Inqilab Logo

বৃহস্পতিবার, ২৬ মে ২০২২, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯, ২৪ শাওয়াল ১৪৪৩ হিজরী

মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরে দোয়া মাহফিল অনুষ্ঠিত

জাতীয় শোক দিবস

বিজ্ঞপ্তি | প্রকাশের সময় : ১৬ আগস্ট, ২০২১, ১২:০০ এএম

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান-এর ৪৬তম শাহাদাতবার্ষিকীতে জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে গতকাল দুপর দেড়টায় বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতরে এক দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়। অধিদফতরের মহাপরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) কে এম রুহুল আমীনের সভাপতিত্বে আয়োজিত এ দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সম্মানিত সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান।

হাফেজ মাওলানা ক্বারী মো. হাফিজুল ইসলামের তিলাওয়াত ও বাংলাদেশ জমিয়াতুল মোদার্রেছীনের যুগ্ম মহাসচিব প্রিন্সিপাল ড. মাওলানা এ কে এম মাহবুবুর রহমান রচিত হৃদয়ে বঙ্গবন্ধু কবিতাবৃত্তির মাধ্যমে অনুষ্ঠান শুরু হয়। শুরুতেই সভাপতির বক্তব্যে মহাপরিচালক কে এম রুহুল আমীন ১৯৭৫ এর ১৫ই আগষ্ট ঘটে যাওয়া বর্বরোচিত হত্যাযজ্ঞের সংক্ষিপ্ত বিবরণ উপস্থাপন ও বঙ্গবন্ধুর আত্মার মাগফিরাত কামনার পাশাপাশি মাদরাসা শিক্ষা উন্নয়নে জতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের বিভিন্ন অবদানের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, মাদরাসা শিক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধু যেসকল মূল্যবান অবদান রেখে গেছেন তার সুফল আমরা এখনও ভোগ করছি। ১৯৭৩ সালে ৩১ মার্চ জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঢাকা আলিয়ার মাঠে সমবেত তৎকালীন মাদরাসা শিক্ষক ও ইসলামি শিক্ষা সংস্কার কমিটির সম্মেলনে বলেছিলেন মসজিদ মক্তব হলো শিক্ষার মূল।
তিনি বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা বোর্ড প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এদেশে মাদারাসা শিক্ষা উন্নয়নে নীতি নির্ধারণী নির্দেশনা দিয়ে মাদরাসা শিক্ষার অগ্রযাত্রাকে তরান্বিত করেছিলেন। ইসলামি ধর্মীয় শিক্ষা তথা মাদরাসা শিক্ষাকে বেগবান করার লক্ষ্যে তিনি যে অগ্রণী ভূমিকা রেখে গেছেন তা বর্ননা করে শেষ করা সম্ভব নয়।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগের সম্মানিত সচিব মো. আমিনুল ইসলাম খান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মাদরাসা শিক্ষার বিভিন্ন উন্নয়নের দিক তুলে ধরে বলেন, প্রধানমন্ত্রী অত্যন্ত মাদরাসা শিক্ষানুরাগী একজন মানুষ। মাদরাসা শিক্ষা উন্নয়ন, ডিজিটালাইজেশন, যুগপোযুগী ও আন্তর্জাতিক মানে গড়ে তোলার লক্ষ্যে ইতিমধ্যেই নানাবিধ প্রকল্প, ভাষা কোর্স ও ট্রেনিং চালু করা হয়েছে।
অনুষ্ঠান শেষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবার পরিজনের মধ্যে যারা শাহাদাত বরণ করেছেন তাদের রূহের মাগফিরাত কামনার পাশাপাশি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা’সহ বঙ্গবন্ধু পরিবারের যারা জীবিত রয়েছেন সকলের সুস্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করে দোয়া করা হয়। একই সাথে চলমান বৈশ্বিক মহামারি করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব থেকে দেশ ও জাতিকে হেফাজতের জন্য আল্লাহর দরবারে সাহায্য প্রর্থনা করা হয়। মোনাজাত পরিচালনা করেন মহাখালী দারুল উলুম হোসাইনিয়া কামির মাদরাসার প্রিন্সিপাল ড. মাওলানা মুহাম্মদ নজরুল ইসলাম আল-মারুফের।
জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষা অধিদফতর কর্তৃক আয়োজিত এ দোয়া মাহফিলে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, জনাব হাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব (মাদরাসা), কারিগরি ও মাদরাসা শিক্ষা বিভাগ, শিক্ষা মন্ত্রণালয়, কাজী জেবুন্নেছা বেগম, জাতীয় কমিশনার, বাংলাদেশ গার্ল গাইডস এসোসিয়েশন। এছাড়াও দেশের ৭২টি মাদরাসার প্রধানগণ দোয়া মাহফিলে অংশ নিয়ে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আত্মার মাগফিরাত কামনা করেন।



 

দৈনিক ইনকিলাব সংবিধান ও জনমতের প্রতি শ্রদ্ধাশীল। তাই ধর্ম ও রাষ্ট্রবিরোধী এবং উষ্কানীমূলক কোনো বক্তব্য না করার জন্য পাঠকদের অনুরোধ করা হলো। কর্তৃপক্ষ যেকোনো ধরণের আপত্তিকর মন্তব্য মডারেশনের ক্ষমতা রাখেন।

ঘটনাপ্রবাহ: জাতীয় শোক দিবস

১৭ আগস্ট, ২০২১

আরও
আরও পড়ুন
এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ