষ হয়েছে ৫৯ হাজার ৭০০ হেক্টর। শতকরা হিসেবে অগ্রগতির হার ৯৬ শতাংশ ।
অপরদিকে পাবনা জেলায় রোপা আমনের হাইব্রীড, উফশী ও স্থানীয় মিলিয়ে মোট লক্ষ্যমাত্রা ৫৬ হাজার ৭৪৫ হেক্টরের বিপরীতে এপর্যন্ত চাষ হয়েছে ২৯ হাজার ৯০ হেক্টর । শতকরা হিসেবে অগ্রগতির হার ৫১ শতাংশ ।
এছাড়া সিরাজগঞ্জ জেলায় রোপা আমনের হাইব্রীড, উফশী ও স্থানীয় মিলিয়ে মোট লক্ষ্যমাত্রা ৭১ হাজার ৮৮০ হেক্টরের বিপরীতে এপর্যন্ত চাষ হয়েছে ৩৪ হাজার ৫৮৫ হেক্টর । শতকরা হিসেবে অগ্রগতির হার ৪৮ শতাংশ। সব মিলিয়ে রোপা আমন আবাদের মোট অগ্রগতির হার ৭৩ শতাংশ বলে জানা গেছে ।
কৃষি বিভাগের কর্মকর্তাদের মতে ভাদ্র মাসের মাঝামাঝি সময়ের মধ্যেই রোপা আমনের আবাদের লক্ষ্যমাত্রা পুরণ হয়ে যাবে বলে তারা আশাবদি ।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: বগুড়া

১৩ জানুয়ারি, ২০২২

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ